Home » প্রথম পাতা » ফতুল্লার কাশিপুরে মোস্তফার অত্যাচারে অতিষ্ট সাধারন মানুষ

শীতলক্ষা থেকে উদ্ধার হওয়া ২ লাশের পরিচয় শনাক্ত

২৮ জানুয়ারি, ২০২২ | ১২:৪২ অপরাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 103 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

শীতলক্ষ্যা থেকে উদ্ধার হওয়া দুইজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁদের একজন শহরের বাবুরাইল এলাকার দিলু চৌধুরী ছেলে মো. রোহান চৌধুরী (১৯) ও অপরজন পালপাড়া এলাকার তাপসী রাণী ঘোষ (৪৫)। গত বুধবার বিকেলে মরদেহ দুটি উদ্ধারের পর রাতেই রোহান চৌধুরী ও পরদিন ২৬ জানুয়ারী রাণী ঘোষের পরিচয় শনাক্ত হয়। পরিবারের দাবী দুইজনকেই হত্যা করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি শাহ জামান বলেন, তাপসি রাণীর ভাই ননী গোপাল ঘোষ বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। তাপসী রানীকে অজ্ঞাত আসামিরা হত্যার পর লাশ নদীতে ভাসিয়ে দিয়েছে বলে মামলায় অভিযোগ করেছেন বাদী।

রোহানের চাচা দিপু চৌধুরী জানান, গত শনিবার রোহান একটি বিয়ের দাওয়াতে ছিল। রোহান একটি প্রিন্টিং কারখানায় কর্মরত ছিল। সেদিন দাওয়াতের পর বাসায় গিয়ে জ্যাকেট পরে বাসা থেকে বের হয়ে আর বাসায় ফিরেনি। ওই ঘটনায় থানায় একটি জিডি হয়েছিল। পরে গত বুধবার আমরা মরদেহের সন্ধান পাই। আমাদের ধারণা তাকে বন্ধুদের কেউ হত্যা করেছে। শুরুতে আমরা জিডি করেছিলাম। এখন হত্যা মামলা করা হবে। অপরদিকে তাপসি রাণী ঘোষের ভাই ননী গোপাল ঘোষ সদর মডেল থানায় মামলার অভিযোগ করেছেন। এতে তিনি উল্লেখ করেন, বিধবা এই নারী শহরের পালপাড়া এলাকার একটি ভাড়া বাসায় কিশোর সন্তান পিয়াস ঘোষকে (১২) নিয়ে বসবাস করতেন। গত ২৩ জানুয়ারি সকাল ৯টা থেকে নিখোঁজ ছিলেন তাপসি রাণী ঘোষ। এ ঘটনায় সদর মডেল থানায় জিডি করা হয়। গত বুধবার সকালে শীতলক্ষ্যা নদীর হাজীগঞ্জ ফেরিঘাট ও একরামপুর এলাকা থেকে তাপসী রানী ও রোহানের লাশ উদ্ধার করা হয়। নারায়ণগঞ্জ নৌ থানা পুলিশের উপপরিদর্শক ফোরকান মিয়া জানান, শীতলক্ষ্যা নদীতে দুই স্থানে দুইটি লাশ দেখতে পেয়ে এলাকাবাসী পুলিশকে জানায়। পরে নদীতে ভাসমান অবস্থায় লাশ দুইটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। এর মধ্যে নারীর মরদেহের পায়ে ও পেটে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে যুবকের শরীরের কোথাও কোন আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে তাদের মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। গত বুধবার দুপুরে হাজীগঞ্জ ঘাট সংলগ্ন এলাকা থেকে লাশ দুইটি উদ্ধার করা হয়েছে। তবে তাদের পরিচয় জানাতে পারেনি। নৌ পুলিশের উপ পরিদর্শক (এসআই) ফোরকান মিয়া জানান, নারীর কপালে ওপায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কিন্তু পুরুষের দেহে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *