প্রবাসীর জমি দখলে ভিকিসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
ফতুল্লার জামতলায় মো. আজিজুল গফফার নামে এক প্রবাসীর জমি দখলের অভিযোগে ভিকিসহ চারজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে। এ মামলায় একজনকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। তবে এই মামলার আরেক আসামি জিতুর দাবি, ক্রয়সূত্রে ওই জমির মালিক তিনি। কোন কাগজপত্র ছাড়াই তার জমি দখল করে ভোগ করছে মামলার বাদী। এদিকে মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, মামলার আসামি নুরুন্নাহারের কাছ থেকে ৬ শতাংশ ও শাহ্জাদা মিয়ার ওয়ারিশদের কাছ থেকে সাড়ে ৬ শতাংশ (মোট সাড়ে ১২ শতাংশ) জমি ক্রয়সূত্রে মালিক হন সিঙ্গাপুর প্রবাসী আজিজুল গফফার। কিন্তু এই জমিতে দুই শতাংশ জমির মালিক বলে দাবি করেন মামলার আসামি জিতু। এ ঘটনায় মামলা করা হলে আজিজুলের পক্ষে রায় হয়। পরে তিনি পাল্টা মামলা করেন যা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। এদিকে গত ২৭ মার্চ ওই জমি দখল নিতে আসে মামলার আসামি ভিকি ও জিতু। এ সময় জমির কেয়ারটেকার নাজমা বেগম তাদের বাধা দিলে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয় বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। গত বুধবার রাতে প্রবাসী মো. আজিজুল গফফার বাদী হয়ে চাঁদাবাজি, জমি দখল চেষ্টার ও কেয়ারটেকারকে হত্যার হুমকির অভিযোগ করে গুলশান সিনেমা হলে মালিক ফয়েজ উদ্দিন লাভলুর ছেলে ও ভিকি, জিতু, নুরুন্নাহার ও তার মেয়ের জামাই জাহিদুল আলম চৌধুরীকে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলাটি করা হয়। এ মামলার আসামি জাহিদুল আলম চৌধুরীকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। তবে এই মামলার আরেক আসামি জিতু দাবি করেন, ওইখানে সোয়া দুই শতাংশ জমির মালিক তিনি। জিতু বলেন, আমি ৪৫ লাখ টাকা দিয়ে সোয়া দুই শতাংশ জমি ক্রয় করি। আমার জমি আমি মাপজোপ করতে গেলে তারা মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। তিনি আরো বলেন, ১৭৯ দাগে ৬ শতাংশ জায়গা কিনছে যে আমার নামে মামলা করছে সে। আর সোয়া ২ শতাংশ কিনছি আমি। কিন্তু ওনি পুরাটাই দখল করে রাখছে। এই বিষয়ে বেশ কয়েকবার বসা হয়, মামলার বাদীর সাথে আলাপ হয়। তারা ওই জমির কোন কাগজ দেখাতে পারেনি। আমি আমার জমি দখল করতে গিয়েছি। সে যদি ওই জমির কাগজ দেখাতে পারে তাহলে এমনিতেই জমি আমি ছেড়ে দেবো। এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ পরিদর্শক রাসেল শেখ বলেন, মামলার এক আসামিকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলাটি জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *