আজ: বৃহস্পতিবার | ১লা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৪ই সফর, ১৪৪২ হিজরি | দুপুর ১২:৫৭

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

সিদ্ধিরগঞ্জের ফেন্সি সম্রাট এখন কোটিপতি

ডান্ডিবার্তা | ০১ মে, ২০১৯ | ১২:৪৬

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
এক যুগেরও বেশী সময় ধরে মরণ নেশা ফেন্সিডিলসহ নানা প্রকার মাদক ব্যবসা করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছে সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে এক ডজন মামলার আসামী মোহাম্মাদ আলী। মাদক ব্যবসা করে মদনপুর, শিমরাইলে একাধিক জমির প্লট কিনেছেন। মাদক ব্যবসা করে ৫ তলা বিশাল বাড়ি নির্মাণ করেছেন এই ফেন্সি সম্রাট মোহাম্মাদ আলী। গত ১৯ এপ্রিল ফেন্সিডিলসহ সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। কিন্তু এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই জামিনে বের হয়ে এসে পুরোদমে ফেন্সিডিল ব্যবসা শুরু করেছে। শুধু মোহাম্মাদ আলী একাই মাদকেরর সাথে জড়িত নয়, তার পরিবার পরিজন সবাই এই মরণ নেশায় জড়িয়ে পড়েছে। মোহাম্মাদ আলী যখন জেল হাজতে ছিল তখন তার স্ত্রী কন্যা ও একই বাড়ির ভাড়াটিয়া খাদিজা এই ফেন্সিডিল ব্যবসা টিকিয়ে রেখেছে। এখনো তারা মাদক ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে মোহাম্মাদ আলীকে সার্বিক সহায়তা হিসেবে তারাই মাদক সেবীদের কাছে ফেন্সিডিল সাপ্লাই দিচ্ছে। মোহাম্মাদ আলী জেল হাজত থেকে বের হয়ে আবারও ওপেন সিক্রেটে ফেন্সিডিল বিক্রি করছে বলে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। শিমরাইলের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে এই দুর্ধর্ষ মাদক চোরাকারবারী মোহাম্মাদ আলী। তার বিরুদ্ধে প্রায় এক ডজন মাদক মামলা রয়েছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ১৯ এপ্রিল ৯ বোতল ফেন্সিডিলসহ মোহাম্মাদ আলীকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়। কিন্তু এক সপ্তাহ যেতে না যেতে মোহাম্মাদ আলী জেল হাজত থেকে জামিনে বের হয়ে আবারও ফেন্সিডিল ও ইয়াবা ব্যবসা শুরু করেছেন ব্যাপক আকারে। তার বাড়িতে বসবাসকারী খাদিজা নামে এক নারীকে দিয়েও মোহাম্মাদ আলী ফেন্সিডিল বিক্রি করাচ্ছে। এছাড়া মোহাম্মাদ আলীর স্ত্রী ও মেয়েরা ও ফেন্সিডিল বিক্রি করে মোহাম্মাদ আলীর দিক নির্দেশনা মোতাবেক। মোহাম্মাদ আলী নিজে, এবং জনৈক খাদিজা এবং মোহাম্মাদ আলীর স্ত্রী ও মেয়েরা ফেন্সিডিল বিক্রি করছে ওপেন সিক্রেটে। নারীদের ফেন্সিডিল বিক্রিতে ব্যবহার করছে যাতে কেউ সহজে সন্দেহ করতে না পারে সে জন্য। প্রতি বোতল ফেন্সিডিল বিক্রি করছে ১৮০০ থেকে ২০০০ টাকায়। ইয়াবা বিক্রি করছে প্রতি পিচ ২০০ -৪০০ টাকা করে। মাদক ব্যবসায়ী মোহাম্মাদ আলী মাদক ব্যবসা করে ৫ তলা একটি বাড়ি নির্মাণ করেছেন। এছাড়া তার রয়েছে আরও অনেক সহায় সম্পদ এবং ব্যাংক ব্যালেন্স। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মীর শাহিন শাহ পারভেজ ঘোষণা করেছেন থানা এলাকায় মাদক চাঁদাবাজসহ কোন অপরাধীর ঠাঁই হবেনা। কিন্তু মোহাম্মাদ আলী ও তার পরিবারবর্গ প্রকাশ্যে মাদক বিক্রি করছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মীর শাহিন শাহ পারভেজ বলেন খুব শিগগিরই মাদক ব্যবসায়ী মোহাম্মাদ আলীসহ যারা মাদক ব্যবসায় জড়িত তাদের কঠোর ভাবে দমন করা হবে, কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা বলে ওসি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *