শহরের স্কুলগুলো এবারও শীর্ষে

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ হাজার ৪৫ জন। মর্গ্যান গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৪২ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৪২৬ জন। পাশের হার ৯৬ দশমিক ৩৮। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৭ জন। নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২৭০ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২৬২ জন। পাশের হার ৯৭ দশমিক ০৪। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৭ জন। বিবি মরিয়ম গার্লস হাইস্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২২৯ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২১০ জন। পাশের হার ৯১ দশমিক ৭০। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৩ জন। নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমীতে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৩৫ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২৭৯ জন। পাশের হার ৮৩ দশমিক ২৮। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৭ জন। আদর্শ স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪৯৯ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৪৭৬ জন। পাশের হার ৯৫ দশমিক ৩৯। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৩৩ জন। গণবিদ্যা নিকেতনে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৪১৩ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ২৭৩ জন। পাশের হার ৬৬ দশমিক ১০। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ জন। নারায়ণগঞ্জ সরকারি গার্লস হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩৭৭ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৭৬ জন। পাশের হার ৯৯ দশমিক ৭৩। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১২৬ জন। নারায়ণগঞ্জ গার্লস হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৭২ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১৫০ জন। পাশের হার ৮৭ দশমিক ২১। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৩ জন। বেগম রোকেয়া খন্দকার পৌর হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৮৫ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩৯ জন। পাশের হার ৭৫ দশমিক ১৪। কেউ জিপিএ-৫ পায়নি। এরিবস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৫০ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৪০ জন। পাশের হার ৮০ দশমিক ০০। কেউ জিপিএ-৫ পায়নি। আইইটি সরকারি হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩২৭ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ৩০৮ জন। পাশের হার ৯৪ দশমিক ১৯। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪৪ জন। জয়গোবিন্দ হাই স্কুলে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৩৯ জন, উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩৬ জন। পাশের হার ৯৭ দশমিক ৮৪। কেউ জিপিএ-৫ পায়নি।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *