বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকলে জঙ্গীবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠে : মন্ত্রী গাজী

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত জোট দেশে আবারও জঙ্গীবাদের উত্থান ঘটাতে চায়। তারা বাংলাদেশকে জঙ্গী ও সন্ত্রাসী দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে এখনো মরিয়া। তারা চায় বাংলাদেশ পাকিস্তানের মত জঙ্গী রাষ্ট্র হোক। গতকাল শনিবার বিকালে রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বগ্রাম বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা, ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কঠোর হস্তে জঙ্গীবাদ দমন করেছেন বলেই দেশের মানুষ শান্তিতে রয়েছে উল্লেখ করে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বলেন, সন্ত্রাস-জঙ্গীবাদ কখনও মানুষের জন্য কোনও কল্যাণ বয়ে আনতে পারে না। এ ধরনের ঘৃণ্য কাজের সঙ্গে কোনও মানুষ যেন জড়িত না হয়। আমরা চাই না এ ধরনের সন্ত্রাসী ঘটনা পৃথিবীর কোথাও ঘটুক। তিনি আরও বলেন, সন্ত্রাসী ও জঙ্গীদের কোনও দেশ ও ধর্ম নেই। জঙ্গী জঙ্গীই; সন্ত্রাসী সন্ত্রাসীই। যারা সন্ত্রাসী-জঙ্গী তাদের কোনও ধর্ম নেই। কোনও দেশ-কাল-পাত্র নেই। বাংলাদেশ এখন উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ দেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নের যে লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে তার সুফল পাচ্ছে জনগণ। দেশ এখন উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে। দেশের সকল শ্রেণির মানুষ এই উন্নয়নের সুফল ভোগ করছে। কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ জাহেদ আলীর সভাপতিত্বে ও আওয়ামী লীগ নেতা শ্রী রবি রায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান খান, আওয়ামী লীগ নেতা মতিউর রহমান আকন্দ, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল হাসান তুহিন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মেহের, সাধারণ সম্পাদক নাঈম ভুঁইয়া, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বিউটি আক্তার কুট্টি, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল আলম সিকদার, সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ মাসুম, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মহিউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন প্রমুখ।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *