আজ: বুধবার | ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৭ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি | রাত ১২:৩১

সংবাদ দেখার জন্য ধন্যবাদ

হাইয়ের পাশে বির্তকিত জাহাঙ্গীর

০২ ডিসেম্বর, ২০২০ | ৮:০৮ পূর্বাহ্ন | ডান্ডিবার্তা | 503 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
আওয়ামীলীগকে স্বাধীনতা বিরোধী দল বলার অপরাধে দল থেকে অব্যাহতি প্রাপ্ত যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমকে পাশে নিয়েই প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা রোকনউদ্দিন আহমেদের প্রতি শ্রদ্ধা জানালেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই। গতকাল মঙ্গলবার বারোটার দিকে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রোকনউদ্দিনের মরদেহে শ্রদ্ধা জানানোর সময় এই দৃশ্য দেখা যায়। বেলা ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয় রোকনউদ্দিন আহমেদের মরদেহ। মহানগর আওয়ামী লীগের এই আয়োজনে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই। শহীদ মিনারের মূল গেইটে দেখা হয় সদ্য অব্যাহতিপ্রাপ্ত যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমের সাথে। পরে তাকে সাথে নিয়েই শ্রদ্ধা জানান সভাপতি। আব্দুল হাইয়ের ডান পাশে ছিলেন জাহাঙ্গীর আলম। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য অ্যাড. আনিসুর রহমান দিপু, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া, সদস্য শামসুজ্জামান ভাষানী প্রমুখ। সাম্প্রতিক এক অনুষ্ঠানে ‘আওয়ামী লীগকে স্বাধীনতাবিরোধী দল’ উল্লেখ করে বক্তব্য দেওয়ায় গত ২৪ নভেম্বর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদলের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। অব্যাহতি দেওয়ার এই প্রক্রিয়া নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে। এনিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আবু হাসনাত শহীদ বাদলের বিরুদ্ধে অগঠতান্ত্রিকভাবে জাহাঙ্গীর আলমকে দল থেকে অব্যাহতি, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটিসহ সাম্প্রতিক বিভিন্ন ইস্যুতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে নালিশ দেয় নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ৩০ জনের একটি প্রতিনিধি দল। দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছেও লিখিত অভিযোগ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলটি। গত সোমবার সকালে জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর নেতৃত্বে ঢাকায় যান আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য অ্যাড. আনিসুর রহমান দিপু, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া, আব্দুল কাদির, আদিনাথ বসু, মো. আসাদুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক (অব্যাহতিপ্রাপ্ত) জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, জেলা কমিটির ও ফতুল্লা থানা কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. শহীদ উল্লাহ প্রমুখ। প্রতিনিধি দলে থাকা একটি সূত্র জানায়, জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ প্রথমে সংসদভবনে আওয়ামী লীগের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপির সাথে দেখা করেন। শুরুতেই জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমকে অগঠনতান্ত্রিক উপায়ে অব্যাহতি চিঠি দেওয়ার বিষয়টি ওঠে। উপস্থিত জাহাঙ্গীর আলম কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের কাছে নিজের অবস্থান তুলে ধরেন। পরে অন্যান্য নেতৃবৃন্দও জানান, অব্যাহতির বিষয়ে তাদের মতামত নেওয়া হয়নি। সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল মিলে স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে অব্যাহতির সিদ্ধান্ত নিয়ে চিঠি দিয়েছেন। এছাড়া বিতর্কিত সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা ও তার কার্যক্রম নিয়েও কথা ওঠে। দীর্ঘ তিন বছরেও জেলা আওয়ামী লীগের শূণ্য কয়েকটি পূরণ না হওয়ার পেছনেও সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ জানানো হয় মির্জা আজমের কাছে। এ বিষয়ে ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের সাথে আলাপ হলে তিনি সভানেত্রী শেখ হাসিনা, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, ঢাকা বিভাগীয় যুগ্ম সম্পাদক ডা. দিপু মনি, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়–য়ার কাছে লিখিত জানানোর কথা বলেন। পরে তাদের কাছে লিখিত দেওয়া হয়। এদিকে জাহাঙ্গীর আলমকে অব্যাহতির আদেশ প্রত্যাহার না করে পাশে নিয়ে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা রোকনউদ্দিন আহমেদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর ঘটনায় আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। অব্যাহতি দেওয়ার মাত্র ৬ দিন পর যার স্বাক্ষরিত চিঠিতে অব্যাহতি দেওয়া হলো সেই আব্দুল হাই নিজেই জাহাঙ্গীর আলমকে সঙ্গে রাখায় নেতাকর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।



Comment Heare

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Top