Home » শেষের পাতা » অধিগ্রহণ হচ্ছে নদীর জমি

বিএনপি প্রতিরোধে প্রস্তুত আ’লীগ!

০৫ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১২:১৪ অপরাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 57 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট দ্বাদশ নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই আক্রমনাত্বক হয়ে উঠে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। বিভিন্ন দাবি ধাওয়া নিয়ে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক বিরোধী দল রাজনৈতিক আন্দোলনের প্রস্তুতি গ্রহণ করছে এবং সেই রাজনৈতিক আন্দোলন অনেকটাই দৃশ্যমান। বিশেষ করে গত কয়েক দিন ধরে বিএনপিকে অনেকটা আক্রমণাত্মক এবং সহিংস অবস্থায় দেখা গেছে। বিএনপি যেন গায়ে পড়ে ঝগড়া করার মতো জেলার বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাস, সহিংসতার উস্কানি দিচ্ছে। বিএনপির অবস্থান সুস্পষ্ট। তারা মনে করছে যে, এখনই রাজপথে আন্দোলন করার সময়। আর এ কারণেই জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ের বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে রাজপথে আন্দোলন করার জন্য নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে বলেও সূত্রে জানা যায়। জেলা বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক সাংসদ গিয়াস উদ্দিন বলেছেন যে, শুধু মার খেলে হবেনা, মার দিতে হবে। একটি রাজনৈতিক দলের এরকম আক্রমণাত্মক অবস্থান নিঃসন্দেহে রাজনীতির উত্তাপেরই পূর্বাভাস। কিন্তু আওয়ামী লীগ এই অবস্থায় চুপচাপ হাত-পা গুটিয়ে বসে থাকবে না। বিশেষ করে অন্যান্য সময়গুলোতে যেভাবে আওয়ামীলীগ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর নির্ভরশীল ছিল তেমনটিও থাকতে চায় না। বরং আওয়ামীলীগের নীতিনির্ধারক সূত্রগুলো বলছে যে, আওয়ামী লীগ বিএনপি-জামায়াত এবং অন্যান্য বিরোধী দলকে রাজপথেই মোকাবেলা করতে চায়। আর রাজপথে মোকাবেলার জন্য আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক প্রস্তুতিও গ্রহণ করছে। জেলা আওয়ামীলীগের বিভিন্ন সূত্রগুলো বলছে যে, আন্দোলনের নামে বিএনপির নেতা কর্মীরা যে সমস্ত কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে তা ভাবিয়ে তুলেছে। সংবিধানিক ভাবে বিএনপি আন্দোলন করার অধিকার রয়েছে এবংতা করবেও। এক্ষেত্রে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ নেই। কিন্তু গত কয়েকদিনে বিএনপি আন্দোলনের নামে সন্ত্রাস এবং নাশকতা চালিয়ে আসছেন। এমনকি দলীয় কার্য্যালয় ভাংচুরসহ নাশকতামূলক কর্মকান্ডের মাধ্যমে শান্ত নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত করার চেষ্টা চালিয়ে আসছে। বিএনপির আন্দোলনের নামের নাশকতা প্রতিরোধে প্রস্তু না’গঞ্জ আওয়ামীলীগ। আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ জেলাব্যাপি রাজপথে অবস্থানের মাধ্যমে বিএনপির নাশকতা প্রতিরোধ করা হবে বলেও জানান নেতৃবৃন্দ। এমনকি বিএনপি-জামায়াতের অপতৎপরতা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক ভাবে রুখতে পারে সেদিকে নজর দেয়া হয়েছে। জেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারা ইতিমধ্যে অঙ্গ সহযোগী সংগঠনগুলোকে নিয়ে বৈঠক শুরু করেছেন এবং বিরোধী আন্দোলন কিভাবে মোকাবেলা করতে হবে এবং রাজনৈতিক কর্মসূচি কিভাবে প্রণয়ন করতে হবে সে ব্যাপারেও দিকনির্দেশনা দেয়া হয়েছে। জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আঃ হাই বলেন, সামনের দিনগুলোতে আওয়ামীলীগকে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে মুখর দেখা যাবে। বিশেষ করে নির্বাচনের আগ মুহুর্তে পুরোটাই আওয়ামী লীগ এবং তার অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনকে বিভিন্ন রকম কর্মসূচির মধ্যে পাওয়া যাবে বলেও তারা নিশ্চিত করেছেন।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *