Home » প্রথম পাতা » ফতুল্লার কাশিপুরে মোস্তফার অত্যাচারে অতিষ্ট সাধারন মানুষ

সহসা হচ্ছেনা ছাত্রদলের কমিটি

২৩ নভেম্বর, ২০২২ | ১০:০৭ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 37 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট গত ১৫ নভেম্বর কেন্দ্রীয় ছাত্রদরের সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবন ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহামুদ জুয়েল নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও নারায়ণগঞ্জে জেলা ছাত্রদলের কমিটি ঘোষিত হয়নি। এরি মাঝে জেলা ও মহানগরীতে পদ প্রত্যাশি নেতারা কমিটির আশায় কেন্দ্রীয় নেতাদের দ্বারে দ্বারে দৌড়যাপ শুরু করেছেন। তবে বিরোধী দলের রাজনীতির কারনে এবারো শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকছে অঘোষিতভাবে শিথিল। ফলে জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটির শীর্ষ পদে আন্ডার মেট্রিক, পাঁচ ক্লাস পাশ, ব-কলম অশিক্ষিতদের কেউ চলে আসলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। এদিকে আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশকে টার্গেটে রেখে ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে জেলা ও মহানগর বিএনপি ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠনগুলো। ১০ ডিসেম্বরের আগে কমিটি না হওয়ারও সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। কারন কেন্দ্রীয় নেতারা দেখতে চায় ১০ ডিসেম্বর জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের পদ প্রত্যাশি নেতাদের অবস্থানের জানানি। যদিও কেউ কেউ জানিয়েছেন ১০ ডিসেম্বরের পুর্বেই কমিটি ঘোষণা। এদিকে নারায়ণগঞ্জের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছিলো নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের নেতৃত্ব। অনেকটা নারায়ণগঞ্জে ছাত্রদলের নেতৃত্ব ছিলো অনেকটা ক্লিনিক্যাল ডেথ। জেলা ছাত্রদলে যেখানে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আরিফুর রহমান মানিকের হদিস ছিলো না। সেক্রেটারি খাইরুল ইসলাম সজীব জেলা যুবদলের নেতৃত্বে আসার প্রতিযোগীতায় যুবদলের রাজনীতিতে ছিলেন। মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি সাহেদ আহমেদ হয়েছেন মহানগর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক। তিনি যুবদলের মিছিল শেষ করে আবার ছাত্রদলের ব্যানারে এসে অক্সিজেন দেয়ার চেষ্টা করে গেছেন। সেক্রেটারি মমিনুর রহমান বাবু ছাত্রদলের নেতৃত্ব দিলেও এক পা দিয়ে রেখেছেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতৃত্ব প্রত্যাশায়। জেলা ছাত্রদলের মুল সভাপতি মশিউর রহমান রনি অনেক আগেই জেলা যুবদলের সদস্য সচিব হয়ে ছাত্রদলকে বিদায় জানিয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে ১৫ নভেম্বর জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল। এই যখন অবস্থা- তখন রাজপথে মহানগর ছাত্রদলের ভার পড়েছে মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাকিবুর রহমান সাগরের উপর। যেখানে নেতৃত্বের প্রতিযোগীতায় রাজপথে রয়েছেন সদর থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কাজী নাহিদুল ইসলাম সাদ্দাম, বন্দর থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাহিদ ইসতিয়াক সিকদার, সদর থানার সদস্য সচিব লিংরাজ খান, নারায়ণগঞ্জ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক মোহাম্মদ রাসেল, সরকারি তোলারাম কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি আতা-ই-রাব্বী ও সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক তুহিনুর রহমান তুহিন সহ আরো বেশকজন। যারা বর্তমান পরিস্থিতিতে রাজপথে সক্রিয় অবস্থান করছেন। জেলা ছাত্রদলের নেতৃত্ব প্রত্যাশায় রাজপথে সক্রিয় ভুমিকা রাখছেন ফতুল্লা থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান দোলন, জেলা ছাত্রদল নেতা সাগর সিদ্দিকী, রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক সুলতান মাহামুদ, সাবেক সদস্য সচিব মাসুদুর রহমান, বর্তমান আহ্বায়ক নাহিদ হাসান ভুঁইয়া, আড়াইহাজার উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক জুবায়ের আহমেদ জিকু, জেলা ছাত্রদল নেতা আরিফুর রহমান রাজ ও সোনারগাঁও উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক জাকারিয়া ভুঁইয়া। কমিটি গঠনের সূত্রে, ২০১৮ সালের ৫ জুন মশিউর রহমান রনিকে সভাপতি ও খাইরুল ইসলাম সজীবকে সাধারণ সম্পাদক করে ১২ সদস্য বিশিষ্ট এবং সাহেদ আহমেদকে সভাপতি ও মমিনুর রহমান বাবুকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা দেন তৎকালীন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। মশিউর রহমান রনিকে সভাপতি করে ঘোষিত ১২ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটির অন্যান্য সদস্যরা ছিলেন কমিটির সিনিয়র সহ সভাপতি পদে মোহাম্মদ উল্লাহ, সহ সভাপতি পদে আরিফুর রহমান মানিক, সাধারণ সম্পাদক পদে খায়রুল ইসলাম সজিব, যুগ্ম সম্পাদক পদে ইসমাইল মামুন, মেহেদী হাসান, মাইনুল ইসলাম রবিন, নাজমুল হাসান বাবু, মশিউর রহমান শান্ত, রাকিব হাসান রাজ, রফিকুল ইসলাম রফিক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে সোহেল মিয়া। ১৫ সদস্য বিশিষ্ট মহানগর কমিটির মধ্যে সভাপতি হিসেবে শাহেদ আহমেদ, সিনিয়র সহ সভাপতি পদে রাফিউদ্দীন রিয়াদ, সহ-সভাপতি শাকিল মিয়া, নাজিম পারভেজ অনতু, শফিকুল ইসলাম শফিক, আলতাফ হোসেন ইব্রাহীম, সিরাজ উদ্দিন প্রধান দর্পন, হামিদুর রহমান সুমন, সাধারণ সম্পাদক পদে মমিনুর রহমান বাবু, যুগ্ম সম্পাদক পদে আলামিন প্রধান, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন লিংরাজ খান, রাকিবুর রহমান সাগর, সাজ্জাদ হোসেন, ইব্রাহীম বাবু ও মারুফুর ইসলাম পাপনকে কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়। ২০২২ সালের ৩১ মার্চ আরিফুর রহমা মানিক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও খাইরুল ইসলাম সজীবকে সাধারণ সম্পাদক করে ৫৯২ জনের একটি রীতিমত ঐতিহাসিক পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদল। এর আগে চলতি বছরের ১৬ মার্চ মশিউর রহমান রনিকে জেলা যুবদলের সদস্য সচিব পদে দায়িত্ব দেয় কেন্দ্রীয় যুবদল। ২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর সাহেদ আহমেদকে সভাপতি ও মমিনুর রহমান বাবুকে সাধারণ সম্পাদক পদে বহাল রেখে ২৩৫ জনের পুর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের তৎকালীন সভাপতি রাজীব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। কমিটি রাজীব ও আকরামুল ছিলেন। এরও আগে মাসুকুল ইসলাম রাজীবকে আহ্বায়ক করে ২০১৩ সালের ১৬ মার্চ গঠিত হয়েছিল নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি। তাছাড়াও একই সময়ে মনিরুল ইসলাম সজলকে আহ্বায়ক করে মহানগর ছাত্রদল কমিটি ঘোষিত হয়। জেলা ছাত্রদলের ওই কমিটিতে সর্বকনিষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক হোন মশিউর রহমান রনি এবং মহানগর ছাত্রদলের সর্বকনিষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ মোহাম্মদ অপুর আগের পদে যুগ্ম আহ্বায়ক সাহেদ আহমেদ।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *