লাঙ্গলবন্দ প্রস্তুত শুক্রবার ¯œানোৎসব

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
জগতের যাবতীয় সংকীর্ণতা ও পঙ্কিলতার আবরণ থেকে মুক্তির বাসনায় নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার লাঙ্গলবন্দের ব্রহ্মপুত্র নদে আগামীকাল শুক্রবার অষ্টমী ¯œান শুরু হবে। শুক্রবার বেলা ১১টায় শুরু হয়ে ¯œান উৎসব চলবে শনিবার সকাল ৮টা ৫৮ মিনিট পর্যন্ত। ১৮টি ¯œান ঘাটে দেশি ও বিদেশি আগত ভক্তদের ¯œান উৎসব শান্তিপূর্ণ ও নির্বঘেœ পালন করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে জানিয়েছেন লাঙ্গলবন্দ অষ্টমী ¯œান উৎসব কমিটির নেতা সরোজ সাহা, পরিতোষ সাহা। গতকাল বুধবার সরেজমিনে বন্দরের লাঙ্গলবন্দের ব্রহ্মপুত্র নদের গিয়ে দেখা গেছে, অন্যবার কচুরিপনা থাকলেও এবার সেটা দূর হয়েছে। ¯œানের পর নারী পুণ্যার্থীদের কাপড় বদলের সুব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে ঘাটগুলোর পাশে কাপড় বদলানোর কয়েকটি ছোট রুম থাকলেও চাহিদার তুলনায় অনেক কম। এছাড়াও ময়লা আবর্জনা পরিস্কার পরিছন্নতার কাজ করতে দেখা দেখে। ইতিমধ্যে সাংসদ সেলিম ওসমান ¯œান উৎসব কমিটির সাথে একাধিকবার বৈঠক করেছেন। জেলা প্রশাসক রাব্বি মিঞা জানান, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকালে পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ লাঙ্গলবন্দের ¯œান ঘাটগুলি পরিদর্শন করে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পর্কে বিভিন্ন দিন নির্দেশা প্রদান করেছেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত আছে এবং থাকবে। লাঙ্গলবন্দে ¯œান করতে আসা পুন্যার্থীদের জন্য সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হয়েছে পুরো তীর্থকেন্দ্র এলাকা। ৮টি ওয়াচ টাওয়ারের মাধ্যমে ৩ কিলোমিটার এলাকা পর্যবেক্ষন করা হবে। গতকাল বুধবার বিকেলে লাঙ্গলবন্দ তীর্থ কেন্দ্র এলাকায় ¯œানোৎসবকে কেন্দ্র করে নেয়া প্রস্তুতির সর্ব শেষ অবস্থা পরিদর্শনে এসে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বন্দর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা পিন্টু বেপারী, বন্দর উপজেলা ভূমি কমিশনার রুমানা আক্তার, পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো: মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ সার্কেল ইমরান, সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার সালেহ, ডিআইওয়ান ইন্সপেক্টর মনির, বন্দর থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃ রফিকুল ইসলাম, বন্দর থানা ওসি তদন্ত আজহার, ইন্সপেক্টর শাহাদাৎ, পল্লী বিদুৎত সমিতি ডিজিএম আশরাফুল আলম, মহানগর পূজা উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক শিখন সরকার শিপন, মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মাকসুদুর রহমান ও কামতাল তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ এসআই হারুন অর রশিদ প্রমুখ। পূর্নার্থীরা যাতে নিরাপদে ¯œান উৎসব পালন করতে পারে তবে ¯œান উপলক্ষে ৩৩টি ধর্মীয় স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সেবামূলক সংগঠন পুণ্যার্থীদের সেবা দিতে ক্যাম্প স্থাপন করা হচ্চে। এসব ক্যাম্প থেকে পুণ্যার্থীদের রান্না করা খাবার ও চিকিৎসা দেওয়া হবে। লাঙ্গলবন্দ ¯œান উৎসব কমিটির সভাপতি সরোজ সাহা জানান, এবার আড্ডা শ্যামপুর ঘাট, ললিত সাধুর ঘাট, অন্যপূর্ণ ঘাট, রাজ ঘাট, কালীগঞ্জ ঘাট, মাকুঁড়ি সাধুর ঘাট, মহাত্মা গান্ধী ঘাট, ভদ্রেশ্বরী ঘাট, জয়কালি ঘাট, রক্ষাকালী ঘাট, প্রেম তলা ঘাট, চর শ্রীরাম ঘাট, সাবদি ঘাট, বাসনকালী, শিবমন্দির ঘাট, মনোজকান্তি বড়াল ঘাট, নাসিম ওসমান ঘাট ও জগৎবন্ধু ঘাটে ¯œান করা হচ্ছে। লাঙ্গলবন্ধ ¯œান উৎসব উদযাপন পরিষদের সভাপতি সরোজ কুমার সাহা বলেন, ‘পুণ্যার্থীদের জন্য ১০০টি অস্থায়ী পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা, ৬০টি গভীর নলকূপ সহ ট্যাংকের সাহায্যে অস্থায়ী বিশুদ্ধ জল থাকবে। পুণ্যার্থীদের কাপড়ের বদলের জন্য বড় করে অস্থায়ী প্যান্ডেল করা হবে। ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ। আশা করি শান্তিপূর্ণ ভাবে ¯œানোৎসব পালন করতে পারবে ভক্তরা।’

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *