আজ: মঙ্গলবার | ৪ঠা আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জিলহজ, ১৪৪১ হিজরি | রাত ১২:২৯

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

বাণিজ্যমেলায় চলছে মূল্য ছাড়ের প্রতিযোগিতা

ডান্ডিবার্তা | ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯ | ১০:২৭

বাণিজ্যমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো নেমেছে পণ্যের মূল্য ছাড়ের প্রতিযোগিতায়। কে কার চেয়ে বেশি বিক্রি এ নিয়ে চলছে প্রতিযোগিতা। যদিও দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করার কৌশল বিক্রয়কর্মীরা ভালো করেই জানেন। ক্রেতা-দর্শনার্থী দেখা মাত্রই পণ্য এবং এর গুণাগুণ তুলে ধরছেন তাদের সামনে। তুলে ধরছেন পণ্যে মূল্য ছাড়ের অফারগুলো।

মেলার নীতিমালা অনুযায়ী, শুধু উত্পাদকরা ও বিদেশি কোম্পানির দেশীয় এজেন্টরা তাদের পণ্য নিয়ে মেলায় অংশ নিতে পারেন। সে কারণে প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের প্রায় সব পণ্যেই পাইকারি দামে বিক্রি করেন। পাশাপাশি ক্রেতা আকৃষ্ট করতে বাইরের শোরুমের চেয়ে মেলার শোরুমের পণ্যগুলোর মূল্যে ছাড় দেয়া হয়। বিক্রেতাদের যুক্তি হলো, এতে একদিকে ক্রেতার কাছে তার পণ্য জনপ্রিয় হয়, অন্যদিকে একসঙ্গে বেশি পণ্য বিক্রি হয়। কারণ বাণিজ্যমেলাকে সবাই মনে করে মূল্য ছাড়ের মেলা। এরফলে ভোক্তাদের কথা চিন্তা করে কোম্পানিগুলো মূল্য ছাড় কিংবা উপহারের কোনো না কোনো ব্যবস্থা রাখে।

পণ্যভেদে এবারের মেলায় ৫ থেকে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় রয়েছে। আছে লটারি কিংবা উপহারের ব্যবস্থাও। অনেক কোম্পানি মেলা থেকে পণ্য কিনলে ঢাকার মধ্যে নিজ খরচে ভোক্তার বাড়িতে পৌঁছে দিচ্ছে।

বিভিন্ন পণ্যের মধ্যে ‘হোম অ্যাপ্লায়েন্স’ এর পণ্যে বেশি ছাড় দেয়া হচ্ছে। একটি পণ্য কিনলে সঙ্গে দশটি পর্যন্ত পণ্য ফ্রি দেয়া হচ্ছে। মেসার্স সফট ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল প্রিমিয়ার স্টলে গিয়ে দেখা যায়, তারা ‘একটির সঙ্গে দশটি ফ্রি’ একটি নোটিশ ঝুলিয়ে রেখেছেন। বিক্রয়কর্মীরা খোলাসা করে বললেন, একটি প্যাকেজ কিনলে পাওয়া যাচ্ছে দশটি পণ্য। আর এজন্য বলা হয়েছে ‘একটির সঙ্গে দশটি ফ্রি’। প্যাকেজটির দাম ২০ হাজার টাকা। এর মধ্যে রয়েছে ফ্লাক্স, আয়রন, জগসেট, রাইস কুকার, ননস্টিক কুকার (৪টি), হটপট এবং মাইক্রোওভেন।

আসবাবপত্রের প্যাভিলিয়নগুলোতে চলছে নগদ মূল্য ছাড়। মেলা উপলক্ষে প্রতিষ্ঠানগুলো দিচ্ছে ৫ থেকে ২০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড়। রয়েছে রাজধানীর মধ্যে ফ্রি ডেলিভারির ব্যবস্থা। মেলা উপলক্ষে ৫ থেকে ১০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে হাতিল ফার্নিচার। আকতার ফার্নিচারের দুটি প্যাভিলিয়নে চলছে ১২ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়। পারটেক্স ফার্নিচার মেলা উপলক্ষে ১০ থেকে ২০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে। পারটেক্স ফার্নিচার সেলসের সিনিয়র ম্যানেজার রুবিনা ইয়াসমিন বলেন, আমাদের পণ্যে এবার নতুনত্ব রয়েছে। ক্রেতারা পছন্দ করছে। মেলায় ক্রেতারা আসেন বিশেষ ছাড়ে ভালো পণ্য কেনার জন্য। তাই আমরা মেলায় বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা রেখেছি। অন্যদিকে হাই-টেক ফার্নিচারে নির্ধারিত মূল্যের ওপর ৫ থেকে ১৫ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থা রেখেছে এবং ব্রাদার্স ফার্নিচার সব পণ্যে ৫ থেকে ১৫ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে। মেলা চলাকালীন প্রতিষ্ঠানগুলোর শো-রুম থেকেও একই ছাড়ে কিনতে পারবেন বলে জানান বিক্রেতারা।

অন্যদিকে মেলায় অ্যালুমিনিয়াম ও প্লাস্টিকের গৃহস্থালি পণ্যের স্টল ও প্যাভিলিয়নগুলোতে সব পণ্যে ৫ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড় চলছে। গৃহের প্রয়োজনীয় পণ্যগুলো বাদ দিয়ে অন্য স্টলগুলোতে ফ্রি আর প্যাকেজ সুবিধা চলছে। অন্যদিকে মেলায় অ্যালুমিনিয়াম ও প্লাস্টিকের গৃহস্থালি পণ্যের স্টল ও প্যাভিলিয়নগুলোতে সব পণ্যে ৫ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড় চলছে। গৃহের প্রয়োজনীয় পণ্যগুলো বাদ দিয়ে অন্য স্টলগুলোতে ফ্রি আর প্যাকেজ সুবিধা চলছে।

ব্যাপক কমানো হয়েছে ওয়ালটন এলইডি টিভির দাম। একই সঙ্গে আরো উন্নত হয়েছে এলইডি টিভির মান। গ্রাহকদের জন্য নতুন বছরের উপহারস্বরূপ ওয়ালটন মডেলভেদে ১ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ৫ হাজার ৫০০ টাকা পর্যন্ত দাম কমিয়েছে। মূল্যহ্রাসের ফলে ক্ষেত্রবিশেষে সিআরটি টিভির দামে পাওয়া যাচ্ছে এলইডি টিভি। দেশব্যাপী দাম কমানোর পাশাপাশি ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে এলইডি টিভিতে সর্বোচ্চ সাত শতাংশ ছাড় পাওয়া যাচ্ছে।

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় রান্না করা দুই প্যাকেট চিকেন বিরিয়ানি কিনলে এক প্যাকেট ফ্রি দিচ্ছে প্রাণ। আর তিন প্যাকেট চিকেন ভুনা খিচুড়ি কিনলে ফ্রি দেয়া হচ্ছে এক প্যাকেট। বাণিজ্য মেলায় অবস্থিত প্রাণ গুঁড়া মসলার প্রিমিয়ার স্টল থেকে আগ্রহী ক্রেতারা এ অফার নিতে পারবেন।

বাণিজ্যমেলায় প্রধান গেট ধরে প্রবেশ করে হাতের বাম দিকে গেলে ক্রেতারা খুঁজে পাবেন ওয়াকার ব্রান্ডের প্যাভিলিয়নটি।
মিনি প্যাভিলিয়নে লেডিস, জেন্টস এবং কিডস এই তিন ক্যাটাগরিতে ছয়শোর বেশি আকর্ষণীয় ডিজাইনের জুতা প্রদর্শিত হচ্ছে বলে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

পণ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ডিজাইনের ক্যাজুয়াল সু, স্পোর্টস সু, কিডস সু এবং সব বয়সীদের জন্য বিভিন্ন ডিজাইনের জুতা। পাশাপাশি রয়েছে ব্যাগ, মানিব্যাগ, বেল্টসহ নানা ধরনের ফ্যাশনপণ্য।

ওয়াকার ফুটওয়্যারের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা কামরুল হাসান বলেন, ‘মেলায় শতাধিক নতুন ডিজাইনের পণ্য প্রদর্শন করছে ওয়াকার। ক্রেতাদের কাছ থেকে খুব ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। নিজস্ব দক্ষ ডিজাইনারের মাধ্যমে নারী-পুরুষ ও শিশুদের রুচি অনুযায়ী নতুন নতুন ডিজাইনের পণ্য উপহার দিচ্ছি আমরা।’ সব ধরনের ক্রেতাদের কথা বিবেচনায় রেখে বাণিজ্য মেলা উপলক্ষে সর্বনিম্ন ৩১৫ টাকায় জুতা বিক্রি করছে ওয়াকার ফুটওয়্যার। এ ছাড়া ৩০০০ টাকার পণ্য কিনলে ক্রেতারা পাচ্ছেন আকর্ষণীয় উপহার। গতকাল মেলায় ঘুরে দেখা গেছে মূল্য ছাড়ে প্রতিযোগিতায় দর্শক, ক্রেতারা খুুবই খুশি। মিরপুর থেকে সপরিবারে মেলায় এসেছে মাসুদ কামাল, তিনি বেশকিছু পণ্য কেনা কেনাকাটা করেছেন। যা অন্যসময় কিনলে খরচ বেশি হতো। মেলা উপলক্ষ্যে কিছুটা খরচ কমাতে খুশি তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ১০ জনের একটি গ্রুপ মেলায় ঘুরতে এসেছে। ইন্ডিয়ান ফুডওয়্যার, ইরানি প্যাভিলিয়ন থেকে তারা জুতো, কসমেটিকস, বোরকা, জায়নামাজ, পাথর কিনলেন বিশেষ ছাড়ে। এই ছাড়ের প্রতিযোগিতায় বিক্রেতারাও যেমন লাভবান হচ্ছে তেমনি আমরাও সাধ্যের মধ্যে আমাদের পছন্দের পণ্য কিনতে পারছে।

একটু পর পর মাইকে মূল্য ছাড়ের ঘোষণায় বিরক্তিও প্রকাশ করেছেন অনেক ক্রেতা। তারপরও তারা মেলাটাকে উপভোগ করছেন। প্রতিষ্ঠানগুলোর এই মূল্য হ্রাসকে স্বাগত জানিয়েছেন মেলায় আসা ক্রেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *