Home » প্রথম পাতা » পদ্মা সেতু জাতির আরেক বিজয়

মেলা বসাতে অনুমতি লাগেনা!

১৩ নভেম্বর, ২০২১ | ৮:৪২ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 68 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

সিদ্ধিরগঞ্জের মুবিজববাগ এলাকায় মেলার নামে মিলেছে মাদকের হাট। জেলা প্রশসকের অনুমতি ছাড়াই থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে মানিক নামে এক ব্যক্তি এই মেলা বসিয়েছে। মেলায় অশ্লীলতা হইহুল্লায় আশপাশের বাসিন্দারা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমানের কাছের লোক পরিচয় দিয়ে থানার বিভিন্ন এলাকায় মেলা বসায় মানিক। মেলায় হরেক রকম দোকান পাটের পাশাপাশি নৌকা ও নাগর দোলা, চরকি বসানো হয়। নৌকা দোলায় ৩০ টাকা, নাগর দোলায় ২০ টাকা ও চরকি ২০ টাকা করে টিকিটের মূল্য নেওয়া হয়। পরিসংখ্যান মতে বিনোদন মূলক এই তিনটি থেকে দৈনিক কমপক্ষে ৬০/৭০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে মেলা কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও হরেক রকম দোকান থেকে আদায় করা হয় দৈনিক ৪০০ টাকা করে। মেলায় দেয়া হয় অবৈধভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ। সব মিলিয়ে দৈনিক লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে মেলার লোকজন। এছাড়াও মেলা মাদকসেবী ও কিশোরগ্যাংদের উৎপাত লক্ষনীয়। ফলে মেলার পাশে জমে উঠে মাদক বেচাকেনার হাট। কিশোরগ্যাং ও মাদক সেবীরা মেলায় আগন্ত কিশোরীদের করে উত্ত্যক্ত।  সূত্র জানায়, বড় খালি জমির মালিককে হাত করে স্থানীয় প্রভাবশালী কোন ব্যক্তিকে ম্যানেজ করে মানিক মেলা বসায়। ম্যানেজ করা হয় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশকেও।  অভিযোগ জানা গেছে, বিকেল থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত চলে মেলা। ফলে মেলার হইহুল্লা, অশ্লীলতা, মাইকের আওয়াজে আশপাশের লোকজন অতিষ্ট হয়ে যায়। ব্যাঘাত ঘটে স্কুল কলেজ পড়ৃয়া শিক্ষার্থীদের। সন্তানের আবদার পুরন করতে অনিচ্ছা সত্তেও অনেক অভিভাবক বাধ্য হয়ে মেলায় গিয়ে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, করোনা মহামারির কারণে সর্বশেষ লকডাউনের পর মানিক মেলা বসায় নাসিক ২ নং ওয়ার্ডের মিজমিজি সাহেবপাড়ায়, পরে ৩ নং ওয়ার্ডের আদর্শনগর। বর্তমানে বসিয়েছে ১ নং ওয়ার্ডের মজিববাগ। কোন মেলা বসানোর জন্যই মানিক জেলা প্রশাসকের অনুমতি নেয়নি।  ৩ নং ওয়ার্ডে দীর্ঘদিন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসির নাম ভাঙ্গিয়ে মেলা চালায় মানিক। এ সময় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমানকে একাধিকবার অভিযোগ করা হলে তিনি পুলিশ পাঠিয়ে মেলা বন্ধ করে দেন। পুলিশ যাওয়ার পর ফের আবার মেলা চালায় মানিক।  এ ঘটনায় পুলিশের চেয়ে বড় মানিক না পুলিশ রহস্যজনক আচরণ করে মেলা চালানো সুযোগ দিয়ে যাচ্ছে এলাকাবাসীর কাছে বিষয়টি প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিলো।  এদিকে এ বিষয়ে মানিক বলেন, মেলা বসাতে আমার জেলা প্রশাসকের অনুমতি লাগেনা। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি আমার কাছের লোক। তার সাথে কথা বলেই মেলা বসাই।   সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমানের সরকারি মোবাইল নাম্বারে ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *