Home » প্রথম পাতা » ফারদিন হত্যা মামলায় তথ্যগত ভুল: ডিবি

বন্দরে পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজি

০৩ নভেম্বর, ২০২২ | ৮:৫৮ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 66 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট বন্দরে শাহ আলম নামে এক প্রতারক নিজেকে দারোগা হাসান পরিচয়ে ৫০ হাজার টাকা চাঁদাদাবী করে অটো চালককে হয়রানী করা হচ্ছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে শাহ আলমের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী অটো চালক আনোয়ার হোসেন(৩০)। প্রতারক শাহ আলম তিনগাঁও গ্রামের মৃত শাহাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শাহ আলম পেশায় একজন চিহৃিত মাদক কারবারি। মাদক, ছিনতাই, ধর্ষণ সহ এক ডজন মামলার আসামি। প্রতারক শাহ আলম নিজেকে বন্দর থানার এসআই হাসান পরিচয়ে পার্শ্ববর্তী মুছাপুর ইউনিয়নের লাঙ্গলবন্দের আশপাশের এলাকায় তাফালিং করে সাধারণ মানুষকে নানা ভাবে হুমকি দমকি ভয়ভীতি দেখিয়ে পুলিশি হয়রানী করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। এ ধারাবাহিকতায় গত ২০ অক্টোবর রাতে উপজেলা মুছাপুর ইউপির যোগীপাড়া গ্রামের মৃত শহিদুল্লাহ ছেলে অটোচালক আনোয়ারকে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীর বাড়িতে নিয়ে যেতে বলে শাহ আলম। আনোয়ার ওই বাড়িতে নিয়ে যেতে অস্বীকৃতি জানালে শাহ আলম নিজেকে দারোগা হাসান পরিচয়ে মারধর শুরু করে। এসময় স্থানীয় লোকজন ভীড় জমায় এবং প্রতিবাদ করলে শাহ আলম কৌশলে ছিটকে পড়েন। তার পর থেকে শাহ আলম ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিনিয়ত শাহ আলম তার দলবল নিয়ে অটো চালক আনোয়ার বাড়িতে তাফালিং শুরু করে এবং আনোয়ারের মায়ের ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। দাবিকৃত চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে শাহ আলম তার ছেলে মামলায় ফাঁসানো হবে বলে হুমকি দমকি অব্যহত রেখেছে। এ ঘটনায় নিরুপায় হয়ে অটোচালক আনোয়ার মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রতারক শাহ আলমের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, জামাই ফারুককে ধরতে গিয়েছিলাম। অটোচালক আনোয়ারের কারণে ধরতে পারি নাই। তারে ধরতে পারলে লাখ টাকা পাইতাম। এখন আনোয়ারকে ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে। আর নয় তাকে ধরে এনে টাকা আদায় করা হবে। আপনি যখন ফোন করেছেন, ৩০ হাজার টাকা নিয়ে দেন আপনার বিষয়টা আমি দেখবো। বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আবু বকর ছিদ্দিক জানান, থানা পুলিশের কোনো স্টাফ অফিসার এ ধরনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমানিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *