Home » প্রথম পাতা » ওসমান পরিবারের সাথে কোন দ্বন্দ্ব নেই: আইভী

লোক দেখানো মহানগর বিএনপির গণঅনশন

২১ নভেম্বর, ২০২১ | ৩:১১ অপরাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 44 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত বিদেশ প্রেরণের দাবিতে গণ অনশন কর্মসূচি পুলিশের ভয়ে এক ঘণ্টায় সমাপ্ত করেছে নারায়ণগঞ্জের মহানগর বিএনপি নেতাকর্মীরা। মহানগর যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা এতে মনক্ষুন্ন হয়েছেন। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল শনিবার সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির উদ্যোগে ওই কর্মসূচি পালন করা হয়। বিএনপির তৃণমূলের কর্মীরা বলেন, ‘কেন্দ্রীয় ভাবে ঘোষণা দেওয়া হয় খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সু-চিকিৎসার জন্য সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত গণ অনশন কর্মসূচি পালন করবে জেলা পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। সেখানে মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা সকাল ১০টায় শুরু করে সাড়ে ১১টায় শেষ করেন। মহানগর যুবদলের নেতারা মিছিল নিয়ে আসলেও অনশন কর্মসূচি সমাপ্ত হওয়ায় ব্যথিত হয়ে চলে যান। এছাড়াও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরাও এসে একই দৃশ্য দেখতে পান।’ এসময় মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু বলেন, ‘তোমার এতো দেরি করেছে কেন। প্রোগ্রাম তো শেষ করে দিয়েছি। আরো আগে আসার প্রয়োজন ছিল।’ মহানগর বিএনপির নেতারা জানান, ‘সকালে প্রেসক্লাবের সামনে কর্মসূচি আছে সেজন্য অতিরিক্ত পুলিশ এখানে টহল দিতে শুরু করে। নেতাকর্মীরা আসলেও পুলিশ তাদের কর্মসূচি না করতে বলেন। পরে নেতাকর্মীদের এক ঘণ্টা সময় দেন। যার প্রেক্ষিতে মহানগর বিএনপির নেতারা এক ঘণ্টায় কর্মসূচি শেষ করেন।’ সরেজমিনে দেখা যায়, ‘নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে সারিতে বসে মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা গণ অনশন কর্মসূচি পালন করেন। মহিলাদল, শ্রমিকদল মিলিয়ে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী এখানে উপস্থিত ছিলেন। আর তার পাশেই গলিতে টহলরত ছিলেন সদর থানা পুলিশ। তবে পুলিশ একবারও নেতাকর্মীদের কোন বাধা দিতে বা প্রোগ্রাম শেষ করতে বলতে দেখা যায়নি। তারপরও নেতাকর্মীরা বক্তব্য দিয়ে কর্মসূচি সমাপ্ত করেন তারা। এর পরেই নেতাকর্মী নিয়ে প্রেসক্লাবের সামনে আসেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া। পরে শতাধিক নেতাকর্মী নিয়ে আসেন মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মাজহারুল ইসলাম জোসেফ। দ্রুত কর্মসূচি শেষ হওযায় তারা হতাশ হয়ে চলে যান।’ তৃণমূলের কর্মীরা বলেন, ‘মহানগর বিএনপির নেতারা কেউ অনশন করেনি। ব্যানারে লেখা অনশন থাকলেও তারা খেয়ে ধেয়ে বাসা থেকে আসছেন। যার জন্য প্রোগ্রাম শেষ হলেও পানি পান করে কিংবা অন্য কিছু খেয়ে অনশন ভাঙতে দেখা যায়নি। এতেই বুঝা যায় তারা কেউ অনশন করেনি। পুলিশের ভয়ে কখন পোগ্রাম শেষ করবে সেই চিন্তায় ছিল।’ উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন, ফখরুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট রিয়াজুল ইসলাম আজাদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান মোল্লা, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মজিবুর রহমান, মানবাধিকার সম্পাদক আব্দুল মতিন, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি দিলারা মাসুদ ময়না, সাধারণ সম্পাদক আয়েশা আক্তার দিনা, সাংগঠনিক সম্পাদক ডলি আক্তার প্রমুখ।

 

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *