জেলা আ’লীগের শূন্যপদ পূরণে ব্যর্থ

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

আলোচিত শূণ্য ৮ পদ পূরণেই প্রায় দেড় বছর পার করে দিল নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ। আর এই পদগুলো পূরণে দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার নেপথ্যে দায়িত্বপ্রাপ্ত তিন শীর্ষ নেতার সমন্বয়হীনতাকেই দায়ী করছেন কমিটির অন্যান্য শীর্ষ নেতারা। গত বছরের আগষ্টের শেষে পূর্ণাঙ্গ কমিটির শূণ্য ৮ পদ পূরণে জেলা আওয়ামীলীগে অগ্রগতি পরিলক্ষিত হলেও এখনো পূরণ হয়নি শূণ্য পদ গুলো। যোগ্যদের পদায়নে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সিনিয়র সহ-সভাপতি ডা: সেলিনা হায়াত আইভী ও সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল। দলীয় সূত্রে জানাগেছে, তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয় তবুও যেন এখন ‘সোনার হরিণ’ হয়ে গিয়েছিল নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির শূণ্য ৮ পদ। যেই পদ গুলোতে পছন্দের ব্যাক্তিকে পদায়নে রীতিমত বাকযুদ্ধে লিপ্ত হয়ে পড়েছিলেন সংগঠনটির শীর্ষ নেতৃবৃন্দরা। ফলে পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদনের প্রায় ৮ মাস পরেও শূণ্য পদ পূরণের উদ্যোগ নিয়ে দু’দফায় ব্যর্থ হন জেলা আওয়ামীলীগের দায়িত্বপ্রাপ্তরা। পরবর্তীতে কার্যকরী কমিটির সভায় এই পদ গুলোতে যোগ্যদের পদায়নের দায়িত্ব নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সিনিয়র সহ-সভাপতি ডা: সেলিনা হায়াত আইভী ও সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদলের উপড় বর্তানো হয়। তাই জেলা আওয়ামীলীগের শূণ্য ৮ পদকে ‘সোনার হরিণ’ হিসেবেই মূল্যায়ণ করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, এই পদগুলোতে যারাই অধিষ্ঠিত হবেন, তারা কমিটির মধ্যে সবচেয়ে বেশী আলোচিত হয়ে থাকবেন। জানাগেছে, ২০১৬ সালের ৯ অক্টোবর আব্দুল হাইকে সভাপতি, ডা: সেলিনা হায়াত আইভীকে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদলকে সাধারন সম্পাদক করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের আংশিক কমিটি ঘোষণা করেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। এরপর গত বছর ২০১৭ সালের ২৫ নভেম্বর জেলা আওয়ামীলীগের ৭৫ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেয়া হলেও ৫টি পদ শূণ্য রয়ে যায়। আর কমিটিতে সহ-সভাপতি হিসেবে পদ পাওয়া খাজা রহমত উল্লাহ কমিটি ঘোষণার পূর্বেই মারা যাওয়ায় শূণ্য হয় আরেকটি পদ। তন্মধ্যে আলহাজ¦ কাউসার আহম্মেদ পলাশ জেলা আওয়ামীলীগের শ্রম কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদকের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। তারপর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার প্রায় ২ মাস পর গত বছরের ১৫ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত হয় জেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির প্রথম সভা। সেদিন সভায় ১০ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম সম্পন্ন ও শূণ্য ৮ টি পদ পূরণ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। পরবর্তীতে জেলা কমিটির শূণ্য পদে অধিষ্ঠিত হতে তদবির চালাতে থাকেন পদ প্রত্যাশীরা। কিন্তু জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের নিজ বলয়ের নেতাদের পদ গুলোতে অধিষ্ঠিত করার চেষ্টার কারনে অদ্যবধি শূণ্য পদ গুলো পূরণ করা সম্ভব হয়ে উঠেনি। তাই গত বছরের ১৫ জুলাই বন্দর ধামগড়ে থানা আওয়ামীলীগ আয়োজিত দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিষ্টার মহিবুল আলম চৌধুরী নওফেল অনুষ্ঠানের পূর্বে থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ রশীদের বাসায় মধ্যাহ্ন ভোজের সময় দলের স্বার্থে শীঘ্রই জেলা আওয়ামীলীগের শূণ্য পদ গুলো পরণে আব্দুল হাই ও বাদলকে নির্দেশনা দেন। তখন হাই ও বাদল উভয়ই নওফেলকে আশ^স্ত করেন, ‘২৯ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য জেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির দ্বিতীয় সভাতেই শূণ্য পদগুলো পূরণ করা হবে।’ যার প্রেক্ষিতে এজেন্ডা না থাকা স্বত্ত্বেও সকল সদস্যের দাবীর প্রেক্ষিতে ২৯ জুলাই দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির দ্বিতীয় সভায় শূণ্য ৮ পদ পূরণের উদ্যোগ নেন আব্দুল হাই, আইভী ও বাদল। এরপর শূণ্য থাকা ছয়টি পদের মধ্যে একটি কার্যকরী সদস্য পদে আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আনিসুর রহমান দিপুকে পদায়নের ব্যাপারে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহিত হলেও বাকী থাকা ১ টি সহ-সভাপতি, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এবং কার্যকরী সদস্য পদে আব্দুল হাই, আইভী, বাদল ও রূপগঞ্জ আসনের এমপি গোলাম দস্তগীর গাজীর নিজস্ব লোকদের পদায়নকে কেন্দ্র করে অনাপত্তিতে তুমুল হট্টগোল আর বাকবিতন্ডায় শূণ্য পদ পূরণ কার্যক্রম মুলতবি হয়ে যায়। সভা সূত্রে জানাযায়, এজেন্ডা না থাকলেও এদিন কমিটির শূণ্য পদ গুলো পূরণের প্রস্তাব তুলেন নেতৃবৃন্দরা। এরপর নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সিনিয়র সহ সভাপতি সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদলকে জেলা আওয়ামীলীগের ৮ টি পদ পূরণের বিষয়ে দায়িত্ব দেয়া হয়। শূণ্য ৮ পদে যাদের নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল সেদিন তাদের মধ্যে যেই ছয় জনের মধ্যে সভায় স্বশরীরে উপস্থিত ছিলেন দুই জন। এদের মধ্যে একজন ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপু ও অপরজন জসীম উদ্দিন। সভায় কার্যকরী সদস্য হিসেবে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আনিসুর রহমান দিপুর নাম সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। কিন্তু সিনিয়র সহ-সভাপতি ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর পক্ষ থেকে সহ-সভাপতি পদে জসীম উদ্দিন ও জিয়াউল হক কাজল এবং সেক্রেটারী আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদলের পক্ষ থেকে শরফুদ্দিন আহম্মেদসহ আরেকজনের নাম প্রস্তাবে কেউ আপত্তি না জানালেও সভাপতি আব্দুল হাইয়ের প্রস্তাবিত ব্যাক্তির নামের ক্ষেত্রেই বাঁধ সাধেন এমপিসহ বেশ কয়েকজন নেতৃবৃন্দ। আব্দুল হাইয়ের পক্ষ থেকে আব্দুল কাদির এবং জি কে শামীমের নাম প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু এতে আপত্তি করেন কার্যকরী সদস্য ও সোনারগাঁ থানা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. শামসুল ইসলাম ভূইয়া। তিনি দাবী করেন, জি কে শামীম বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। তার কাছে প্রমাণ রয়েছে সে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের পিএস ছিল। এ নিয়ে সভাপতির সাথে শামসুল ইসলাম ভূইয়ার সঙ্গে বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। এছাড়া আব্দুল কাদির সম্পর্কেও কেউ কেউ আপত্তি জানান। পাশাপাশি রূপগঞ্জ আসনের এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতিক রূপগঞ্জ উপজেলা থেকে একজনকে পদ দেয়ার দাবী জানালে তা নিয়েও সভাপতির সাথে চরম বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। এরপর চরম হট্টগোল আর বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হলে সেদিন সভার কার্যক্রম ৩১ জুলাই পর্যন্ত মুলতবি করা হয়। তারপর ৩১ জুলাই শহরের দলীয় কার্যালয়ে পুনরায় অনুষ্ঠিত কার্যকরী কমিটির মুলতবিকৃত সভা চলাকালীন সময়ে অন্য ইস্যুতে শীর্ষ নেতৃবৃন্দদের মধ্যে ফের বাকবিতন্ডা শুরু হলে এদিনও সেই শূণ্য পদ পূরণ কার্যক্রম ভেস্তে যায়। পরে এই শূণ্য ৮ পদ পূরণের লক্ষ্যে আব্দুল হাই, আইভী ও বাদলকে দায়িত্ব দেন কমিটির নেতৃবৃন্দরা। কিন্তু জেলা আওয়ামীলীগের দায়িত্ব প্রাপ্ত সেই ৩ শীর্ষ নেতা আদৌ একত্রে বসে পূর্ণাঙ্গ কমিটির শূণ্য ৮টি পদ পূরণ করতে পারেন নি। যেটিকে তাদের ব্যর্থতা হিসেবেই দেখছেন তৃণমূল।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *