আজ: মঙ্গলবার | ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১২ই সফর, ১৪৪২ হিজরি | রাত ১০:৫৬
শিরোনাম: প্রথম কর্মসূচীতেই সফল মহানগর ছাত্রদল     সুবিধাভোগীদের প্রতি তৃণমূলের ক্ষোভ     শেখ হাসিনা আমাদের অহংকার: সাজনু     খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর স্মার্ট কার্ড বিতরণ করলেন ডিসি     প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের কেক কাটলেন মেয়র আইভী     জেলা ও মহানগর মৎস্যজীবী লীগের পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত     প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী পালন অনুষ্ঠানে সেলিম ওসমান শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী বলে রোহিঙ্গারা ঠাঁই পেয়েছে     প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে মহানগর আ’লীগের সভাপতি আনোয়ার বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে দেশ ইউরোপের মত হতো     আদালতপাড়ায় আইনজীবী সমিতির কেক কেটে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন     প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের দোয়া    

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সম্মেলনে শামীম ওসমান ধর্মের কেউ কোনো এজেন্সি নিতে পারে না

ডান্ডিবার্তা | ০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ১১:০১

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
ধর্ম নিয়ে ফায়দা লোটার চেষ্টাকারী অধার্মিক বলে মন্তব্য করেছেন ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান। তিনি বলেছেন, ‘সৃষ্টিকর্তা যা জানেন তার সৃষ্টি তা জানে না। সৃষ্টিকর্তাকে আপনি এক নামে ডাকেন, আমি আরেক নামে ডাকি। কিন্তু যারা এটাকে নিয়ে বিভক্ত করে, ফায়দা লুটার চেষ্টা করে তারা হলো সব থেকে বড় অধার্মিক। তাদের মধ্যে ধর্মীয় চেতনাবোধ কাজ করে না।’ গতকাল শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে কালিরবাজারে সরকারি গণগ্রন্থাগারে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেছেন, ‘কিছু কিছু সময় ঝড়-ঝাপ্টা, অশুভ শক্তি আসে। অনেকে অশুভ কাজ করে। যারা মানুষ মারে, আগুন জ্বালায়, হত্যা করে, তাদের কোনো ধর্ম নাই।’ শামীম ওসমান বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ হিসেবে বাংলাদেশের চেয়ে ভালো পৃথিবীর কোথাও নেই। হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, এটা একটা ব্যানার। মুসলমানদেরও বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানার আছে। আমি এ ব্যানারগুলোতে বিশ্বাস করি না। আমি একটা ব্যানারেই বিশ্বাস করি। সেটা হলো তুমি কে আমি কে, বাঙালি।’ তিনি বলেন, আপনার ধর্ম আপনার কাছে। আমার ধর্ম আমার কাছে। ধর্মের কেউ কোনো এজেন্সি নিতে পারে না। ধর্ম আসে অন্তর থেকে। জামাত ইসলাম কিংবা অমুক ইসলামকে ধর্মের কোনো এজেন্সি দিয়ে দেওয়া হয় নাই। তিনি আরও বলেন, জিউস পুকুর শ্মশানঘাট দখল করছে কে, সে কথা কিন্তু কেউ বলে নাই। আপনারা তখনই সাহায্য পাবেন যখন কে দখল করেছে সে নাম উচ্চারণ করে সাহস দেখাবেন। একদল বলবেন দখল হয়েছে আরেক দল বলবেন আপনি লিখে রাখেন! সেটা হবে না। নারায়ণগঞ্জে শুধু জিউস পুকুর পাড় এবং শ্মশানঘাট ছাড়াও হিন্দুদের অনেক জায়গা দখল হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের এই সাংসদ। তিনি বলেন, কারা দখল করেছে, সে নামগুলি প্রকাশ করেন, আমরা আপনাদের পাশে থাকবো। কার জায়গা, হিন্দু না মুসলমান, সেটা ব্যাপার না। যেটা অন্যায় সেটার বিরুদ্ধে কথা বলবো, যেটা ন্যায় সেটার পক্ষে কথা বলবো। রাজনীতি করতে আসছি যদি সত্য কথা বলতে না পারি তবে রাজনীতি করার দরকার কি আছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক শ্রী প্রদীপ কুমার দাসের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ডা. নিম চন্দ্র সাহা, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. খোকন সাহা, নারায়ণগঞ্জ জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি কমান্ডার গোপীনাথ দাস, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শ্রী জয়ন্ত সেন দীপু, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শ্রী মনীন্দ্র কুমার নাথ, অ্যাড. তাপস কুমার পাল, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী রবীন্দ্রনাথ বসু, শ্রী সাগর হালদার, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *