নৌকা পেতে আটাইশ প্রার্থীর যুদ্ধ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

আগামী মার্চ থেকে প্রথমবারের মত দলীয় প্রতীকে শুরু হওয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চতুর্থ ও পঞ্চম ধাপে নারায়ণগঞ্জ জেলাধীন ৪টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ হলেও ৩টি উপজেলায় দলীয় প্রতীক নৌকা বাগাতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন ক্ষমতাসীন দল জেলা-উপজেলা আওয়ামীলীগ মনোনীত সম্ভাব্য ২৮ জন প্রার্থী। যার মধ্যে, চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন ১০ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরষ ও নারী প্রার্থী রয়েছেন ১৮ জন। কারন হিসেবে জানাগেছে, আগামী ৩১ মার্চ চতুর্থ ধাপে রূপগঞ্জ, সোনারগাঁ, আড়াইহাজার এবং ১৮ জুন পঞ্চম ধাপে অনুষ্ঠিতব্য বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র ৩টি পদে নৌকা প্রত্যাশী অনেক প্রার্থী থাকলেও কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জেলার ৪টি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাথে বর্ধিত সভা করে তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিতে প্রত্যেকটি উপজেলা থেকে একক থেকে সর্বোচ্চ চার জন করে নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনীত করে গত ৪ ফেব্রুয়ারী এবং ৭ ফেব্রুয়ারী ভাইস চেয়ারমান পুরুষ ও নারী পদে সর্বোচ্চ তিন জন প্রার্থী মনোনীত করে তাদের নামের তালিকা দলের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে প্রেরণ করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই ও সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল। তন্মধ্যে, শুধুমাত্র আড়াইহাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ ও মহিলা পদে একক প্রার্থীর নামের তালিকা কেন্দ্রে প্রেরণ করা হয়। ফলশ্রুতিতে, একক প্রার্থী হওয়াতে নৌকার মনোনয়ন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে আড়াইহাজার উপজেলার সম্ভাব্য তিন প্রার্থী অনেকটা নিশ্চিন্তে থাকলেও একাধিক প্রার্থীতার কারনে এখন দলীয় মনোনয়ন বাগাতে মরিয়া  হয়ে উঠেছেন বাকী তিনটি উপজেলার সম্ভাব্য প্রার্থীরা।  তৃণমূল আওয়ামীলীগের মনোনীত এই আটাইশ জন নৌকা প্রত্যাশী হলেন- রূপগঞ্জ উপজেলা: চেয়ারম্যান প্রার্থী (রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শাহজাহান ভূইয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা, আওয়ামীলীগ নেতা তাবিবুল কাদির তমাল), ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী পুরুষ (শাহরিয়ার পান্না সোহেল, এড. স্বপন ভূইয়া ও মো: আব্দুল আলীম) এবং ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মহিলা (বর্তমান উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌসী নীলা, আফরিন আক্তার ও ফেরদৌসী জান্নাত রুমা)। সোনারগাঁ উপজেলা: চেয়ারম্যান প্রার্থী (সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. শামছুল ইসলাম ভূইয়া, ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আলহাজ¦ মাহফুজুর রহমান কালাম, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন এবং জেলা আওয়ামীলীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এফবিসিসিআই পরিচালক জাহাঙ্গীর হোসেন), ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী পুরুষ (সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা ও সোনারগাঁ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক আবু নাইম ইকবাল, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল ওমর বাবু, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান শাহ আলম রূপন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক নেকবর হোসেন নাহিদ ও জামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সামসুদ্দিন খাঁন আবু), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী (বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সোনারগাঁ উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের উপদেষ্টা মাহমুদা আক্তার ফেন্সী, বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা আক্তার, উপজেলা মহিলা লীগের সাধারন সম্পাদক উর্মি আক্তার, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলেনা আক্তার ও নারী নেত্রী শ্যামলী চৌধুরী)। বন্দর উপজেলা: চেয়ারম্যান প্রার্থী (বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ রশীদ, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম আবু সুফিয়ান ও মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম), পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী  হিসেবে আলোচনায় ছিল, বন্দর থানা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুল ইসলাম জুয়েল, বন্দর থানা আওয়ামী লীগ নেতা রোমান হোসাইন, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম কাশেম, যুগ্ম সম্পাদক আক্তার হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ছিলেন, সালিমা হোসেন শান্তা, মহানগর যুব মহিলা লীগ আহ্বায়ক নুরুন্নাহার সন্ধ্যা, মাহমুদা আক্তার পান্না, মাবিয়া আক্তার। আড়াইহাজার উপজেলা: একমাত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ শাহজালাল মিয়া, পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রফিকুল আলম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ঝর্না রহমান। এরআগে, আগামী মার্চে পাঁচ ধাপে অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান পুরষ ও মহিলা প্রার্থী নির্ধারনে আওয়ামী লীগের তৃণমূলকে চার নির্দেশনা দিয়ে দলটির কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি-সাধারন সম্পাদক বরাবর চিঠি পাঠানো হয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছিল, “আওয়ামীলীগের গঠনতন্ত্রের নির্দেশনা অনুযায়ী দলটির জেলা ও উপজেলা সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকদের (৪ জন) স্বাক্ষরে প্রত্যেকটি পদের জন্য ঐক্যমত্যের ভিত্তিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে বর্ধিত সভা করে একক বা সর্বোচ্চ তিনজন প্রার্থীর নাম জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে পাঠাতে হবে। এরপর জেলা আওয়ামীলীগকে ৩ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে সংশ্লিষ্ট জেলার সব উপজেলার প্রার্থীর তালিকা আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ডাকযোগে বা সরাসরি কোনো মাধ্যমে স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে পাঠাতে হবে।” আওয়ামীলীগ সেক্রেটারীর ওই নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছিল, “কেন্দ্রে প্রেরিত তালিকার সাথে মনোনীত প্রার্থীদের নাম, ভোটার নং (১২ ডিজিট), এবং নির্বাচনী আইন, নীতিমালা ও বিধিমালা অনুযায়ী প্রার্থীদের সকল তথ্য সঙ্গে পাঠাতে হবে। তবে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি বাধ্যতামূলক। স্থানীয় সরকার নির্বাচনের মনোনয়ন দেয়ার ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি নির্বাচিত প্রার্থীর নাম ও প্রতীক বরাদ্দ করবে ইসি। আর তাদেরকে অবশ্যই আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন কিনতে হবে।” এরপর ৪ ফেব্রুয়ারী থেকে আওয়ামীলীগের ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে শুরু হয়েছিল মনোনয়ন ফরম বিতরন কার্যক্রম। যা চলে ৮ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত। নির্ধারিত এই দিনগুলোতে প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দেন নারায়ণগঞ্জের চারটি উপজেলায় তিনটি পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত সম্ভাব্য প্রার্থীরা। উল্লেখ্য, প্রাচ্যের ডান্ডি খ্যাত নারায়ণগঞ্জ জেলায় ৫টি উপজেলা রয়েছে। এগুলো হলো, নারায়ণগঞ্জ সদর, সিদ্ধিরগঞ্জ এবং ফতুল্লা থানা নিয়ে গঠিত সদর উপজেলা ও বন্দর, সোনারগাঁ, আড়াইহাজার, রূপগঞ্জ উপজেলা। পাঁচ ধাপে সারাদেশে প্রথমবারের মত দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলার ৪টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হলেও সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় মামলার কারনে এবারও স্থগিত রাখা হয়েছে সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। গত ৩ ফেব্রুয়ারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সম্ভাব্য দিন নির্ধারন করেছে নির্বাচন কমিশন। দেশের ৪৯২টি উপজেলার মধ্যে ৪৮০টি উপজেলা পরিষদে ৫ ধাপে ভোট করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। মেয়াদ অনুসারে উপজেলা পরিষদগুলোর মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলাধীন ৪টি উপজেলায় চতুর্থ ও পঞ্চম ধাপে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। তন্মধ্যে, আগামী ৩১ মার্চ চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও, আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জ উপজেলা এবং রমজানের পর আগামী ১৮ জুন পঞ্চম ধাপের নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *