Home » শেষের পাতা » অধিগ্রহণ হচ্ছে নদীর জমি

ফের বির্তকে লায়ন বাবুল

২৩ জানুয়ারি, ২০২৩ | ১০:৩৫ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 39 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট সোনারগাঁয়ে বিতর্কিত সেই বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন মাহবুর রহমান বাবুল স্বাধীনতার ইতিহাসকে বিকৃত করে বক্তব্য দেওয়ায় রবিবার দুপুরে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। শুক্রবার বিকেলে একটি ফুটবল খেলায় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি স্বাধীনতার ইতিহাসকে বিকৃত করে বক্তব্য দেন। জানা যায়, উপজেলার বারদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লায়ন মাহবুর রহমান বাবুল মছলন্দপুর ফুটবল টুর্নামেন্টে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি স্বাধীনতার ইতিহাসকে বিকৃত করে বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, “ত্রিশ লক্ষ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে লাল সবুজের পতাকা পেয়েছি” এমন বক্তব্য সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যেমে ভাইরাল হয়। অথচ ত্রিশ লক্ষ শহীদের বিনিময়ে এ দেশ স্বাধীন হয়েছে। এর আগেও তিনি প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটাক্ষ করে বক্তব্য দেওয়ায় উপজেলা আওয়ামীলীগের পদ থেকে বহিষ্কার হন। এর রেশ কাটতে না কাটতেই টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে গিয়ে মোনাজাত পরিচালনা করে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের জান্নাত কামনা করে আবারও সমালোচিত হন এ ইউপি চেয়ারম্যান। চেয়ারম্যানের এমন ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত চেয়ারম্যান লায়ন মাহবুবুর রহমান বাবুলের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তার মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়। এ বিষয়ে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধার সাবেক ডেপুটি কমান্ডার ওসমান গনি বলেন, এই ইউপি চেয়ারম্যান বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়েও কটাক্ষ করে দল থেকে বহিষ্কার হয়েছিলেন। সে হলো একজন পাগল। একের পর এক ঘটনা ঘটিয়েই যাচ্ছে। এমন ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তিনি। সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, সে গুণতে পারে না, গুণায় সে ভুল করেছে। তার কপালে শনি আছে বলে তিনি ফোন কেটে দেন। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোহাম্মদ বাদল বলেন, ইতিহাস নিজের ইচ্ছেমতো বললে হবে না, এগুলো আসলে মূর্খতার কাজ। প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটাক্ষ করায় তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুপারিশ করবো। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, এ পাগল নিয়ে আমরা মহা বিপদে পড়েছি, মনে হয় মাথায় সমস্যা আছে। তার বিরুদ্ধে আবারও দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *