আজ: বৃহস্পতিবার | ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৫ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি | সকাল ৮:২১

সংবাদ দেখার জন্য ধন্যবাদ

ভিন্নরূপে ঈদের আগের এক মহাসড়ক

২৩ মে, ২০২০ | ১২:১৬ পূর্বাহ্ন | ডান্ডিবার্তা | 22 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
ঈদ মানেই পরিবারের সবার সঙ্গে আনন্দ ভাগাভাগি করতে গ্রামের বাড়ি ফেরা। নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা মানুষের চাপ আর মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট। প্রতিবছর ঈদের তিনদন আগে থেকে এ যানজটের মাত্রা ছাড়িয়ে যায় সহনীয় পর্যায়কে। সকাল থেকে রাত অব্দি অনেক যানবাহনে বসে থাকতে হয় যাত্রীদের। তবে এবার সেই চিরচেনা দৃশ্য নেই মহাসড়কে। গতকাল শুক্রবার ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, কাঁচপুর, সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড়, চিটাগাং রোড মোড়, কাঁচপুর ও মদনপুরের মহাসড়ক ঘুরে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। ঈদের তিনদিন আগে যেখানে দাঁড়ানোর জায়গা হতো না সেখানে পুরো সড়ক এখন ফাঁকা। অলস সময় পার করছেন ট্রাফিক বিভাগের দায়িত্বে থাকা সদস্যরাও। তবে প্রতিটি মহাসড়কেই ঢাকা, নারায়ণগঞ্জের প্রবেশ পথগুলোতে কঠোর অবস্থানে রয়েছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। মহাসড়কের প্রবেশ পথে বসানো হয়েছে পুলিশের ‘নো এন্ট্রি’ চেকপোস্টও। তবে ব্যক্তিগত যানবাহন ব্যবহার করে বাড়ি ফিরতে কোনো বাধা নেই। ভাড়া করা গাড়ি ব্যবহার করে কিংবা দলবেধে গ্রামে ফিরতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। জানতে চাইলে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোজাফফর হোসেন জানান, এবার চাপ কম, মহাসড়কে কোনো যানজট নেই। একেবারেই স্বাভাবিক রয়েছে সবকিছু। তিনি জানান, পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত আমরা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের গাড়ি ছাড়া কোনো যানবাহন এখানে প্রবেশ করতে দিচ্ছি না। মহাসড়কে একেবারেই কঠোর অবস্থান রয়েছে। এ ছাড়া কাঁচপুর এবং মদনপুরে আমাদের বিশেষ ‘নো এন্ট্রি’ চেকপোস্টেও চলছে কার্যক্রম। তবে, এখানও নানা কৌশলে মানুষ ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ ত্যাগ করতে চাইছেন। আমরা কোনোভাবেই সেটি অ্যালাউ (সম্মতি) করছি না। শুধুমাত্র সরকারি নির্দেশ মোতাবেক ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করে গ্রামে ফিরতে পারছেন ইচ্ছুকরা। জেলা ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক মোল্ল্যা তাসনিম হোসেন জানান, মহাসড়ক একেবারেই ফাঁকা, তবে আমরা ব্যক্তিগত গাড়িতে করে বাড়ি ফেরা মানুষকে বিকেলের পর থেকে বাধা দিচ্ছি না। ব্যক্তিগত গাড়ি ছাড়া ভাড়া করা গাড়ি কিংবা কোনো পরিবহনে করে বাড়ি ফিরতে পারবেন না কেউ।



Comment Heare

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Top