আজ: রবিবার | ১২ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৮শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২১শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | সন্ধ্যা ৬:১৪

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

ফের নারায়ণগঞ্জে কারফিউ’র গুঞ্জন

ডান্ডিবার্তা | ০৪ জুন, ২০২০ | ১২:৩১

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জে করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে কারফিউ দেয়া হবে এমন গুঞ্জন উঠেছে। যদিও জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। ঈদের আগেও গুঞ্জন উঠেছিল নারায়ণগঞ্জ জেলায় কারফিউ দেয়া হবে। তবে তা দেয়া হয়নি। কিন্তু নতুন করে শহরবাসীর মুখে মুখে শুনা যাচ্ছে, কারফিউ দেয়া হবে নারায়ণগঞ্জে। সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, দেশ সর্বোচ্চ করোনাঝুঁকির দিকে এগোতে থাকায় এবং বড় শহরগুলোতে আক্রান্তের হার বেশি হওয়ায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামের ক্ষেত্রে নতুন কৌশল নিতে যাচ্ছে সরকার। এই শহরগুলোতে নতুন নিয়মে ‘লকডাউনের’ বিষয়টি ভাবা হচ্ছে। নগরীর মেয়ররা চাচ্ছেন, এই চার সিটিতে যাতে অন্য জেলার মানুষ আসা-যাওয়া করতে না পারে তা সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে। প্রতিটি সিটি এলাকায় আলাদাভাবে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে করোনা পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে হবে। ফলাফল দেখে ঝুঁকির মাত্রা বিবেচনায় সিটিগুলোতে ওয়ার্ডভিত্তিক রেড ইয়েলো গ্রিন জোন করা হতে পারে। তবে নারায়ণগঞ্জের সচেতন মহল দাবী করছেন, সাড়াদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের দিক দিয়ে নারায়ণগঞ্জের অবস্থান দ্বিতীয়। তাই নারায়ণগঞ্জে করোনা ভাইরাসেও বিস্তার ঠেকাতে কারফিউ দেয়া জরুরী। জানাগেছে, নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে। গতকাল বুধবার পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জে ৩১৫৩ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। আর প্রতিদিন গড়ে যে পরিমান টেস্ট করা হচ্ছে তার সংখ্যা বাড়ানো হলে আক্রান্তের সংখ্যা আরো কয়েকগুন বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই অবস্থায় শহরে সবকিছু আগের অবস্থায় ফিরে এসেছে। পূর্বের রূপে ফিরেছে নারায়ণগঞ্জ শহর। এরমধ্যে স্বাস্থ্য বিধি কোন প্রকার মানার লক্ষনই দেখা যাচ্ছেনা শহরে। নারায়ণগঞ্জের পথে ঘাটে দেখা মিলছে মাস্ক ছাড়া অনেক মানুষের যারা দিব্যি মাস্ক ছাড়াই ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তাই সংক্রমণের শংকা প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা। যদিও মাস্ক ব্যবহারের প্রতি কড়াকড়ি আরোপ করেছে প্রশাসন তবে তা মানছেন না অনেকে। একই ভাবে গণপরিবহণগুলোতেও স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। নারায়ণগঞ্জের অন্যতম প্রধাণ নিত্য পণ্যের পাইকারী ও খুচরা বাজার দ্বিগু বাবু বাজারে সারাদিনই লোক সমাগম হচ্ছে প্রচুর। ব্যবহার্য খাদ্য সামগ্রী কিনতে নানা পেশা ও বয়সের লোকজন জড়ো হচ্ছে এখানে। যদিও করোনা মোকাবেলায় সকল প্রকার গন জমায়েত নিরুৎসাহিত করছে সরকার। আর তা মানা হচ্ছে না। তাই নারায়ণগঞ্জে করোনা ভাইরাসের সংক্রামন রোধে কারফিউ দেয়ার কোন বিকল্প নেই। তাই কারফিউ দেয়ার গুঞ্জনের বাস্তব রূপ দেখতে চান নারায়ণগঞ্জের সচেতন মহল। এমতাবস্থায় দেশের হটস্পট শহর হিসাবে পরিচিত নারায়ণগঞ্জে কারফিউ না দিলে জনসমাগম রোধ করা অসম্ভব হয়ে পড়বে। আর এর ফলে নারায়নগঞ্জের অবস্থা আরো ভয়াবহ হয়ে উঠবে। অভিজ্ঞ মহলের মতে ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতির মধ্যে লকডাউন শিথিল করে দেয়া হয়েছে। দোকানপাট, গার্মেন্ট, গণপরিবহন সহ প্রায় সকল কিছু খুলে দেয়া হয়েছে। এদিকে লকডাউন শিথিল হতেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এতে করে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দিচ্ছে নারায়ণগঞ্জ জেলাকে। যা এখনই রোধ করা না হলে ভবিষ্যতে সামাল দেয়া দুস্কর হয়ে পড়বে। দফায় দফায় লাফিয়ে লাফিয়ে এ মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। এমনকি এ জেলা এতোটাই মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে যে কোন রোগে আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা গেলে পরিবার স্বজনরা পর্যন্ত এগিয়ে আসছেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *