Home » প্রথম পাতা » পদ্মা সেতু জাতির আরেক বিজয়

সিদ্ধিরগঞ্জে দুই সন্ত্রাসীর গ্রেফতার দাবি

২২ মে, ২০২২ | ৮:২৬ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 72 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

সিদ্ধিরগঞ্জে আদমজী নতুন বাজার এলাকায় ফের বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সন্ত্রাসী সেলিম মজুমদার ও কিশোরগ্যাং লিডার মাদকব্যবসায়ী নাহিদ। ১২/১৪ মামলার আসামি সেলিম মজুমদার ও তাঁর বাহিনীর বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ সহ বিভিন্ন থানায় রয়েছে একাধিক মামলা।অপরদিকে সেলিম মজুমদারের ঘনিষ্ঠ সহযোগী কিশোরগ্যাং লিডার মাদকব্যবসায়ী নাহিদের বিরুদ্ধে ৫/৬ টি মাদক মামলা সহ বিভিন্ন মামলা এছাড়াও সিদ্ধিরগঞ্জের শীর্ষ এ মাদকব্যবসায়ী নাহিদকে গ্রেফতারে গত জানুয়ারীতে এসআই শওকত জামিলের নেতৃত্বে অভিযান চালায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ। এসময় পুলিশের হ্যান্ডকাপ পরিহিত অবস্থায় পালিয়ে যায় মাদক ব্যবসায়ী নাহিদ। তার বিরুদ্ধে মাদক বেচাকেনা সহ নাসিক ৬নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন জনকে মাদক বিক্রি করতে বাধ্য করারও অভিযোগ রয়েছে। মাদক বিক্রি করতে রাজি না হলে বহুলোককে মারধর ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদানেরও অভিযোগ রয়েছে নাহিদের বিরুদ্ধে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মাদক ব্যবসায়ী নাহিদের মাদকের নেটওয়ার্ক ক্ষেত্র এতই সুবিশাল যে জেল খানায় থেকেও সে এলাকায় মাদকের ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে। পুরো আদমজী সোনামিয়া বাজার, নতুন বাজার, আদমজী বিহারী ক্যাম্প, কদমতলীসহ সিদ্ধিরগঞ্জের বেশ কয়েকটি এলাকার মাদকের নিয়ন্ত্রণ নাহিদের হাতে। প্রায়ই নাসিকের ৬নং ওয়ার্ডে মাদকব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নাহিদের সাথে সংঘর্ষ হয় বিভিন্ন সিন্ডিকেটের। আর এতে আতঙ্কে ভুগতে হয় এলাকার সাধারণ মানুষকে। গত রোববার রাতে সেলিম মজুমদার ও তাঁর সহযোগী নাহিদ গ্রুপ আরও কয়েকটি গ্রুপের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।রাতভর থেমে থেমে নতুন বাজার এলাকায় চলে এ সংঘর্ষ।এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও জাতীয় সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানকে ব্যঙ্গচিত্র করে ফেসবুকে কটুক্তিকারী একাধিক মামলার আসামী আদমজীর ত্রাস দুধর্ষ সন্ত্রাসী সেলিম মজুমদার। আদমজী ইপিজেড এলাকায় ব্যবসায়ীদের কাছে মূর্তিমান আতঙ্ক সেলিম মজুমদার। কারণ চাঁদার দাবিতে ইপিজেড এলাকায় সেলিম মজুমদার বাহিনীর হামলার শিকার হতে হয়েছে বহু ব্যবসায়ীকে। এপ্রিলে ২০ লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে সেলিম মজুমদারের হামলার শিকার হন ইপিজেড ব্যবসায়ী শিব্বির আহমেদ। ২০২১ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারী আদমজী ইপিজেডে দিনে-দুপুরে চারমিং ট্রীম এন্ড প্যাকেজিং লি: নামক একটি ফ্যাক্টরির ঠিকাদারি ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ নেওয়াকে কেন্দ্র করে সেলিম মজুমদারের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা ব্যবসায়ীদের ওপর হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। এতে ইপিজেডের এক ঠিকাদার ব্যবসায়ীর এক সহকর্মী গুরুত্বর আহত হয়। আদমজী ইপিজেডের ব্যবসায়ী সূত্রে জানা যায়, গত কয়েকদিন ধরে আদমজী ইপিজেডের ঠিকাদারি ব্যবসা নিয়ন্ত্রণের জন্য সেলিম মজুমদারের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা আদমজী ইপিজেড এলাকায় বেশ কয়েকদিন ধরে মহড়া দেয়। ইপিজেড এলাকায় চারমিং ট্রীম এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড নামীয় ফ্যাক্টরীর সামনে বালু সাপ্লাই এর সাব কন্ট্রাক্টর আবির হোসেন হীরা ও তাঁর ব্যবসায়িক পার্টনার মো: সাব্বির আহমেদকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করিতে থাকে এবং সুযোগসুবিধে মতো পেলে বড় ধরনের ক্ষতিসাধন করার হুমকি দেয়। এসময় প্রতিবাদ করিলে সেলিম মজুমদার ও তাঁর সহযোগী মিনার আবির হোসেন হীরা ও সাব্বিরের সহকর্মী নজরুল (৩৫) কে চড় থাপ্পর, কিল ঘুষি মারিয়া শরীরের বিভিন্ন স্হানে রক্তাক্ত জখম করে। আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে হলে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কর্মকর্তা জানান, একজন ব্যবসায়ীকে মারধর করা হয়েছে। এ ঘটনায় আবির হোসেন হীরা বাদী হয়ে সেলিম মজুমদার ও মিনার নামে দুজনকে আসামি করে একটি অভিযোগ দিয়েছেন।এদিকে ২০১৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ৫লক্ষ টাকা চাঁদার দাবিতে আদমজী ইপিজেডের ঠিকাদার মাসুদুর রহমানের উপর সেলিম মজুমদারের নেতৃত্বে হামলার ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। এ মামলায় নারায়ণগঞ্জের সাবেক এসপি হারুনুর রশিদ সেলিম মজুমদারকে গ্রেফতার করেন। আদালত সেলিম মজুমদারের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠায়। সন্ত্রাসী সেলিম মজুমদারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলা: সেলিম মজুমদারের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ছাড়াও নানা অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বিপিএম বার। আদমজী ইপিজেডের ঠিকাদার মাসুদুর রহমানের উপর হামলা চালানোর অভিযোগে তার বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলাও দায়ের করা হয়। এ মামলায় সে রিমান্ড ও জেলও খাটে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে একাধিক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি বিকৃত ও ভাঙচুর করার অভিযোগ ছিলো। সে গ্রেফতার হয়ে জেলেও গিয়েছিল। ২০১৭ সালের ৮ফেব্রুয়ারী, সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় এফআইআর নং-১২, এ মামলায় সে গ্রেফতার হয়। ২০১৭ সালের ৩ এপ্রিল, সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় এফআইআর নং-৭। এই মামলায় এজহারভুক্ত আসামী। ২০১৭ সালের ২২ ফেব্রুয়ারী। এফআইআর নং-৩৭। এই মামলায় এজহারভুক্ত আসামী। ২০১৬ সালের ১১ আগস্ট। এফআইআর নং-২৩। এই মামলায় এজহারভুক্ত আসামী। ২০১৫সালের ২আগষ্ট। তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা। এফআইআর নং-৪। এজহারভুক্ত আসামী। যুবলীগ নেতা মানিক সরকারের উপর হামলার মামলা- মে মাসের ৩ তারিখ: মামলা নাম্বার ১১।  সেলিম মজুমদার সিদ্ধিরগঞ্জ কমদমতলী এলাকার মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে এবং সিদ্ধিরগঞ্জ তাঁতীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং একই সাথে সিদ্ধিরগঞ্জের স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক পদেও তিনি রয়েছেন। ইপিজেড ব্যবসায়ীর উপর হামলায় গ্রেফতারের পর সেলিম মজুমদার তাঁতীলীগের কেউনা বলে বিবৃতি প্রদান করে জেলা তাঁতীলীগের নেতৃবৃন্দ।এদিকে আদমজী ইপিজেড ও নাসিক ৬নং ওয়ার্ডে বহিরাগত সন্ত্রাসী সেলিম মজুমদার, নাহিদ বাহিনীর সন্ত্রাসী কর্মকা- ও নৈরাজ্য, মাদকব্যবসা প্রতিরোধে নারায়ণগঞ্জ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, র‌্যাব-১১ ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসির হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ব্যবসায়ীরা। তাঁদের একটাই দাবি রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটার আগে এ দুই সন্ত্রাসীকে অবিলম্বে আইনের আওতায় আনা হোক। অন্যথায় যেকোনো সময় বড় ধরনের কোনো অঘটন ঘটে যেতে পারে বলে তারা জানান।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *