Home » প্রথম পাতা » পদ্মা সেতু জাতির আরেক বিজয়

সোনারগাঁয়ে শক্তিশালী হচ্ছে জাতীয়পার্টি

০৪ নভেম্বর, ২০২১ | ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 61 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

আগামী ২৮ নভেম্বর সোনারগাঁ উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচকে সামনে রেখে উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে প্রার্থী দিয়েছে জাতীয়পার্টি। দলটি প্রথমে ৩টি ইউপিতে তাদের প্রার্থী দেয়ার ঘোষনা দেয়ার পর অবশেষে ৫টি ইউনিয়নে তাদের প্রার্থী দিয়েছে। প্রথমে তারা নৌকার প্রার্থীদের মনোনয়নের পর ঝোপ বুঝে কোপ মারা’র মতো ৩টি থেকে বাড়িয়ে ৪টিতে জাতীয়পার্টির প্রাথী ও ১জন ছায়া প্রার্থী দিয়েছেন। এদিকে সোনারগাঁয়ের ৮টি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে কমপক্ষে ৪টি ইউনিয়নে তাদের চেয়ারম্যান নিশ্চিত করছেন জাতীয়পার্টি নেতারা। সুত্র জানান, আগামী ২৮ নভেম্বর সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরকার দলীয় নৌকার প্রতীকের প্রার্থী, জাতীয়পার্টি, ইসলামী শাসনতন্ত্র ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ৩৪জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এরমধ্যে নৌকা প্রতিকে ৮জন, লাঙ্গলে ৪জন ও ১জন সমর্থিতসহ ৫জন, ইসলামী শাসনতন্ত্র ৮টি ইউনিয়নে প্রতিদ্বান্দ্বিতার জন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামীলীগ ও জাতীয়পার্টি তাদের দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে বিভিন্ন হিসেব নিকেশ শুরু করেছেন। এবার নির্বাচনে শক্তি প্রার্থী ও ধীরগতিতে ঝো বুঝে এগোচ্ছেন জাতীয়পার্টি। জাতীয়পার্টি প্রথমে ৮টি ইউপির মধ্যে শম্ভুপুরা, জামপুর ও সাদিপুর ৩ টি তাদের প্রার্থী দেয়ার ঘোষনা দেন। পরে নৌকার প্রার্থী ও নৌকার মনোনয়ন দেখে তারা বারদীতে প্রার্থী দেয়ার ঘোষনা দেন। ওইদিকে নোয়াগাঁও ইউনিয়নে জাতীয়পার্টি ঘোষনা না দিলেও বর্তমান চেয়ারম্যান ইউসুফ দেওয়ান জাতীয়পার্টির ছায়া সমর্থিত প্রার্থী বলে দাবি করছেন অনেকে। তারা বলেন, ইউসুফ গত নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নৌকার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান দেওয়ান উদ্দিন চুন্নুকে পরাজিত করে জয়ী হোন। নির্বাচিত হওয়ার পর ইউসুফ দেওয়ান ৫ বছর কাটিয়েছেন জাতীয়পার্টির ছায়াতলে। সেই হিসেবে বলা হয় ইউসুফ দেওয়ান জাতীয়পার্টির ছায়া প্রার্থী। এদিকে, এবার সোনারগাঁ উপজেলার ৮টি ইউপির মধ্যে চারটিতে বর্তমান চেয়ারম্যানকে মনোনয়ন দেন বাকি ৪টিতে একেবারে নতুন ও হাইব্রিড নেতাদের মনোনয়ন দিয়েছেন অভিযোগ করেছেন তৃনমুল নেতারা। নতুনরা হলেন, জামপুরে হুমায়ুন মেম্বার, শম্ভুপুরা ইউনিয়নে নাছির মেম্বার, বারদীতে লায়ন বাবুল ভুইয়া ও নোয়াগাঁয়ে আব্দুর বাতেন মিয়া। চার জন প্রার্থীর মধ্যে জামপুরের হুমায়ুন মেম্বার গত নির্বাচনে মেম্বার পদে পরাজিত হোন, শম্ভুপুরা ইউনিয়নে নাছির মেম্বার এক সময় বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলাসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। বারদী লায়ন বাবুলও তার পরিবার এক সময় বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। তার বড় ভাই বিএনপি করে একাধিক মামলা আসামী হয়েছেন। নোয়াগাঁওয়ে যাকে মনোনয়ন দিয়েছেন তিনি হলেন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি। তিনি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হলেও জনগনের সাথে নেই তার সাথে সম্পৃতা। অনেকে তাকে ভালো মতো চেনেনই না। সেই হিসেবে নোয়াগাঁওয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান ইউসুফ দেওয়ান অত্যন্ত জনপ্রিয়। এছাড়া শম্ভুপুরা, জামপুর ও বাবদীতে একই অবস্থা আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থীদের বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *