Home » শেষের পাতা » অধিগ্রহণ হচ্ছে নদীর জমি

১নং রেলগেটে মার্কেট নির্মাণ বন্ধের দাবিতে সমাবেশ অনুষ্ঠিত

১২ নভেম্বর, ২০২২ | ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 73 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট গতকাল শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে ১ নং রেলগেটে মার্কেট নির্মাণ করে জমি আত্মসাতের প্রতিবাদে সমাবেশ ও পরে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বির সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এড. এবি সিদ্দিক, আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ নূরউদ্দিন, দৈনিক খবরের পাতার সম্পাদক এড. মাহাবুবুর রহমান মাসুম, শিশু সংগঠক রথীন চক্রবর্তী, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলার অসিত বরণ বিশ্বাস, বাসদ নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক নিখিল দাস, সিপিবি নারায়ণগঞ্জ শহর সভাপতি আবদুল হাই শরীফ, ন্যাপ জেলা সাধারণ সম্পাদক এড. আওলাদ হোসেন, গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা সমন্বয়ক তরিকুল সুজন, ওয়ার্কার্স পার্টি নারায়ণগঞ্জ জেলা সম্পাদক হিমাংসু সাহা, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা সংগঠক নাসির হোসেন, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) জেলা সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েল ও সামাজিক সঙগঠন সমমনার সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ সাহা। সমাবেশটি সঞ্চালনা করেন শাহীন মাহমুদ। সমাবেশে রফিউর রাব্বি বলেন, নারায়ণগঞ্জে রেলওয়ে, রাজউক, বিআইডব্লিউটিএ, জেলা পরিষদ, রোডস এন্ড হাইওয়ে সহ বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠানের অব্যবহৃত জমি আত্মসাতের জন্য দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় কতিপয় ভূমিদস্যু তৎপর রয়েছে। চক্রটি সিন্ডিকেট করে ইতিমধ্যে চাষাঢ়া বালুরমাঠে রাজউকের জমি সহ বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠানের বহু ভূমি আত্মসাৎ করেছে। এখন ১ না রেলগেটে ৪৭ হাজার দুইশ বর্গফুট জমি রেলওয়ের অসাধু কর্মকর্তাদরে সাথে যোগসাজসে তথাকথিত ‘রেলওয়ে কল্যাণ ট্রাস্টের’ নামে আত্মসাতের প্রক্রিয়ায় নিয়োজিত হয়েছে। তিনি বলেন, রাজউক দেশের বিভিন্ন জায়গায় জরিপ করে টেকসই উন্নয়নের জন্য নদীবন্দর সংলগ্ন ২১টি জেলায় নৌ-বন্দর, রেল-স্টেশন ও বাস-টার্মিনাল একই জায়গায় তৈরীর জন্য ডিটেল এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) প্রনয়ণ করেছে। সে পরিকল্পনায় নারায়ণগঞ্জের এই নৌ-বন্দর, রেল-স্টেশনটি ও বাস-টার্মিনালটি রয়েছে। ড্যাপের এ পরিকল্পনা সরকারের স্ট্রেটিজিক ট্র্যান্সপোর্ট প্ল্যান (এসটিপি) দ্বারাও অনুমোদিত। অথচ সরকারী প্রতিষ্ঠান হয়েও সরকারের এ পরিকল্পনাকে উপেক্ষা করে রেলওয়ের অসাধু কর্মকর্তারা অনৈতিকভাবে স্থানীয় ভূমিদস্যুদের সাথে নিয়ে এই জায়গাটি আত্মসাতের প্রক্রিয়ায় লিপ্ত হয়েছে।  অসিত বরণ বিশ্বাস বলেন, এই মার্কেটটি নির্মানের জন্য কল্যাণট্রাস্ট রাজউক বা সিটি কর্পোরেশন কারো কাছ থেকেই অনুমোদন নেয় নাই। তিনি প্রশ্ন রাখেন, অনুমতি ছাড়া সরকারী জায়গায় কী করে এভাবে মার্কেট নির্মাণ হতে পারে?  সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকারী সব প্রতিষ্ঠানের নারায়ণগঞ্জের সকল জমিই বিভিন্ন সময় নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছ থেকে রাষ্ট্রের প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য সরকার অধিগ্রহণ করেছে। কিন্তু সে প্রয়োজনে যে সব জায়গা-জমি ব্যবহৃত হচ্ছেনা তা বিভিন্ন সময় প্রতিষ্ঠানগুলোর অসাধু কর্মকর্তারা আইন ও নিয়ম বহির্ভূতভাবে বিক্রি করে দিচ্ছে। অথচ নারায়ণগঞ্জে নাগরিকদের প্রয়োজনে উন্নতমানের উচ্চতর শিক্ষ প্রতিষ্ঠান, মেডিকেল কলেজ, শিশুদের বিনোদনের জন্য পার্ক, মিউজিয়াম, চিরিয়াখানা সহ বহুকিছুই করা যাচ্ছেনা জায়গার অভাবে। বক্তারা বলেন, নারায়ণগঞ্জবাসী যে কোন মূল্যে ভূমিদস্যুদের হাত থেকে নিজেদের জমি রক্ষা করবে। দ্রুত ১ নং রেলগেটে মার্কেট নির্মাণের কাজ বন্ধের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে হুশিয়ারি উচ্চারণ করে তারা বলেন, নতুবা উদ্ভূত সকল পরিস্থিতির জন্য সরকারকে দায়ী থাকতে হবে। সমাবেশে বক্তারা যে কোন মূল্যে এই মার্কেট নির্মাণ প্রতিহত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহর প্রদক্ষিণ করে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *