আজ: মঙ্গলবার | ১১ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২১শে জিলহজ, ১৪৪১ হিজরি | সকাল ৭:১৯

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

সিদ্ধিরগঞ্জে মহাসড়কে ইজিবাইক অটো রিকশা ও সিএনজির দাপট বেড়েই চলছে

ডান্ডিবার্তা | ০৭ জুলাই, ২০২০ | ৬:৪৬

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি
ঢাকা চট্রগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলে মহাসড়কে নিষিদ্ধ ঘোষিত ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক, রিকশা, সিএনজি চলাচল করছে অবাধে। ট্রাফিক পুলিশের চোখে ফাঁকি দিয়ে এই নিষিদ্ধ যন্ত্রদানব মহাসড়কে চলাচলের কারণে ঘটছে প্রতিনিয়তই দুর্ঘটনা। মহাসড়কে চলাচলরত দূরপাল্লাগামী যানবাহন ওই নিষিদ্ধ যানবাহন অটো রিকশা, ইজিবাইক ও সিএনজির চলাচলের কারণে দূরপাল্লাগামী যানবাহন চলাচল করতে গিয়ে বিড়ম্বনায় পড়ছে। গতকাল সোমবার দুপুরে সরেজমিনে মহাসড়কের শিমরাইলমোড়ে গিয়ে দেখা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জ ডিপিডিসির সামনে থেকে ওয়াপদাকলোনী ও কাঁচপুর ব্রীজের নিচ দিয়ে মহাসড়কে অটোরিকশা, ইজিবাইক, ও সিএনজি যাত্রী নিয়ে উঠে শিমরাইলমোড়, সাইনবোর্ডসহ বিভিন্ন এলাকায় যাচ্ছে। শিমরাইলমোড় থেকে অবাধে যাত্রী বহন করে মহাসড়ক দিয়ে নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ অফিসের সামনে দিয়ে এবং কাঁচপুর ব্রিজের নিচ দিয়ে ওয়াপদা কলোনী হয়ে আদমজী ও নারায়ণগঞ্জ যাচ্ছে এই সকল অবৈধ যানবাহন। এসব যানবাহন চলাচলের কারণে মহাসড়কের শিমরাইলমোড়, বিদ্যুৎ অফিসসহ বিভিন্ন পয়েন্টে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এলাকাবাসীরা এসকল অটো রিকশা, ইজিবাইক, ও সিএনজিন গুলোকে রেকারিং করার দাবি জানান। এলাকাবাসীরা আরো জানায়, রেকারিং করার পরও যদি মহাসড়কে এসব নিষিদ্ধ ঘোষিত যানবাহন চলাচল করে তবে সেগুলাকে ডাম্পিং করার জন্য নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক বিভাগের টিআই (প্রশাসন) মোল্যা তাসলিম হোসেনের কাছে জোরালো আবেদন জানান। এদিকে সরেজমিনে দেখা যায়, শিমরাইলে দায়িত্বরত এটিএসআই মোঃ আনোয়ার হোসেন প্রতিদিনই মহাসড়কে ইজিবাইক, অটো রিকশা ও সিএনজি আটক করে রেকারিং করছেন তবুও থামছেনা মহাসড়কে এই নিষিদ্ধ যানবাজন চলাচল। স্থানীয়রা মনে করেন, পুলিশ সুপার যদি নারায়ণগঞ্জ জেলা ট্রাফিক পুলিশকে যদি ডাম্পিং এর ব্যবস্থা করে দিতেন এবং নিষিদ্ধ যানবাহন গুলো আটকের পর বাজোয়াপ্ত করার দায়িত্ব দিতেন তবে মহাসড়কে নিষিদ্ধ যানবাহন চলাচলসহ থ্রীহুইলার যানবাহনও চলাচল চিরতরে বন্ধ হয়ে যেত। আরিফ ও বিল্লাল নামের ইজিবাইক চালক জানায়, শিমরাইলে রেকারিং এর দায়িত্বে থাকা এটিএসআই মোঃ আনোয়ার হোসেন নিষিদ্ধ যানবাহন ইজিবাইক, অটো রিকশা ও সিএনজি আটক করলে তার কাছ থেকে মুক্তি মেলেনা রেকার বিল ছাড়া। সিএনজি চালক মনির, ইজিবাইক চালক জাহেদ আলী, ও মোঃ সোহেল জানায়, এটিএসআই আনোয়ার হোসেন শক্ত ও কঠোর মনের মানুষ কোনভাবেই তাকে ম্যানেজ করা যায়না, নির্ধারিত রেকার বিল দিয়েই গাড়ি ছাড়াতে হয়। গতি আছে নিয়ন্ত্রণ এই সকল নিষিদ্ধ যানবাহন ব্যাটারী চালিত অটো রিকশা,ইজিবাইকের। অহরহ দুর্ঘটনা ঘটাচ্ছে এই নিষিদ্ধ যানবাহন গুলো। শহর ও যানবাহন নিয়ন্ত্রণ শাখার টিআই (প্রশাসন) মোল্যা তাসলিম হোসেন এর কাছে নারায়ণগঞ্জবাসীর আবেদন মহাসড়কে অবৈধভাবে চলাচলরত থ্রী হুইলারসহ ইজিবাইক, অটোরিকশা ও সিএনজির বিরুদ্ধে আরো কঠোর হওয়ার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *