ঈদকে ঘিরে মৌসুমী অপরাধীরা তৎপর

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
পবিত্র রমাজন মাসের শুরুতেই যানজট, নৃত্য প্রয়োজনী পণ্যের মূল বৃদ্ধি, খাদ্যে ভেজালসহ নানা ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হয় নারায়ণগঞ্জেবাসীদের। এছাড়াও ঈদকে সামনে রেখে জেলায় অপরাধ বাড়ছে। এ নিয়েও নগরবাসী এখন শংকিত। মৌসুমী অপরাধীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে ছিনতাইকারী, জাল টাকা চক্র, অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টির সদস্যদের। ঈদকে ঘিরে জেলা জুড়ে এসব অপরাধীরা ছদ্মবেশ ধারন করে নানা অপরাধের সাথে জড়িয়ে পরেছে। এসব অপরাধের সাথে অনেক ভদ্রবেশী অপরাধীরাও রয়েছে। বেড়েছে পকেটমার ও ছিনতাইকারীদের তৎপরতাও। ঈদকে ঘিরে অপরাধীদের তৎপরাতায় শঙ্কিত হয়ে পরেছে সাধারন মানুষ। অন্যদিকে, ঈদকে ঘিরে মাদক ব্যবসায়ীরাও সক্রিয় রয়েছে। গুঞ্জন চলছে, ঈদের আগে মাদক মজুদ করার চেষ্টা করছে মাদক ব্যবসায়ীরা। তবে অপরাধ দমনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও সক্রিয় রয়েছে। পোশাকি ছাড়া সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাদের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। তবে অপরাধীদের ধরতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও ছদ্মবেশে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান করছেন। ইতিমধ্যে ফতুল্লা ও সদর মডেল থানায় নারীসহ বেশ কয়েজন ছিনতাইকারী গ্রেফতার হয়েছে। এছাড়াও মাদক রুখতে জেলা জুড়ে চলছে পুলিশের বিশেষ অভিযান। তবে পুলিশের কঠোরতায়ও ঈদকে সামনে রেখে মাদক ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটগুলো পৃথক পৃথক ভাবে সক্রিয় হয়ে উঠে। ঈদের আগে অভিনব কৌশলে মাদকের বড় বড় চালান নিয়ে আসা হয় নারায়ণগঞ্জে। বিগত দিনের ন্যায় এবারও মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে প্রস্তুতি চলছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানাগেছে। তবে অপরাধীদের দমনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ভিন্ন ভিন্ন কৌশলে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে বলে পুলিশের একাধিক সূত্রে জানাগেছে। এদিকে, জেলা জুড়ে মাদক বিরোধী অভিযান প্রায় তিন শতাধিক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হলেও গ্রেফতারকৃত প্রায় সকলেই তৃতীয় ও চতূর্থ শ্রেনীর মাদক ব্যবসায়ী। জেলার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীরা রয়েছে এখনো অধরা। অনেকটা আত্মগোপনে থেকেই ঈদকে সামনে রেখে মাদক মজুত করছে মাদক ব্যবসায়ীরা। জানাগেছে, ঈদ আসলেই ছিনতাইকারী, জাল টাকা চক্র, অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টির সদস্যরা তৎপর হয়ে উঠেন। ছিনতাইকারীরা সাড়া বছরই সক্রিয় থাকলেও পবিত্র রমজান মাসে তাদের তৎপরতা বেড়ে যায়। কিন্তু জাল টাকা চক্র, অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টির সদস্যরা হল মৌসুমী অপরাধী। ঈন আসলেই এদের তৎপরতা দেখা যায়। গত কয়েকদিনে পুলিশের অভিযানে ছিনতাইকারী গ্রেফতার হলেও জাল টাকা চক্র, অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টির সদস্যরা রয়েছে অধরা। কেননা এরা ভদ্রবেশে নিজেদের কার্যক্রম পরিচালনা করে। তাই ঈদকে সামনে রেখে অপরাধ নিয়ন্ত্রনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আরো কঠোর অবস্থানে থাকার পাশাপাশি অপরাধ নিয়ন্ত্রনে কৌশলীও হওয়ার আহবান জানিয়েছেন অপরাধ বিশ্লেষকরা।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *