আজ: বুধবার | ৮ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | সন্ধ্যা ৭:৪১

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

সোনারগাঁয়ে বেতনের দাবীতে শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ

ডান্ডিবার্তা | ১১ আগস্ট, ২০১৯ | ৫:২৯

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

সোনারগাঁ উপজেলার রতনদী এলাকায় বকেয় বেতন ও বোনাসের দাবীতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে। এসময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে শ্রমিকরা। উত্তেজিত শ্রমিকরা মহাসড়কের ৪-৫টি গাড়ি ও পাশ্ববর্তী দোকান ভাংচুর করে। গতকাল শনিবার বিকেলে ইউসান নামে গার্মেন্টে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে গার্মেন্ট এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। শ্রমিকেরা জানায়, উপজেলার রতনদী এলাকায় অবস্থিত ইউসান নামের এক গার্মেন্টের শ্রমিক। ওই গার্মেন্টে প্রায় ৬-৭শ শ্রমিক কাজ করে থাকে। দীর্ঘ ৪ মাস ধরে তাদের বেতন বকেয়া রয়েছে। ঈদের দুই দিন আগে বকেয়া বেতন ও বোনাস দেওয়ার কথা থাকলেও মালিক পক্ষ তাদের বেতন দিতে অস্বীকৃতি জানায়। এতে উত্তেজিত হয়ে পড়ে শ্রমিকেরা। পরে শ্রমিকরা একত্রিত হয়ে পাশ্ববর্তী ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অবস্থান দিয়ে অবরোধ করে রাখে। শ্রমিকদের অবরোধে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। শ্রমিক অবরোধের সময় উত্তেজিত শ্রমিকরা ৪-৫টি গাড়ির গ্লাস ও দুটি দোকান ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে সোনারগাঁও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঈদের আগে শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের আশ্বাস দিয়ে উত্তেজিত শ্রমিকদের শান্ত করে।  ইউসান গার্মেন্ট শ্রমিক আয়েশা ও নাসিমা বেগম জানান, রমজান মাসের পর থেকে শ্রমিকদের মালিক পক্ষ কোন বেতন দেয়নি। বেতন চাইলেই দেই দিচ্ছি করে ৪ মাস অতিবাহিত করে। ঈদের আগেই ৪ মাসের বেতন পরিশোধ করার কথা বলে বেতন দিবে না বলে জানায়। এতে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। শ্রমিক আলমগীর ও শাহনাজ আক্তার বলেন, আমাদের দোকানে আর বাকি দিতে চায় না। বাসা ভাড়াও বকেয়া পড়ে আছে। ছেলে মেয়েদের স্কুলের বেতনও দিতে পারছি না। আমরা গার্মেন্ট শ্রমিক অল্প টাকায় চাকরি করেও নির্দিষ্ট সময়ে বেতনের নিশ্চয়তা পাই না। ইউসান গার্মেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আকতার হোসেন খাঁন বলেন, শ্রমিকদের বেতন রোববার পরিশোধের কথা বলা হয়েছিল। রোববারের কথা শুনে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। তবে আজ রোববার তাদের বেতন ও বোনাস পরিশোধ করা হবে। সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, শ্রমিকদের সড়ক অবরোধের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মালিক পক্ষের সঙ্গে কথা বলে রোববার বকেয়া বেতন পরিশোধের আশ্বাস দিয়ে উত্তেজিত শ্রমিকদের শান্ত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *