হাসপাতালের সামনেই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র হিসেবে নারায়ণগঞ্জে সরকারী হাসপাতালের মধ্যে অন্যতম খানপুর ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হসপাতাল। প্রতিদিনই এখানে চিকিৎসাসেবা নিচ্ছে হাজার হাজার রোগী সাধারণ। তবে এমন একটি হাসপাতালে ও কর্মকর্তাদের থাকার জন্য সরকারী অফিসার্স কোয়ার্টার সংলগ্নে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ দেখে জনসাধারণের মাঝে দেখা দিয়েছে চরম ক্ষোভ। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আওতাধীণ ১২নং ওয়ার্ডেও সড়কটিতে দিনর পর দিন ফেলে রাখা হয়েছে আবর্জনা। বাসা বাড়ি ও আশেপাশের ঔষধ ও চায়ের দোকান সহ ব্যাঙ্গের ছাতার মত গড়ে উঠা ফাস্টফুড, রেস্টুরেন্ট এর যত্রতত্র আবর্জনা ফেলে রাখায় সড়কের বেশী অংশ জুড়েই এখন ময়লা স্তুপের  দখলে। সময় মতো এই ময়লা অপশারণ না করায় তা থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। তাই পথচারীরা নাক চেপে ধরে এই সড়কের পাশ দিয়ে চলাচল করছে। এতে করে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে হাসপাতালে আগত রোগী ও সাধারণ পথচারীদের। কিন্তু উদাসিনতায় পরিষ্কারের কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ফলে ভোগান্তির পাশাপাশি পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ পথচারী ও সাধারণ মানুষের। এ ব্যপারে স্থানীয় একজন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সরকারী অফিসার্স কোয়ার্টার সামনে ময়লা স্তুপ, দেখার কেউ নাই! সিটি কর্পোরেশনের ভ্যানে যদি সবাই ময়লা দেয়, তাহলে এইটা কোন ময়লা? দিনের পর দিন ময়লা জমায়। পাশে হসপিটাল, সামনে-পিছনে স্কুল, আশে-পাশে মিনি ফাষ্ট-ফুড। কতৃপক্ষ কি এগুলি দেখে না! এদিকে এ দুর্ভোগের ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের গ্রুপ নারায়ণগঞ্জিস্থানে প্রচার হলে সমালোচনার ঝড় উঠে। এতে সাব্বির হোসেন  হৃদয় নামে এক ব্যক্তি মন্তব্য করেছেন, সব-সময় বর্ডার সাইডে যারা থাকে তারা অবহেলিত। নাসিক ১১-১২ নংওয়ার্ড শেষ প্রান্ত। এফ রহমান খান আবিদ নামে এক ফেসবুক ইউজার লিখেছেন, এটা আজ দেখে মাথা খুব খারাপ হইয়া গেছে। আশা করি খুব দ্রুত এর ব্যবস্থা নিবে। তবে সংশ্লিষ্ট এলাকার ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকুর মুঠেছাফোনে ব্যবহৃত নাম্বারে একাধিকবার কল করা হলে সংযোগ স্থাপন না হওয়ায় মন্তব্য পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ খানপুর ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবু জাহের জানান, আমি তো নতুন এসেছি তাই এখনো হাসাপাতালের অনেক কিছুই এখনো বুঝে নিতে পারেনি। আর তাছাড়া যে ময়লার স্তুপটা হয়েছে এটা হাসপাতালে সামনে হওয়াটা খুবই দু:খজনক। এই দায়িত্বটা সিটি করপোরেশন পালন করবে। তারা যেহেতু করেনি। আমি ব্যবস্থা নিচ্ছি, তাদরেকে জানাবো। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এহতেশামুল হক বলেন, নিয়ম অনুযায়ী তো ময়লাগুলো অপসারণ করা হয়। তারপরেও যদিও কোথাও ময়লা জমে থাকে আমরা ব্যবস্থা নিব।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *