আজ: সোমবার | ৬ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২২শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৫ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | রাত ১০:৫৮

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

বিএনপির নেতৃত্বে আসছে কারা?

ডান্ডিবার্তা | ৩০ জুন, ২০২০ | ৬:০৯

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
করোনায় ভাটা পড়েছে নারায়ণগঞ্জের রাজীতিতে। বর্তমানে করোনা নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করছেন নারায়ণগঞ্জের সাধারন মানুষ এবং স্থানীয় রাজনীতিবীদ। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর পরই জেলা ও মহানগর বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষনা দেয়া হবে। এ খবরে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির রাজনীতিতে চাউর হওয়ার পর পরই বিএনপির নেতৃবৃন্দের মাঝে তৎপরতা দেখা গেছে। জেলা ও মহানগর কমিটিতে স্থান পেতে জোড় লবিং তদবির চালানো শুরু করে দিয়েছে অনেকে। গত ২১ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি বিলুপ্তির পর সর্বত্রই আলোচনায় কারা আসছেন জেলা বিএনপির নেতৃত্বে। যেখানে সভাপতি হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন বেশকজন প্রবীণ নেতা। আবার সেক্রেটারি পদে অধিষ্ট হতে ইচ্ছুক তরুণ প্রজন্মের বেশকজন। তবে আহ্বায়ক কমিটি হবে নাকি আংশিক কমিটি হবে সেটার উপর নির্ভর করছে কমিটি কেমন হবে। তবে কেউ আহ্বায়ক কিংবা যুগ্ম আহ্বায়ক বা সদস্য সচিব হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করছেন না। সবাই চাচ্ছেন মুল নেতৃত্বে আসতে যেখানে সভাপতি ও সেক্রেটারি হয়ে জেলা বিএনপির নেতৃত্ব দিতে। এদিকে হঠাৎ করে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির রাজনীতিতে মেরুকরণের ফলে সাধারণ নেতাকর্মীদের মধ্যে এই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে যে কে আসছেন নেতৃত্বে। নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি গঠন নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে চলছে নানা আলোচনা। নেতৃত্বে বর্তমান নেতারাই থাকছেন নাকি নতুন কেউ আসছেন এ নিয়ে চলছে জোর গুঞ্জন, বিশ্লেষণ ও সমীকরণ। তৃণমূল নেতাকর্মীদের অনেকেই বলছেন পরিবর্তন আসছে। কেমন পরিবর্তন তারা আশা করছেন? উত্তরে নেতারা বলছেন, সমালোচনার উর্ধ্বে থাকা নেতাদের এবারের নেতৃত্বে চান তারা। এক্ষেত্রে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলে- নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, সোনারগাঁ থানা বিএনপির সেক্রেটারি আজহারুল ইসলাম মান্নান, সাবেক এমপি মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি মাহমুদুর রহমান সুমন, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সেক্রেটারি অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুকুল ইসলাম রাজীব, কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভূইয়া, জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি মাহফুজুর রহমান হুমায়ুন, নাসির উদ্দীন ও জেলা যুবদলের সাবেক মোশারফ হোসেনের নাম। নেতাকর্মীদের আলোচনায় থাকা সভাপতি পদে একাধিক নেতাকে ফিট মনে হলেও সাধারণ সম্পাদক পদে তরুণ নেতৃত্ব চায় তৃণমূল বিএনপি। তবে এক্ষেত্রে খানিকটা বাড়তি সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন তৃণমূল থেকে উঠে আসা কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক অর্থবিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান সুমন। ছাত্র রাজনীতির হাতে থেকে যুব রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্ব পালন করে আসা এ তরুণ রাজনীতিবিদকে নিয়ে সাধারণ সম্পাদক পদে ভাবছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। যদিও সুমন দাবি করেন বিএনপির হাইকমান্ড তারুণ্যের অহংকার তারেক রহমান যদি চান তাহলে এ পদে দায়িত্ব নিতে তার কোন সমস্যা নাই। নারায়ণগঞ্জের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা সুমনকে নিয়ে বেশ আশাবাদী। বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে তরুণ ও স্বচ্ছ ইমেজের নেতা হিসেবে সুমনের কথা ভাবছেন তারা। তারা বলেন, দীর্ঘ রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে নেই তার কোন প্রকার বিতর্কিত কর্মকান্ড। ক্লিন ইমেজধারী তরুণ নেতা হিসেবে তার সুবিশাল খ্যাতি আছে। বিএনপির রাজনীতিতে তিনি সৎ ও মেধাবী রাজনীতিবিদ হিসেবে পরিচিত। আর তাই আদর্শবান পলিটিশিয়ানদের সাপোর্ট পাচ্ছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *