আজ: শুক্রবার | ২৯শে মে, ২০২০ ইং | ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৬ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী | সকাল ৬:২৪
শিরোনাম: স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১মে থেকে ব্যাংকে স্বাভাবিক লেনদেন চলবে     না’গঞ্জে ৩১মে থেকে বিপনীবিতানসহ সকল দোকানপাট স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলছে     আড়াইহাজারে ঝোপে যুবতির লাশ উদ্ধার     দেশে একদিনে করোনা শনাক্ত ছাড়ালো ২ হাজার২৯, মৃত্যু ১৫     গত ২৪ ঘন্টায় না’গঞ্জে করোনা আক্রান্ত ৬৫জন, মোট আক্রান্ত ২৪৯০     কাশিপুরে চিকিৎসার নামে মানসিক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ,ধর্ষক আটক     বিশেষ ব্যবস্থায় সীমিত আকারে পাসপোর্ট বিতরণ শুরু করেছে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস     যুক্তরাষ্ট্রে ৪৪ বছরের যুদ্ধের প্রাণহানীর রেকর্ড ভাঙ্গলো     কথা রাখল না নেপাল,খুলে দেওয়া হলো এভারেস্টের দরজা     আইসিসি ও বিসিসিআইয়ের মধ্যে বিভেদ,কর না দিতে পারলে ভারত থেকে বিশ্বকাপ সরে যাবে    

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

১০ লাখ টাকা আমার অসচ্ছল ৫০০ ফ্যানের মাঝে বিতরণ করব অনন্ত জলিল।

ডান্ডিবার্তা | ১৯ মে, ২০২০ | ১২:৪০

করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়ার পর থেকে অসচ্ছল মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন নায়ক-প্রযোজক অনন্ত জলিল। এবার নিজের অসচ্ছল ৫০০ জন ভক্তকে ১০ লাখ টাকা ভাগ করে দেবেন তিনি। ঈদের নামাজে যাওয়ার আগেই তা গরিব মানুষর মধ্যে বিতরণ করতে হয়। ঈদুল ফিতরে ফিতরা গরিবের হক। চলতি বছরে ফিতরা জনপ্রতি সর্বোচ্চ ২২০০ টাকা এবং সর্বনিম্ন ৭০ টাকা নির্ধারণ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জাতীয় ফিতরা নির্ধারণ কমিটি। প্রতি বছরই সর্বোচ্চ ফিতরা দিতে চেষ্টা করেন অনন্ত জলিল। এবার ফিতরার টাকা থেকে ৫০০ অসচ্ছল ভক্তকে ১০ লাখ টাকা দেবেন বলে জানিয়েছেন অনন্ত জলিল।
এ বিষয়ে অনন্ত জলিল বলেন, ‘করোনার শুরু থেকেই আমি চেষ্টা করছি মানুষের পাশে দাঁড়াতে। যাঁরা লজ্জায় কারো কাছে চাইতে পারেন না, তাঁরাও আমার কাছে জানিয়েছেন সমস্যার কথা। আমি চেষ্টা করেছি সবার পাশে দাঁড়াতে। আমার কিছু ভক্ত রয়েছেন, যাঁরা অসচ্ছল। তাঁরাও আমার ফ্যান গ্রুপে কমেন্টে সাহায্য চেয়েছেন। সবাইকে তো আর সাহায্য করা সম্ভব নয়। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবারের ফিতরার টাকা থেকে ১০ লাখ টাকা আমার অসচ্ছল ৫০০ ফ্যানের মাঝে বিতরণ করব। তবে যাঁদের জমানো টাকা আছে, তারা কিন্তু এই টাকা নিতে পারবেন না।’

কীভাবে এই টাকা ভক্তরা পাবেন, জানতে চাইলে অনন্ত বলেন,-এ একটি ফরম দিয়েছি। সেটা পূরণ করে দেবেন তাঁরা। সেখান থেকেই আমরা ৫০০ ফ্যান নির্ধারণ করব। এখন অনলাইনের যুগ। টাকা ঘরে বসেই পেয়ে যাবেন সবাই।’

অনন্ত আরো বলেন, ‘সমাজের অনেকেই এগিয়ে এসেছেন অসচ্ছল মানুষের জন্য। যাঁরা এসেছেন, তাঁদের ধন্যবাদ। আমি সবাইকে বলব মহামারি হাজার বছরে একবার আসে। চাইলেও সব সময় আপনি মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারবেন না। আর মানুষেরও আপনার কাছে চাওয়ার প্রয়োজন পড়বে না। তাই সবাই নিজের সাধ্যমতো পাশের মানুষটিকে সহযোগিতা করুন। আমি দিচ্ছি, আমি জানি, এমন সব মানুষ হাত পাতছে, সাহায্য নিচ্ছে যে আপনারা কল্পনাও করতে পারবেন না। এদের সবাই দুস্থ নয়, বেশির ভাগই করোনাকালীন পরিস্থিতির শিকার। সবাই বাসায় থাকুন, সুস্থ থাকুন।’

এদিকে, সবকিছু ঠিক থাকলে আসছে ঈদুল আজহায় মুক্তি পাবে অনন্ত জলিলের সিনেমা ‘দিন—দ্য ডে’। এটি নির্মিত হয়েছে বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনায়। হলিউডি অ্যাকশন ধাঁচের এ সিনেমায় তাঁর সঙ্গে দেখা যাবে বর্ষাসহ ইরান-বাংলাদেশের অনেক শিল্পীকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *