আজ: রবিবার | ৫ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৩ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | রাত ৩:২৯

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

মহানুভবতার দৃষ্টান্তে এসপি হারুন

ডান্ডিবার্তা | ১৪ আগস্ট, ২০১৯ | ১২:২৩

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জে যোগদানের পর থেকেই সাধারণ মানুষের পাশে থেকে তাদের  আস্থার প্রতীক হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ। জেলার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাপক উন্নতিসহ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে মহানুভবতার দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করছেন তিনি। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আরো এক মহানুভবতার দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করলেন নারায়নগ্ঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ। ঘটনাটি ছিল নিষ্ঠুরতার এক জঘন্য পর্ব। ঘটনাস্থল নারায়নগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সাইলোগেইট সংলগ্ন। সম্প্রতি ছেলে ধরা বলে অপপ্রচারের শিকার গণপিটুনিতে নিহত প্রতিবন্ধি সিরাজুল ইসলামের বাবা আঃ রশিদ (৬৫) ঈদের দিন বিভিন্ন বাসা-বাড়ি থেকে কোরবানির গোশত সংগ্রহ করেছিল। নিজের খাওয়ার অংশটুকু রেখে বাকি গোশতগুলো বিক্রি করে দেয় কিছু টাকা পাওয়ার আশায়। সেই গোশত কিনে নেয় স্থানীয় কলাবাগ এলাকার নরপশু ফজল করিম (৪৮)।ফজল করিম গোশতের টাকা না দেয়ার অজুহাতে  সন্ধ্যা ৭টায় সাইলো গেইট ৪ তলার সামনে মনিরের চায়ের দোকানে রশিদ মিয়াকে ডেকে নেয়। সেখানে তার সাথে খারাপ আচরন করে এবং গোশত ভাল নয় বলে চড়থাপ্পর মেরে রশিদ মিয়ার পকেট থেকে আরো ৪শ’ ৫০ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এক কান দুই কান করে ঘটনার খবরটি চলে যায় পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদের কানে তিনি ঘটনা অবগত হয়ে তাৎক্ষনিক নির্দেশ দেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসিকে ব্যবস্থা নিতে। এ ছাড়াও ক্ষতিগ্রস্থ নির্যাতিত রশিদ মিয়ার হাতে নগদ ২ হাজার ৫শ’ টাকা অনুদান হিসাবে তুলে দেন। পরে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে সাথে সাথে নরপশু ফজল করিমকে গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেন। মামলাটি দায়ের করেন গণপিটুনিতে নিহত সিরাজুল ইসলামের ভাই ও নির্যাতিত রশিদ মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় আবারো প্রশংসিত হন নারায়নগঞ্জের নিরীহ জনতার আস্থার প্রতীক হয়ে উঠা এসপি হারুন অর রশীদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *