Home » শেষের পাতা » মেয়াদি সুদের ফাঁদে জিম্মি হত-দরিদ্র জনগোষ্ঠী

শ্মশান-মন্দিরের উন্নয়নকাজ পরিদর্শনে মেয়র আইভী

২৮ নভেম্বর, ২০২১ | ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 41 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৫ ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে শ্মশান, মন্দির, মাঠ ও পানির পাম্পের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করেছেন সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। গতকাল শনিবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব কার্যক্রম পরিদর্শন করেন তিনি। খবর পেয়ে মেয়রকে ঘিরে ধরে স্থানীয় শিশু-কিশোর, নারী-পুরুষ সকলে। সিটি মেয়রও কথা বলেন স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে। মেয়রকে পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন স্থানীয়রা। শ্মশান, মন্দির, মাঠ ও পানির পাম্পের কাজের জন্য মেয়রের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান স্থানীয়রা। বিকেল চারটার দিকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী যান নগরীর ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের ঢাকেশ্বরী এলাকায় নির্মাণাধীন শ্মশানের উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শনে। স্থানীয় কাউন্সিলর, সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশলী ও ঠিকাদারকে নিয়ে উন্নয়ন প্রকল্পের কার্যক্রম পরিদর্শন করেন তিনি। শ্মশানের উন্নয়ন কার্যক্রম দ্রুততার সাথে শেষ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিকে নির্দেশ দেন। এই সময় স্থানীয় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা শ্মশানের ভেতর একটি মন্দির নির্মাণের অনুরোধ জানান। মেয়র এই বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আশ্বাস দেন। শ্মশান পরিদর্শন শেষে তিনি যান নগরীর ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর লক্ষ্মণখোলা এলাকায় শীতলক্ষ্যার নদীর পাড়ে ঘাটলা ও মাঠ পরিদর্শনে। সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী এসেছেন খবর পেয়ে স্থানীয় আবাল-বৃদ্ধরা সেখানে ভিড় করে। খেলার জন্য মাঠ পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে স্থানীয় শিশু-কিশোররা। ওই এলাকায় স্থাপিত পানির পাম্প পরিদর্শন করেছেন সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। পড়ন্ত বিকেলে স্থানীয়দের আমন্ত্রণে ঢাকেশ্বরী মন্দিরে যান সিটি মেয়র। ঢাকেশ্বরী মন্দিরের উন্নয়ন কাজ করায় এবং মন্দিরের সামনের পুকুরে ঘাটলা নির্মাণ করে পাড় বাঁধাই করে দিয়েছেন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। স্থানীয় বাসিন্দারের জন্যও ড্রেন, রাস্তা ও আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করেছেন তিনি। এজন্য স্থানীয় সনাতন ধর্মাবলম্বী নারী-পুরুষ মেয়রের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। মেয়রকে কাছে পেয়ে তারা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। স্থানীয়রা বলেন, বর্ষাকালে মন্দিরের সামনে মাঠের জায়গাটি কর্দমাক্ত, স্যাঁতস্যাঁতে হয়ে যেত। মন্দিরের সামনে পুরো জায়গা উচু এবং পাকা করে দিয়েছেন মেয়র আইভী। ড্রেনেজ ব্যবস্থা করে দেওয়াতেও অনেক সুবিধা পাচ্ছেন তারা। এজন্য মেয়রের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। নাসিকের উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শনকালে সিটি মেয়র আইভীর সাথে ছিলেন ২৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর এনায়েত হোসেন, ২৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. সামসুজ্জোহা, ২৫, ২৬ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর হোসনে আরা বেগম, নারায়ণঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়, সমগীতের সাবেক সভাপতি অমল আকাশসহ মন্দির ও শ্মশান কমিটির লোকজন।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *