না’গঞ্জবাসীকে স্বস্তি দিতে চাই: এসপি

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা, দ্রব্যমূল্যে ঊর্ধ্বগতি, জঙ্গীবাদ ও নাশকতা প্রতিরোধে জাতীয় ও জেলা ভিত্তিক ব্যবসায়ী ও পেশাজীবী সংগঠনের সাথে মতবিনিময় সভায় পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বলেছেন, আমি খুব খুশি হয়েছি যে রমজানের পূর্বেই ব্যবসায়ীদের সাথে আমার বসার সুযোগ হয়েছে। আমি নিজেই এমন একটি আয়োজন করতে চেয়েছিলাম। ব্যবসায়ীরা এমপি মহোদয়কে সাথে আয়োজন করায় আমি অত্যন্ত আনন্দিত হয়েছি। এর চাইতেও বেশী গুরুত্বপূর্ন হলো এই নারায়ণগঞ্জের মানুষ ব্যাবসা বান্ধব মানুষ। তাদের সুখে দুঃখে পাশে থাকা আমার অন্যতম দায়িত্ব। সামনেই রমজান মাস। এই মাসে ব্যবসা বাণিজ্য, দ্রব্যমূল্য, আইনশৃঙ্খলা, সড়কের যানজট সব কিছুই অন্যান্য মাসের তুলনায় অধিক গুরুত্ব পায়। এবং ব্যবসায়ীদেরকে এই মাসে বিভিন্ন চাঁদাবাজদের মোকাবেলা করতে হয়। আমরা চাই এই নারায়ণগঞ্জকে বদলে দিতে। আর সেই দিন বদলের জন্য এমপি মহোদয় আমাদের সহায়তা করার ঘোষণা দিয়েছেন। এই নারায়ণগঞ্জ স্বাধীনতা যুদ্ধের অন্যতম ভূমিকা রেখেছিলো, এই নারায়ণগঞ্জেই ছিল বঙ্গবন্ধুর পদচারনা। আজকে সেই নারায়ণগঞ্জকে ব্যাবসায়ীরা ধীরে ধীরে উন্নতির দিকে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, নির্বাচনের পূর্বে নারায়ণগঞ্জ আশুলিয়া সহ বিভিন্ন স্থানে শ্রমিকদের উস্কে দিয়ে অশান্তি সৃষ্টি করার পায়তারা যারা করেছিলো, আমরা তাদেরকে রুখে দিয়েছি। একই সাথে নারায়ণগঞ্জের ব্যাবসায়ীরা শ্রমিকদের স্বার্থ বিবেচনা করেই ব্যবসা করেন বলে আমরা মনে করি। আজকে আমরা এখানে একত্রিত হয়েছি রোজায় নারায়ণগঞ্জবাসীকে স্বস্তি দিতে। আমাদের হাজার হাজার পুলিশ সদস্য আপনাদের নিরাপত্তা দিতে প্রস্তুত থাকবে। আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীকে স্বস্তি দিতে চাই এবং সেই লক্ষেই কাজ করছি। আপনারা যাতে অনায়াসে ব্যবসা করতে পারেন সেটিও দেখার দায়িত্ব আমাদের। পুলিশ সুপার আরো বলেন, সম্প্রতি যানজট নিরসনে চাষাঢ়া থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত ৪৬টি কাটা ডিভাইডার আমরা বন্ধ করে দিয়েছি। এর ভেতর ৮ থেকে ১০ টি খোলা রাখা আছে যেগুলো গুরুত্বপূর্ন। আপনাদের ব্যাবসায়ীদেরই কেউ কেউ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের সুবিধার্থে এগুলো খুলে রেখেছিলেন। আমরা বার বার গণপূর্তকে বলেছি কিন্তু তারা আমলে নেয়নি। পরবর্তীতে আমরাই নিজ উদ্যোগে তা বন্ধ করেছি। আমরা ফুটপাত থেকে হকার, অবৈধ পার্কিং, অবৈধ স্ট্যান্ড উচ্ছেদের চেষ্টা চালিয়েছি। কিন্তু এসব পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব নয়। আপনারা যারা বাস মালিক আছেন তাদেরকে বলবো রাস্তায় বাস রাখবেন না। এতে করে মানুষের দুর্ভোগ হয়। আলোচিত এ পুলিশ সুপার বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন সময় লক্ষ্য করেছি কিছু কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নিজ ব্যবসার পাশাপাশি অবৈধ ও অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে যায়। আমরা অনুরোধ করব ব্যবসায়ী নেতাদের তাদের যেন এসকল কর্মকান্ড থেকে সরে আসার নির্দেশ দেয়া হয়। আর যে তা শুনবে না তাদের বিষয়ে আমাদের তথ্য দিবেন। আমার দরজা আপনাদের জন্য খোলা থাকবে।’গতকাল সোমবার রাতে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের বিপরীত পাশে বিএসবিএল কমার্শিয়াল কমপ্লেক্সে এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *