Home » প্রথম পাতা » গভীর রাতে বোট ক্লাবে কী করেছিলেন পরীমণি?

র্যাব’র অভিযোনে তেল চোর চক্রের ৯ সদস্য গ্রেফতার

০৩ জুন, ২০২১ | ৬:২৬ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 34 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

র‌্যাব-১১ অভিযান চালিয়ে রূপগঞ্জ ও ডেমরা থেকে তেল চোর চক্রের ৯ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো আব্দুল্লাহ (২৫),  মো. রাজু (২৫),  মো. মহিন (১৮), মো. মানিক (৩২), মো. জনি (১৮), মো. জনি (৩২),  মো. মনিরুজ্জামান (৩৬), মো. জামশেদ আলী (২৯) ও মো. মাসুম ভূইয়া @ বাচ্চু (৩২)। ওরা জ¦ালানী তেল চোরাই সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্য। মহাসড়কে চলাচলরত গাড়ীসমূহ রাস্তার পাশে পার্কিং করে গাড়ীর ড্রাইভার ও হেলপার ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় ওই চোরাই সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্যরা বিশেষ কায়দায় মোটর ফিটিং করা পিকআপ ভ্যান ব্যবহার করে অভিনব কৌশলে উক্ত গাড়ীসমূহ হতে তেল চুরি করে। গাড়ীর ড্রাইভার ও হেলপার তেল চুরির বিষয়টি টের পেয়ে গেলে এ সিন্ডিকিটের সদস্যরা দেশীয় অস্ত্র প্রদর্শন করে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের জিম্মি করে এবং জোরপূর্বকভাবে তেল চুরির পাশাপাশি ড্রাইভার ও হেলপার এর নিকট হতে টাকা, মোবাইল ফোনসহ মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেয়। গত মঙ্গলবার রাতে ও গতকাল বুধবার সকালে র‌্যাব-১১’র আভিযানিক দল পৃথক দুটি বিশেষ অভিযান চালিয়ে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ও রাজধানীর ডেমরার  চনপাড়া এলাকা থেকে তাদেও গ্রেফতার করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে চোরাইকৃত ১২৩০ লিটার তেল ও চুরি করার কাজে ব্যবহৃত ৩টি পিকআপ জব্দ করে র‌্যাব সদস্যরা।  দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-১১’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দীন চৌধুরী, পিপিএম এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে রাজধানির ডেমরা চনপাড়া এলাকা থেকে  আব্দুল্লাহ, মো. রাজু, মো মহিন, মো. মানিক, মো. জনি ও মো. জনি (২) কে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের দখল হতে দু’টি ড্রামভর্তি ৫০০ লিটার চোরাই ডিজেল, ৪টি খালি ড্রাম, জ¦ালানী তেল চুরির কাজে ব্যবহৃত বিশেষভাবে মোটর সংযুক্ত করা ৩টি পিকআপ ভ্যান ও চোরাই জ¦ালানী তেল ক্রয়-বিক্রয়ের নগদ ১৪ হাজার ৮০০ টাকা ব্জব্দ করা হয়। পরে গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে অপর এক অভিযানে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ সাওঘাট এলাকা হতে- মো. মনিরুজ্জামান, মো. জামশেদ আলী ও মো. মাসুম ভূইয়া @ বাচ্চুকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের দখল হতে ৭৩০ লিটার চোরাই ডিজেল, চোরাই তেল পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ১টি নসিমন গাড়ী ও চোরাই জ¦ালানী তেল ক্রয়-বিক্রয়ের নগদ ২হাজার ৩শ’ ৩০ টাকা উদ্ধার করা হয়। চুরির পর চোরাই সিন্ডিকেট আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার উদ্দেশ্যে এই তেলের সাথে ভেজাল তেল মিশিয়ে বিভিন্ন ক্ষুদ্র তেল ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করে, যা ব্যবহার করে গাড়ীর ইঞ্জিন ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *