Home » শেষের পাতা » সোনারগাঁয়ে এক হাজার পরিবারের জন্য বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করলেন এমপি খোকা

হাইব্রিড নিয়ে বিপাকে আ’লীগ

১৯ জানুয়ারী, ২০২১ | ৭:৪৭ পূর্বাহ্ন | ডান্ডিবার্তা | 366 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও নির্বাচন পরবর্তি সময়ে নারায়ণগঞ্জের রাজপথে দেখা যায়নি স্থানীয় বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নেতাকে। অথচ তারাই ক্ষমতাসীন দলের বিভিন্ন  অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতেন। আর সেই সকল নেতারাই বিএনপির নতুন নেতৃত্ব দখল করতে বর্তমান সময়ে রাজনীতিতে সবচেয়ে বেশি তৎপর রয়েছেন। বিতর্কিত নেতারা নিজ বলয়কে শক্তিশালী করতে দলীয় কোন্দল সৃষ্টি করছেন। যার ফলে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির নেতারাই বিএনপির প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর ফলে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির রাজনৈতিক গন্ডি ছোট হয়ে আসছে। সেই প্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে সাংগঠনিক ভাবে শক্তিশালী করতে জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটিতে নেতৃত্ব পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্রীয় নেতারা। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে জেলা বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছিল। আর মামলার জটিলতার কারণে এখনো পর্যন্ত মহানগর বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত না হলেও তা শুধুমাত্র সময়ে ব্যাপার। পাশাপাশি জেলা ও মহানগর বিএনপির নতুন কমিটিতে দলের ত্যাগী ও দক্ষ নেতাদের হাতেই নেতৃত্ব তুলে দেয়ার প্রস্তুতি নিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু এরই মধ্যে নতুন কমিটিতে পদ বাগিয়ে নিতে বিতর্কিত ও সুবিধাবাদি নেতারাও বেশ তৎপর হয়ে উঠেছেন। সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতৃত্ব পরিবর্তন যেন সময়ের দাবিতে পরিনত হয়েছে। দিন যত যাচ্ছে দলীয় কর্মীদের কাছ থেকে এ দাবি আরো জোরালো হচ্ছে। এছাড়া নারায়ণগঞ্জ  বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মতামতের উপর ভিত্তি করে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি নিয়ে নতুন করে ভাবতে শুরু করেছে দলের হাই কমান্ড। তাই দলকে নতুন করে চাঙ্গা করতে জেলা বিএনপির বর্তমান কমিটি পরিবর্ধন ও পরিবর্তনের কথা চিন্তা করে জেলা বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত করেছিল দলের নীতি নির্ধারনী ফোরাম। এছাড়া মহানগর কমিটি গঠনের বিষয়টি নিয়ে তৎপরতা শুরু হয়েছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর নারায়ণগঞ্জ বিএনপির কর্মীদের মধ্যে হতাশা কাটাতে এবং দলকে তৃনমূল থেকে চাঙ্গা করতে দলের হাইকামান্ড নতুন করে দলকে সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যে সব নেতাদের কর্মকান্ডে কর্মীরা ক্ষিপ্ত তাদেরকেও বাদ দিয়ে রাজপথে থাকা নেতাদের দিয়ে দল গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলের নীতিনির্ধারনী ফোরাম। এছাড়া যারা সুবিধাবাদী তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে ওই সূত্রটি নিশ্চিত করেছে। অন্যদিকে, জেলা বিএনপির বেশ কিছু শীর্ষ নেতাদের কর্মকান্ডের কারণে দলের তৃনমূলে ক্ষোভ ছড়িয়ে পরছে। বিতর্কিত অনেক নেতাই পুনরায় কমিটিতে পদ পেতে দলের মধ্যে কোন্দল সৃষ্টি করে নিজের বলয়কে শক্তিশালী করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। যারা সরকারী দলের শীর্ষ নেতাদের সাথে আতাঁত করে নিজেদেরর রক্ষা করেছে। অনেকটা আরাম আয়েশ করে দিন পার করছে নারায়ণগঞ্জে। আর এসব সুবিধাবাদী নেতাদের নিয়েই কর্মীরা ফুঁসে উঠতে শুরু করেছে। বিশেষ করে যে সমস্ত নেতা ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতাদের সাথে আতাঁতের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জে প্রকাশ্যে সব ধরনের কর্মকান্ড করেছে সে সমস্ত নেতাদের নিয়ে কর্মীদের ক্ষোভ বেড়েই চলছে। আর এসকল নেতাদের বাদ নিয়ে নতুন কমিটি গঠনের দাবী জানিয়েছেন কর্মীরা। তবে কর্মীদের অভিযোগ, জেলা বিএনপির নেতৃত্বে থাকা শীর্ষ নেতাদের সাহসিকতার অভাবে নারায়নগঞ্জ বিএনপির রাজনীতি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে পারছে না।  যার ফলে নারায়নগঞ্জ বিএনপির রাজনীতিতে ধীরে ধীরে ক্ষোভ বাড়ছে। বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের বিতর্কীত কর্মকান্ড দলীয় কর্মীদের ক্ষিপ্ত করে তুলতে শুরু করেছে। এদিকে, জেলা বিএনপির নতুন কমিটি গঠনে বিতর্কিত নেতারা বাধা সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। গ্রুপিংয়ের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনে বাধা সৃষ্টি হচ্ছে। কেননা গ্রুপিংয়ের কারণে কেন্দ্রীয় নেতারাও বিব্রতকর পরিস্থিতিতে রয়েছেন।

Comment Heare

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।