Home » শেষের পাতা » স্কুল ছাত্র ধ্রুব হত্যায় খুনিদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন

সোনারগাঁয়ে দুই এমপি’র লড়াই

২৮ নভেম্বর, ২০২১ | ৯:৫৬ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 154 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

আজ রোববার সোনারগাঁ উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর মধ্যেই শুরু হয়ে গেছে নারায়ণগঞ্জ ৩ আসনের সাবেক সাংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার ও বর্তমান সাংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার লড়াই তাদের দলীয় সমর্থিত প্রার্থীদের নিয়ে। শম্ভুপুরায় জাতীয় পার্টির মনোনীত লাঙল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও শম্ভুপুরা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার মোঃনাসির উদ্দীন প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে লড়ছেন। তবে এ যেন নির্বাচন না। হয়ে উঠেছে দলের সম্মানের লড়াই। আর কে হবে চেয়ারম্যান শম্ভুপুরা ইউনিয়নের সেটাই দেখার অপেক্ষায় শম্ভুপুরাবাসী। কারন ইতিমধ্যেই মাঠে নেমে নৌকার দলীয় প্রার্থী নাসির উদ্দিনের নির্বাচনী প্রচারণা ব্যস্ত সময় পাড় করছেন সাবেক এমপি কায়সার।প্রায় প্রতিদিনই শম্ভুপুরা ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে এসে নৌকার প্রার্থীর ভোটের জন্য প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। আজ রোববার সোনারগাঁ উপজেলার ৮ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর মধ্যেই বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বীতায় ৪টি ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী পিরোজপুর ইউপির ইঞ্জিনিয়ার মাকসুদুর রহমান মাসুম , বারদীর লায়ন মাহবুবুর রহমান বাবুল, কাঁচপুর ইউপির মোশারফ হোসেন, সনমান্দি ইউপির জাহিদ আলী জিন্নাহ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে গিয়েছেন। বাকি চারটি নোয়াগাও আব্দুল বাতেন, জামপুরের মোঃ হুমায়ন কবির ভূঁইয়া, সাদিপুরে মোঃ আব্দুল রশিদ মোল্লা ও শম্ভুপুরা মোঃ নাসির উদ্দীন চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচন হবে। চার ইউনিয়ন বাকি থাকলেও এখন সাবেক এমপি, জেলা ও সোনারগাঁ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা নির্বাচনী প্রচারণায় অধিকাংশ সময় পার করছে শম্ভুপুরা ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী নাসির উদ্দিনের নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ে। এ যেন অন্যান্য ইউপির থেকে শম্ভুপুরা ইউপি মান সম্মানের একটা কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে।কারন যেখানেই নির্বাচনী প্রচারণা হচ্ছে সেখানেই শম্ভুপুরা ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ ও ৩ আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকাকে নিয়ে করা হচ্ছে কটুক্তি। সরকারি বাজেট হাতিয়ে নেবার কথা উঠে আসছে তাদের বিরুদ্ধে অন্যদিকে বর্তমান সাংসদ সদস্য হওয়ায় নির্বাচনী নিষেধাজ্ঞা থাকায় চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুর রউফের কোন প্রচারণা করছেন না অংশ এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা। তবে বর্তমান চেয়ারম্যান ও এমপি শম্ভুপুরা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচনের দায়িত্বই সম্পূর্ণ ভোটাদের উপর ছেড়ে দিয়েছেন। তারা যাকে যোগ্য মনে করবে তাকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে।তাই নিজের মত করেই এলাকাবাসীদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন আব্দুর রউফ। শম্ভুপুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী দুইজনের নির্বাচনী মাঠ ভালো হলেও নাসিরের তুলনায় এগিয়ে রয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ। এলাকাবাসীর মতে নদী পাড় হয়ে কোন চেয়ারম্যান চাচ্ছেন না তারা। বর্তমান চেয়ারম্যান তাদের জন্য ঠিক আছে এবং তাকেই পুনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চাচ্ছে শম্ভুপুরাবাসী। উক্ত ইউনিয়নের ভোটার ও নির্বাচন অফিসের মাধ্যমে জানা যায় এই ইউনিয়নের মোট ভোটার ২৩ হাজার ১৯৬ জন, ১১ টি ভোট কেন্দ্রের ৫৬ টি স্থায়ী ও ৪টি অস্থায়ী কক্ষে ভোট অনুষ্ঠিত হবে।তবে নির্বাচনের দিন একাধিক কেন্দ্রে হতে পারে বিশৃঙ্খলা তাই এলাকাবাসীর এখন একটাই দাবী প্রশাসনের কাছে আইনশৃঙ্খলা জোরদার ব্যবস্থা করা হোক। কারন ইতিমধ্যেই চরকিশোরগঞ্জ চরহোগলা লাঙ্গলের চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুর রউফ নির্বাচনী প্রচারণা করতে গিয়ে হয়েছে হামলার শিকার চেয়ারম্যান প্রার্থী নাসিরের সমর্থিত লোকদের মাধ্যমে। তাই সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপর ভূমিকা চাচ্ছে শম্ভুপুরাবাসি।

 

 

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *