অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে পিছিয়ে যাচ্ছে না’গঞ্জ বিএনপি

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে নেতায় নেতায় দ্বন্ধ যেন বেড়েই চলছে। নেতাকর্মীরা মনে করছেন নেতাদের এই দ্বন্ধ নিরসনের কোন লক্ষণ নেই। যে কারণে বিএনপি সাংগঠনিক ভাবে পিঠিয়ে যাচ্ছ। আর এই বিরোধের কারণেই বিএনপি অনেকটা নেতৃত্ব সংকটে ভুগছে। যারা জেলা এবং মহানগর বিএনপির দায়িত্বশীল পদে রয়েছে তাদের বেশীরভাগ নেতাকেই কর্মীরা কাছে পাচ্ছেনা। তবে বিএনপির কর্মীদেও দাবি, নেতাদের মধ্যে বিরোধনা থাকলে বিএনপি সাংগঠনিক ভাবে আরো শক্তিশালী হয়ে রাজপথ কাপাতে সক্ষম হতো। দীর্ঘ এক যুগেরও বেশী সময় ধরে ক্ষমতার বাইওে থাকা বিএনপির রাজনীতিতে এতো বিরোধ থাকলে আগামীতে বিএনপির জন্য কঠিন সময় অপেক্ষা করছে বলে মনে করছেন বিএনপির মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। তবে বিএনপিকে রক্ষা করতে হলে সুবিধাবাদী নেতাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার উদ্যোগ নিতে হবে। এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের এখনি উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন। বোদ্ধামহলের মতে, বিএনপি সাংগঠনিক ভাবে পিছিয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে নিজেদের মধ্যকার বিরোধ। এই বিরোধ মিটানো না গেলে বিএনপি সাংগঠনিক ভাবে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবেনা। বিএনপির একাধিক সূত্রে জানা গেছে, দিন যতই সামনের দিকে অগ্রসর হচ্ছে বিএনপিতে ততোই বিরোধ বৃদ্ধি পাচ্ছে। নেতাদের বিরোধের কারণে দলীয় কর্মকান্ডে অংশ নিতে এখন অনিহা দেখা দিয়েছে বিএনপির মাঠের নেতাকর্মীদের। জেলা ও মহানগর বিএনপি অনেক নেতাই এখন দলীয় কর্মকান্ডে থাকছেনা। জেলা ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছাড়া দায়িত্বশীল পদ আকড়ে থাকা নেতারা প্রায় সময়ই দলীয় কর্মসূচিতে অনপুস্থিত থাকছেন। যা এখন দলের সাধারণ নেতাকর্মীদের দৃস্টিগোচর হতে শুরু করেছে। আর এ কারণেই বিএনপির কর্মসূতিতে কমতে শুরু করেছে দলীয় নেতাকর্মীদের অংশ গ্রহণ। বিএনপির মাঠপর্যায়ের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, দলের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে দ্বন্ধ থাকায় কর্মীদের মধ্যেও বিভক্তি দেখা দিয়েছে। নেতাদের বিরোধ মিটানো না গেলে কর্মীদের বিভক্তি কমবে না। নেতাদের কারণেই বিএনপিতে বিরোধ লেগেই আছে এমন অভিযোগ কর্মীদের। রাজনৈতিক বিশ্লেষক মহলের মতে, নারায়ণগঞ্জ বিএনপির রাজনীতিতে নেতৃত্বের বিরাট একটি সংকট দেখা দিয়েছে। এই সংকট দূর করতে হলে যোগ্য এবং কর্মঠ নেতাদের হাতে নেতৃত্ব তুলে দিতে হবে। তবে বর্তমানে বিএনপি ব্যবসায়ী আর সুবিধাবাদীদের নিয়ন্ত্রণে থাকায় বিএনপিতে এই সংকটের সৃষ্টি হয়েছে। এ থেকে উত্তরণ ঘটাতে হলে মাঠ থেকে উঠে আসা নেতাদের হাতে নেতৃত্ব ছেড়ে দিতে হবে। নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি না হলে নারায়ণগঞ্জের রাজপথে আগামীতে বিএনপির কোন কর্মসূচিতে নেতাকর্মীরা থাকবে কি না এ নিয়ে মাঠ পর্যায়ের বিএনপি সমর্থকদের রয়েছে সন্দেহ।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *