Home » প্রথম পাতা » রূপগঞ্জ ভ’মি অফিসে অনিয়মই যেন নিয়ম

বিআরটিসির বাসভাড়া কমানোর দাবি

১৫ নভেম্বর, ২০২১ | ৯:১৩ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 66 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে চলাচলকারী বিআরটিসি বাসের ভাড়া ৫ টাকা কমিয়ে ৩৫ টাকা করার দাবি জানিয়েছেন যাত্রীরা। দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির প্রেক্ষাপটে সাধারণ মানুষের কথা বিবেচনা করে বিআরটিসি বাসের ভাড়া ৩৫ টাকা করার দাবি জানিয়েছেন সাধারণ মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বিআরটিসি বাসভাড়া কমানোর জোরালো দাবি উঠেছে। জানা গেছে, বিশ^বাজারে জ্বালানি তেলের বর্ধিত দামের সাথে সমন্বয়ের কথা বলে সরকার গত ৩ নভেম্বর রাতে দেশে ডিজেল ও কেরোসিন তেলের দাম বৃদ্ধির এক প্রজ্ঞাপন জারি করে এবং সে রাত থেকেই তা কার্যকরী করে চলেছে। আগে ডিজেলের দাম ৬৫ টাকা থাকলেও সেটা ৮০ টাকায় উন্নিত করা হয়েছে, যা বৃদ্ধির হার ২৩ শতাংশ। এই সুযোগে নারায়ণগঞ্জের কতিপয় বাস মালিক পরদিন ভোর থেকেই ঢাকা-নারায়ণগঞ্জের বাস ভাড়া ৩৬ টাকাকে ৫০ টাকায় উন্নীত করে। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)’র কোনরকম নির্দেশনা ছাড়া এ ভাবে গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি সম্পূর্ণ আইন ও নিয়ম বিরুদ্ধ। জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ৫ নভেম্বর থেকে সারা দেশে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়। ধর্মঘটের প্রথম দিনে বিআরটিসি বাস চলাচল করলেও পরবর্তীতে পরিবহন মাফিয়াদের সিন্ডিকেটের কারণে বাস চলাচল বন্ধ করতে বাধ্য হয় বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ। তবে সেসময়ও তারা ৩০ টাকা ভাড়া আদায় করেছে। পরে সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে যাত্রী বহনকারী বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি) দ্বি-তলা বিশিষ্ট বাসের ভাড়া ১০ টাকা করে বৃদ্ধি করে। আগে তারা টিকিট প্রতি ৩০ টাকা করে ভাড়া আদায় করতো। এখন তারা সেটা ১০ টাকা বাড়িয়ে ৪০ টাকা করে আদায় করছেন। ৭ নভেম্বর ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুট সহ নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন রুটে সঠিক দূরত্ব নিরুপণ করে বিআরটিএর প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী নির্ধারিত টাকায় ভাড়া নির্ধরণ ও জ্বালানি তেলের বর্ধিত দাম প্রত্যাহারের দাবিতে যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ ফোরামের এক প্রতিনিধি দল নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহর সাথে দেখা করে স্মারকলিপি প্রদান করেন। এর কয়েকদিন পরে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বন্ধন, উৎসব ও হিমাচল পরিবহনের বাস ভাড়া শুরুতে ৫০ টাকা করলেও পরবর্তীতে সেটা ৪৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়। এদিকে অন্যান্য পরিবহনের বর্ধিত ভাড়া ৫ টাকা কমলেও বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ ঠিকই বর্ধিত বাসভাড়া ১০ টাকা আদায় করছে। যে কারণে দাবি উঠেছে বিআরটিসি বাসভাড়া ৫ টাকা কমানোর। এ বিষয়ে বিআরটিসি বাসের নিয়মিত যাত্রী জাকির হোসেন সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে উল্লেখ্য করেন, দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ্বগতির চলমান সময়ে আমাদের সাধারণ মানুষের জীবন কার্যক্রম পরিচালনায় অনেকটাই স্বস্তির  জায়গা বিআরটিসি। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে প্রতিনিয়ত শত শত মানুষ জীবন ও জীবিকার টানে পদচারণা করে, বিআরটিসিতে পাশাপাশি অনেক ছাত্র ছাত্রীরাও। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে বিআরটিসির বর্তমান ভাড়া ৩৫ টাকা রাখার জন্য আমাদের সাধারণ মানুষের পক্ষ থেকে বিআরটিসি নারায়ণগঞ্জ কর্তৃপক্ষকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা গেল। ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আফসানা আক্তার বলেন, আমি ঢাকার একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি। নারায়ণগঞ্জ থেকে নারায়ণগঞ্জ রুটে যাতায়াতকারী অন্যান্য বাসগুলোতে বেশি ভাড়ার কারণে সবসময় বিআরটিসির বাস দিয়েই যাতায়াত করতাম। কিন্তু বিআরটিসি ১০ টাকা করে বেশি ভাড়া নিচ্ছে। অন্যান্য বাসের মতো বিআরটিসি বাসের ভাড়াও যদি বেশী নেয়া হয় তাহলে আর পার্থক্য রইলো কোথায়? সরকারি বেসরকারি সকলেই সমান হয়ে গেলো। আমরা যারা সাধারণ মানুষ তাদের কথা কে চিন্তা করবে?  আমি দাবি জানাচ্ছি বিআরটিসি বাসের ভাড়া ৫ টাকা কমিয়ে ৩৫ টাকা করা হোক। কাজী মাহফুজুর রহমান জানান, তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি কোম্পানীতে চাকুরী করেন। বন্ধন ও উৎসবে বেশি ভাড়ার কারণে তিনি সেই বাস দিয়ে যাতায়াত করেন না। বিআরটিসির ভাড়া কম ছিল। তাই তিনি সবসময় বিআরটিসির বাস দিয়েই যাতায়াত করতেন। কিন্তু বিআরটিসি বাসও ১০ টাকা করে অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে। সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে সরকারি গণপরিবহন বিআরটিসি বাসের ভাড়াও ৫ টাকা কমানো উচিৎ। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ বাস ডিপোর ম্যানেজার মো. শাহরিয়ার বুলবুল বলেন, প্রজ্ঞাপন জারি হওয়ার পরই আমরা ভাড়া বাড়িয়েছি। সরকার নির্ধারিত আমাদের ভাড়া হয় ৪৬ টাকা ৫০ পয়সা। সেখানে আমরা ৪০ টাকা করে ভাড়া আদায় করছি।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *