Home » শেষের পাতা » স্কুল ছাত্র ধ্রুব হত্যায় খুনিদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন

শামীম ওসমান প্রশ্নে উত্তেজিত আইভী!

০৫ জানুয়ারি, ২০২২ | ৮:১২ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 48 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

শামীম ওসমান সম্পর্কে প্রশ্ন করতেই উত্তেজিত হয়ে উঠেন নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াত আইভী। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সিদ্বিরগঞ্জের ১নং ওয়ার্ডে নির্বাচনী গণসংযোগ করেন তিনি। এসময় সাংবাদিকরা এমপি শামীম ওসমানের সমর্থনের বিষয়ে প্রশ্ন করলে প্রথমে তিনি একটু উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এরপর বলেন, তাঁর সমর্থন খুব কী জরুরি আজকের আমাদের এই নির্বাচনে? তিনি একজন সন্মানিত এমপি। উনি ইচ্ছা করলেও আসতে পারবেন না। আমরা নির্বাচনের মধ্যেই থাকি। সদ্য সাবেক মেয়র আইভী বলেন, স্থানীয় সরকারে কাজ করতে সবসময়ই চ্যালেঞ্জ থাকে। এখানে সবধরনের চ্যালেঞ্জই আছে। এখানে আলাদাভাবে কিছু বলা যাবে না। যে কোন কাজেই চ্যালেঞ্জ আছে। আওয়ামী লীগের মধ্যে কখনও বিভাজন ছিল না। তৃণমুল সবসময় একত্রিত ছিল। নেতৃত্বের প্রতিযোগীতা থাকতে পারে কিন্তু আওয়ামী লীগে কোন বিভাজন নেই, আগেও ছিলনা। আমরা সবাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক, শেখ হাসিনার কর্মী। আমাদের মতবিরোধ থাকতে পারে কিন্তু দিনের শেষে সকলে শেখ হাসিনার কর্মী। উল্লেখ্য, এরআগে ঢাকায় কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভায় প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমান উপস্থিত হননি। নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পাওয়া আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানন, সদস্য সচিব মির্জা আযমসহ নেতৃবৃন্দের অনুরোধ সত্তেও সভায় যাননি শামীম ওসমান। এনিয়ে সেখানে উপস্থিত মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াত আইভী সাংবাদিকদের বলেছিলেন, তিনি (শামীম ওসমান) আমার বড়ভাই। মান অভিমান থাকতে পারে কিন্তু তিনি নৌকার পক্ষেই আছেন। পরবর্তিতে নারায়ণগঞ্জে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে বিজয় সমাবেশ হলে সেখানেও শামীম ওসমান আসেননি। স্থানীয় নেতারা জানায়, শামীম ওসমান কেন আসেননি এটা যেমন নেত্রী (শেখ হাসিনা) জানেন তেমনি আইভীও জানেন। কেন্দ্রীয় নেতারাও জানেন। মেয়র পদে থাকাবস্থায় প্রায় প্রতিটি মুহুর্তেই শামীম ওসমান এবং তৃনমূল আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের একের পর এক অবমুল্যায়ন, মামলা, বে-ফাঁস মন্তব্য করেছেন আইভী। তার মায়ের মৃত্যুর পর সব ভূলে তাকে বাড়ীতে গিয়ে শান্তনা দিয়ে বিশাল হৃদয়ের পরিচয় দিয়েছেন শামীম ওসমান। কিছুদিন পরই শামীম ওসমানের পিতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর একেএম সামছুজ্জোহা, মাতা ভাষা সৈনিক বেগম নাগিনা জোহা, বড়ভাই চারবারের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিম ওসমানসহ শতাধিক মুক্তিযোদ্ধার কবরে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শ্মশানের মাটি দিয়ে কবরগুলোকে নিশ্চিহৃ করে দেয় সিটি কর্পোরেশন। কবর জিয়ারত করতে গিয়ে সেই দৃশ্য দেখে শামীম ওসমান প্রচন্ড রাগান্বিত হলেও নিজেকে সংবরণ করেন। তিনি কাউকে দোষারোপ না করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানান সিটি কর্পোরেশনকে। পরদিন উল্টো মেয়র আইভী নিজে স্বাক্ষর করা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এজন্য ওসমান পরিবারকেই দোষারোপ করেন। এবং মাটি নিয়ে অপব্যখ্যা দেন। যা নিয়ে দলীয় নেতা-কর্মী, মুক্তিযোদ্ধা থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট সকলে প্রচন্ডরকম ক্ষুব্ধ হন।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *