Home » শেষের পাতা » বন্দরে ২৭টি পূজামন্ডপে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

ভোটার আকর্ষনে কৌশলী প্রার্থীরা

০১ জানুয়ারি, ২০২২ | ৯:০৭ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 88 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে নির্বাচনী আমেজ ততই বাড়ছে। গত ২৮ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ প্রতীক দেয়ার পর নির্বাচনী প্রচারণা করলেও গতকাল শুক্রবার ছুটির দিন থাকায় প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত ছিলেন। ছুটির দিনে কর্মজীবী মানুষ বাসায় থাকায় কাউন্সিলর প্রার্থীরা এদিন বিশাল বিশাল শো-ডাউন করে নিজেদের শক্তির জানান দেয়ার চেষ্টা করেছেন। একই সাথে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষনে কড়া কড়া বক্তব্যও দিয়েছেন। এদিকে, নির্বাচনকে সামনে রেখে সকলের দৃষ্টি নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সেলিনা হায়াত আইভী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকারের দিকে। তাদের নিয়ে আলোচনা হচ্ছে জাতীয় রাজনীতিতেও। নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ইতিমধ্যে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও যুব মহিলালীগের কেন্দ্রীয় নেতারা নারায়ণগঞ্জে সভা করেছেন। স্থানীয় নেতাকর্মীদের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। এছাড়াও যারা নৌকার প্রার্থীর পক্ষে মাঠে নামবে না তাদেরকে হুশিয়ারী দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। অপরদিকে, তৈমূর আলম খন্দকারের পক্ষে কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতারা মাঠে না নামলেও স্থানীয় নেতারা এক্যবদ্ধ হয়ে হাতি প্রতীকের বিজয় নিশ্চিতে মাঠে কাজ করছেন।  প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত প্রচারণা চালাচ্ছেন। এর আগে নির্বাচনী মনোনয়ন বৈধ হওয়ার পর বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে জনসাধারণের দোয়া সমর্থন চেয়েছেন। প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই প্রকাশ্যে ভোট চাইছেন। প্রতিদিনই নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর দূর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে হাতি প্রতীক নিয়ে বিজয়ের স্বপ্ন দেখছেন তৈমূর। মূলত আইভী দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকায় স্বেচ্ছাবারিতা, সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়ণমূলক কাজ একক ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে দেয়া ও মসজিদ-মন্দিরের জায়গা দখলের অভিযোগ থাকায় কিছু পিঠিয়ে রয়েছে। তৈমূর আলম খন্দকারের নির্বাচনী প্রচারণায় সকলের মাঝেই ব্যাপক আগ্রহ পরিলক্ষিত হয়। ছোট ছোট কোমলমতি শিশু ও কিশোর কিশোরীরাও রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকেন তৈমূরকে এক নজর দেখার জন্য। একে অপরের কানে কানে ফিস ফিস করে বলতে থাকেন এই দ্যাখ তৈমূর আসছে। উন্নয়ন কাজ অব্যাহত রাখার প্রতয়ে আইভী আবারও ছুটে চলেন সকল ব্যথা বেদনা বুকে নিয়েই। খোঁজ নেন মানুষের প্রত্যশার। অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে জনগনের সহযোগিতা চান। ছোট ছোট বাকি থাকা কাজগুলো নির্বাচিত হয়ে দ্রুত শেষ করার আশ্বাসও দিয়েছেন আইভী। নগরবাসীর দাবি না থাকলেও নিজ থেকেই এলাকার মানুষের চাহিদা বুঝে খেলার মাঠ ও আধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করার জন্য আশ্বাস দিয়েছেন। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাওয়ার পাশাপাশি নৌকা ও হাতি প্রতীকের দুই প্রার্থী নিজেদের বিজয় নিশ্চিত করতে বিভিন্ন কৌশলও অবলম্বন করছেন। মেয়র প্রার্থীর পাশাপাশি কাউন্সিলর প্রার্থীরাও কৌশল অবলম্বনে পিছিয়ে নেই। ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষনে কাউন্সিলর প্রার্থীরা ব্যস্ত সময় পাড় করছেন। গতকাল শুক্রবার ছুটির দিনে বিশাল বিশাল শো-ডাউনসহ জুম্মার নামাজের সময় নিজ নিজ এলাকার মসজিদে বক্তব্য দিয়ে মুসুল্লিাদের মন জয় করার চেষ্টা করেছেন কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *