এম এ রশিদের পক্ষে থাকবেন সুফিয়ান

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
আসন্ন বন্দর উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশিত আবু সুফিয়ান মনোনয়ন পাননি। তবে মনোনয়ন না পেলেও দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে যাবেন না; নৌকার প্রার্থীর পক্ষেই নির্বাচনে কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। একেএম আবু সুফিয়ান জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। গতকাল রবিবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে দলটির স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের এক সভায় বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ রশীদকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়া হয়। প্রতিক্রিয়ায় মনোনয়ন বঞ্চিত একেএম আবু সুফিয়ান বলেন, ‘একজন নৌকার কর্মী হিসেবে আমি সবসময় নৌকার পক্ষেই থাকবো। মনোনয়ন পাইনি বলে মনে কোন খেদ নেই। আমি সবসময় আওয়ামী লীগের লোক।’ তিনি আরো বলেন, ‘দলের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। নেত্রী যাকে যোগ্য মনে করেছেন তাকেই দিয়েছেন। এতে আমার কোন দ্বিমত নেই।’ নৌকার জয়ের ব্যাপারে তিনি মন্তব্য করেন, ‘আমি নৌকার কর্মী আমি নৌকা ছাড়া কিছু বুঝতে চাই না। নৌকার জয় হবে।’ গত ৩১ জানুয়ারি বন্দর থানা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় উপজেলা নির্বাচনের জন্য বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশীদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান ও মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ সালামসহ ৩ জনের তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়। সেই তালিকা থেকেই এমএ রশীদকে চূড়ান্তভাবে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ৯ মে বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ২১ মে, যাচাই-বাছাই ২৩ মে, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩০ মে। প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ৩১ মে। প্রতীক বরাদ্দের দিন থেকেই প্রার্থীরা প্রচারণা শুরু করতে পারবেন। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১৮ জুন। এই নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাসুম বিল্লাহ। বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ইভিএমএ অনুষ্ঠিত হবে।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *