এখনো শহর সয়লাব নির্বাচনী ব্যানার পোস্টারে

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখন পরিষ্কার করা হয়নি নির্বাচনী পোস্টার ব্যানার সহ নির্বাচনী ক্যাম্পগুলোও। এখনও শহরের মোড়ে মোড়ে রশিতে ঝুলছে পোস্টার আর তোরণগুলো। তবে সেটা আগের তুলনায় অনেক কম। গতকাল রোববার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শহরের চাষাঢ়া এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে এ দৃশ্য। শহরে মহিলা কলেজের পাশে এখনো আছে নির্বাচনী তোরণ। এর পাশে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ঝুলছে ব্যানার ও ফেস্টুন। কিছুটা সামনে গেলেই দেখা যাচ্ছে নৌকার নির্বাচনী ক্যাম্প। এছাড়াও শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের অ্যাইল্যান্ডের উপরে রশিতে ঝুলছে কাস্তে ও হাত পাখার পোস্টার। একই ভাবে দেখা গেছে শহরের উকিলপাড়া, টানবাজার, খানপুর, আমলাপাড়া, গলাচিপা সহ বিভিন্ন এলাকায়। জানা গেছে, ৩০ ডিসেম্বর সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে আওয়ামীলীগের তিনজন ও মহাজোটের মনোনীত জাতীয় পার্টির দুইজন সাংসদ নির্বাচিত হন। যার মধ্যে রূপগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী এবং আড়াইহাজার আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, সোনারগাঁ আসনে লিয়াকত হোসেন খোকা, ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ আসনে শামীম ওসমান ও শহর ও বন্দর আসনে সেলিম ওসমান। নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রচার প্রচারণায় মুখর ছিল জাতীয় পার্টির লাঙ্গল ও আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা। তাছাড়া হাত পাখা আর কাস্তে প্রতীকের কিছু প্রচারণ প্রচারণা দেখা গেলেও ধানের শীষ প্রতীকের তেমন কোন দেখা যায়নি। ফলে নগর জুড়ে সব থেকে বেশি ছিল লাঙ্গলের পোস্টার ব্যানারের পাশাপাশি নৌকার পোস্টার ব্যানার, ফেস্টুন ও নির্বাচনী ক্যাম্প। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন শেষ হওয়ার দুই দিন পর থেকে পোস্টার ও ব্যানার সহ নির্বাচনী সকল কিছু অপসারণ করার কাজ শুরু করে সিটি করপোরেশন। গত কয়েকদিন ধরে সিটি করপোরেশন পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় কাজ করছে। এর ধারাবাহিকতায় রোববারও সকাল থেকে নির্বাচনী পোস্টার ও ব্যানারের পাশাপাশি অন্যান্য ব্যানার ফেস্টুন ও উচ্ছেদ করা হয়। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সম্পূর্নভাবে পরিস্কার হওয়ার প্রত্যাশা সিটি করপোরেশনের।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *