Home » প্রথম পাতা » ফতুল্লার কাশিপুরে মোস্তফার অত্যাচারে অতিষ্ট সাধারন মানুষ

সরকারের সেবা কর্মস্থলেও পৌঁছেছে: ডিসি

০৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ৯:৫১ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 35 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট পোশাক শিল্পে গার্মেন্টস কর্মীদের অংশগ্রহনে স্যাটেলাইট হেলথ কর্ণার বিষয়ক মতবিনিময় সভা ও করোনা ভাইরাসের বুষ্টার ডোজ প্রদান করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় মেট্টো নিটিং এন্ড ডাইং মিলস এর কনফারেন্স রুমে ওই সভার আয়োজন করা হয়। এদিকে, মেট্টো নিটিং এন্ড ডাইং মিলস লিমিটেড এর আয়োজনে সার্বিক সহযোগীতা করেছেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন, সিভিল সার্জন অফিস ও নারায়ষগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ। মেট্টো নিটিং এন্ড ডাইং মিলস লিমিটেড’র এজিএম গৌর নিতাই দত্ত ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার প্রদীপ কুমার’র সঞ্চালনায় ও  কর্পোরেট জেনারেল ম্যানেজার(এডমিন, এইচ আর এন্ড কমপ্লায়েন্স) মো. আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. আবুল ফজল মুহম্মদ মুশিউর রহমান,  অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোসা. ইসমত আরা, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রিফাত ফেরদৌস। আরও উপস্থিত ছিলেনমেট্টো নিটিং এন্ড ডাইং মিলস লিমিটেড’র লে. কর্ণেল মো. হামিদুর রহমান প্রমুখ। মতবিনিময় সভার শুরুতে কোরআন থেকে তেলাওয়াত করা হলে অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয়। এ সময় গর্ভবতী নারীদের গর্ভবতীকালী পোষাক ও সঞ্চয় করার জন্য প্লাস্টিকের ব্যাংক প্রদান করা হয়। উপস্থিত পোষাক শ্রমিকদের করোনা ভাইরাসের বুস্টার ডোজ দেয়া হয়। প্রধান অতিথি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ বলেন, সরকার চাচ্ছে সেবাকে মানুষের দৌড়গোরায় পৌঁছে দিতে। আগে দৌড়গোরা বলতে বুঝতাম লোকের দরজায়, কিন্তু এখন সেটা কর্মক্ষেত্রে এসে পৌঁছেছি। এখন আর সেবার দেয়ার জন্য ঘর লাগে না, যে  যেখানে আছে সেখানেই সেবা। এটাই ডিজিটাল বাংলাদেশের মূল কনসেপ্ট। সেবা মোবাইলে পেয়ে যাচ্ছেন, আপনার বেতন অনলাইনে পেয়ে যাচ্ছেন, আসলে যে যেভাবে সেবা চাচ্ছে সেভাবেই পাচ্ছে। এটাই আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশ। তিনি বলেন, আমাদের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন, সিভিল সার্জন অফিস ও নারায়ণগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ’র  সুন্দর একটি কনসেপ্ট, আমরা গার্মেন্টস শিল্পে চলে এসেছি। আমরা একটি স্যাটেলাইট হেলথ কর্ণার স্থাপন করেছি, মাতৃত্বকালীন যে সকল সুবিধা আছে সেগুলো বা একটা মেচুয়েড মেয়ে যে সকল সেবা দরকার সেগুলো আমরা দিচ্ছি। একজন গর্ভবতী মেয়ে তার সন্তান প্রসবের সময় আসলে যে সকল সেবা দরকার, যেমন দ্রুত চিকিৎসা, এ্যাম্বুলেন্স সেবা দেযার জন্য আমাদের সিভিল সার্জন আপনাদের পাশে আছে। আমরা দেখলাম চীনে আবার করোনা ভাইরাসের পাদুর্ভাব বেড়েছে। চীনে ভাইরাস বাড়লে আমাদের বুকে দরফর করে। এটা যদি আবার বৃদ্ধি পায় তাহলে আমাদের অবস্থা আবার খারাপের দিকে যাবে। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে অনেক বড় বড় প্রজেক্ট পাশ হয়ে গেছে। পদ্মা সেতু উদ্বোধন হয়ে গেছে। আমাদের ইয়ারর্পোট কিছুদিনের মধ্যে পৃথিবীর অন্যতম একটি ইয়ারর্পোট হতে যাচ্ছে। বিয়ে বাড়িতে যেমন আনন্দ উল্লাস চলে, বাংলাদেশেও তেমন উন্নয়ন চলছে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *