আজ: শনিবার | ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২রা সফর, ১৪৪২ হিজরি | রাত ৯:৪১

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

রূপগঞ্জে লকডাউনে মাদক ব্যবসায়ীরা সক্রিয়

ডান্ডিবার্তা | ১৭ জুলাই, ২০২০ | ১১:০০

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি
করোনা মোকাবেলা ও লকডাউন নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ব্যস্ত থাকার সুযোগে মাদক কারবারিরা সক্রিয় হয়ে ওঠেছে। বাঁধা দেয়ায় এক নারীকে মারধর করে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রকাশ্যে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের ভায়েলা মিয়াবাড়ী এলাকায় মাদক কেনাবেচা ও জুয়ার আড্ডা চলছে। ওই এলাকার মোকলেছের ছেলে সাব্বির (২৬) মাদক ও জুয়ার স্পট নিয়ন্ত্রণ করে। মিয়াবাড়ী পশ্চিমপাড়া আজিজনগর এলাকায় প্রতিনিয়ত বহিরাগত লোকজন জুয়ার আড্ডা বসায়। এখানে প্রকাশ্যে সেবন করা হয় ইয়াবা ও ফেনসিডিল। সাব্বিরের সহযোগি খলিল অনেক ক্ষেত্রে অপরাধজগত দেখবাল করে। এলাকাবাসী জানান, উপজেলার মিয়াবাড়ী এলাকার সেলিম ভুঁইয়ার বাউন্ডারীর ভেতর প্রতিদিন বিকেল ৪টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত জুয়া ও মাদকের জলসা বসায় মাদক কারবারি সাব্বির। প্রতিবাদ করলেই হত্যার হুমকি দেয়া হয়। এলাকার নিরীহ লোকজনকে প্রায়ই মারধর করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে রাখে সাব্বির ও তার সহযোগি খলিল। ভায়েলা মিয়াবাড়ী এলাকার ভুক্তভোগী নাজমা বেগম জানান, সম্প্রতি তার মুদি দোকানে গিয়ে প্রকাশ্যে মাদক সেবন করতে থাকলে বাঁধা দেয়ায় তাকে মারধর করে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় একই এলাকার ব্যবসায়ী লোকমান মিয়াকে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকি দেয়। পরে লোকমান মিয়া বাদি হয়ে রূপগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। কিছুদিন গাঢাকা দিলেও এখন আবার এলাকায় নিরীহ মানুষকে মারধর, বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুরসহ নানা অনিয়ম শুরু করে। বহিরাগত লোকজনের কাছ থেকে টাকা, মোবাইলসেট ছিনিয়ে নিচ্ছে। ব্যবসায়ী লোকমান মিয়া জানান, সাব্বির একজন বখাটে ছেলে। তার অত্যাচারে এলাকার যুবতি নারীরাও নিরাপদ নয়। অবিলম্বে তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা প্রয়োজন। রূপগঞ্জ থানার ওসি মাহামুদুল হাসান জানান, করোনা পরিস্থিতিতে আইনের চোখ ফাঁকি দিয়ে একটি চক্র এলাকায় মাদক কেনাবেচাসহ নানা অপকর্মে লিপ্ত হয়েছে। মাদক কারবারি ও বখাটেদের কোনো ছাড় নেই। এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের গণধোলাই দিয়ে আইনের হাতে তুলে দেয়ার আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *