রবিবার বন্দর উপজেলার নৌকার মাঝি নির্ধারণ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
আগামী ১৮ জুন অনুষ্ঠিত হবে বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে আগ্রহী প্রার্থীদের ভাগ্য নির্ধারণ হবে দুই দিন পর। আগামী রবিবার বিকেলে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় নির্ধারিত হবে কে পাচ্ছেন বন্দর উপজেলায় নৌকা প্রতীক। এই উপজেলায় চূড়ান্ত তিন প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। দলীয় সূত্রে জানা যায়, গত ৩১ জানুয়ারি বন্দর থানা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় উপজেলা নির্বাচনের জন্য বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশীদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান ও মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ সালামের নাম চূড়ান্ত করে ৩ জনের তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়। মদনপুরের ফুলহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হলরুমে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদলের উপস্থিতিতে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। চূড়ান্ত এই তিন প্রার্থীদের মধ্য থেকে একজনকে মনোনয়ন দেবে কেন্দ্র। এদিকে মাঠ পর্যায়ে তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে সরব থাকার মধ্য দিয়ে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে আছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান। তৃনমূলের সমর্থন পাওয়ার পর থেকে বন্দরের অলিগলি চষে বেড়াচ্ছেন সুফিয়ান। দলীয় মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড তুলে ধরে সিটি কর্পোরেশনের মতোই বন্দরের উন্নয়ন হবে বলে স্বপ্ন দেখাচ্ছেন বন্দরবাসীকে। অপরদিকে বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ রশিদও নৌকার অন্যতম দাবিদার। তবে বেশ কয়েকবার উপজেলায় প্রার্থী হলেও জয়ের মুখ দেখতে পারেননি প্রবীণ এই আওয়ামী লীগ নেতা। তাই তৃনমূলের প্রার্থীদের তালিকায় নাম থাকলেও নির্বাচনী মাঠে নেই তিনি। আরেক তৃনমূলের প্রার্থী মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ সালামও মনোনয়নের দাবিদার। তবে উপজেলা নির্বাচনের এই প্লাটফর্মে লবিংয়ের দিক থেকে পিছিয়ে আছেন বন্দর থানা ছাত্রলীগের এই নেতা। প্রসঙ্গত, গত ৯ মে বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ২১ মে, যাচাই-বাছাই ২৩ মে, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩০ মে। প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ৩১ মে। প্রতীক বরাদ্দের দিন থেকেই প্রার্থীরা প্রচারণা শুরু করতে পারবেন। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১৮ জুন। এই নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাসুম বিল্লাহ। বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ইভিএমএ অনুষ্ঠিত হবে। গত ৯ মে তফসিল ঘোষণার পরদিন থেকে মনোনয়নপত্র বিক্রি শুরু হয়। ইতিমধ্যে অনেক প্রার্থীই মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *