আজ: শুক্রবার | ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | দুপুর ২:৩৫

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

রাজনীতি ভুলে খোরশেদের পাশে শামীম ওসমান

ডান্ডিবার্তা | ০১ জুন, ২০২০ | ২:৩৪

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আলোচিত কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ও স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই হাসপাতালে তাদের ভর্তির ব্যবস্থা করেছেন ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ আসনের এমপি শামীম ওসমান। মানবতার ফেরিওয়ালা উপাধি পাওয়া কাউন্সিলর খোরশেদ নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সভাপতি। করোনার সঙ্কটে রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে খোরশেদ ও তার স্ত্রীর পাশে দাঁড়ালেন শামীম ওসমান। বর্তমানে খোরশেদের স্ত্রীকে অক্সিজেন সাপোর্টে রাখা হয়েছে। গতকাল রোববার দুপুরে কাঁচপুরের সাজেদা হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য স্বামী-স্ত্রীকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনা প্রথমে করোনায় আক্রান্ত হন। স্ত্রীর পর খোরশেদও করোনায় আক্রান্ত হন। গত শনিবার রাত থেকে খোরশেদের স্ত্রীর অবস্থার অবনতি হলে কাঁচপুরের সাজেদা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। স্ত্রী লুনার জন্য আইসিইউ সাপোর্ট পেতে শনিবার রাত থেকে রোববার দুপুর পর্যন্ত চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন খোরশেদ। সাজেদা হাসপাতালে থাকা অবস্থায় তাদের খোঁজখবর রেখেছেন এমপি শামীম ওসমান। পরে লুনার অবস্থার অবনতি হলে শামীম ওসমানের সহায়তায় স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একই সঙ্গে খোরশেদকেও সেখানে ভর্তি করা হয়। এ বিষয়ে কাউন্সিলর খোরশেদ বলেন, আমি এবং আমার স্ত্রীকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এখানে আমার স্ত্রীকে আইসিইউ সাপোর্ট দেয়া হয়েছে। এখানে ভর্তির জন্য এমপি শামীম ওসমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই আমি। এমপির সহযোগিতায় স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি আমরা। তাই বলতে চাই; করোনার সময়ে রাজনীতি নয়। এখন মানবতা প্রদর্শনের সময়। এমপি শামীম ওসমান আমার স্ত্রীর অবস্থা সঙ্কটাপন্ন শুনে রোববার দুপুরে যোগাযোগ করে স্কয়ার হাসপাতালে আমাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন। ফোন করে এমপি বলেছেন খোরশেদ তুমি দ্রুত স্ত্রীকে নিয়ে স্কয়ার হাসপাতালে চলে যাও। এখন রাজনীতির সময় নয়; একে-অপরের পাশে দাঁড়ানোর সময়। বিপদে তুমি যেভাবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছো; আমিও তোমার পাশে দাঁড়িয়েছি। তোমার এলাকার জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমারও দায়িত্ব তোমার পাশে দাঁড়ানো। কাউন্সিলর খোরশেদ বলেন, আমি বিএনপির রাজনীতি করি। শামীম ওসমান আওয়ামী লীগের এমপি। এখানে কে কোন দলে করে তা দেখার বিষয় নয়। কার প্রতি কে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিল, কে কার বিপদে পাশে দাঁড়াল; এখন তা দেখার বিষয়। এ বিষয়ে এমপি শামীম ওসমান বলেন, আমি সবার আগে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আল্লাহর। পরে বলব; প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ ছিল কে কোন দল করে তা দেখার সময় এখন নয়। করোনায় মানবতার সেবা পৌঁছে দিতে হবে সবার ঘরে। খোরশেদ কোন দল করে এটি কোনো বিষয় নয়। খোরশেদ মানুষের সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন। মানুষের সেবা করতে গিয়ে আজ তার স্ত্রীর অবস্থা ভালো না। এজন্য আমি তার বিপদে পাশে দাঁড়িয়েছি। এটা আমার এবং সবার দায়িত্ব। শামীম ওসমান বলেন, খোরশেদের স্ত্রীর উন্নত চিকিৎসার জন্য স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করেছি। শুধু খোরশেদ বা তার স্ত্রী নয়, এর আগেও স্কয়ার হাসপাতালে অনেক সঙ্কটাপন্ন রোগীকে ভর্তি করেছি। স্কয়ার হাসপাতালের মালিক অঞ্জন চৌধুরীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। হাসপাতালটি করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের সেবা দিয়ে যাচ্ছে। অন্য রোগীদের এই হাসপাতালে পাঠিয়ে আমি সহযোগিতা পেয়েছি তাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *