গাঁ বাঁচিয়ে চলছে আ’লীগের শীর্ষ নেতারা

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর নারায়ণগঞ্জে অনেকটা গাঁ বাঁচিয়ে চলছে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা । মহান স্বাধীনতা দিবস, মহান মে দিবস কিংবা পবিত্র রমজান মাসেও দলীয় ভাবে কোন কর্মসূচী পালন করেনি জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচ নের পূর্বে নেতাকর্মীরা রাজপথে সক্রিয় থাকলেও পরবর্তীতে তারা রাজপথের বাইরে চলে যায়। রাজনীতির মাঠে অবস্থান না নিয়ে বাইরে অবস্থান করছে। তবে মাঝে মধ্যে বিভিন্ন সমাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন আওয়ামী লীগের বেশ কিছু নেতা। তবে রাজপথে নামার অনীহার কারণে শীর্ষ নেতাদের নিয়ে দলের তৃনমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে। নতুন করে হিসেব কষতে শুরু করেছে সাধারন নেতাকর্মীরা। তবে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাদের রাজপথ থেকে সরে যাওয়া নিয়ে কর্মীদের মধেও কিছুটা হতাশা কাজ করছে। নেতাদের কাছ থেকেও কোন আশারবানী শুনছে না কর্মীরা। জানাগেছে, গত ১০ জানুয়ারী চাষাড়া শহীদ মিনারে সংবাদ সম্মেলন করে নারায়ণগঞ্জকে অপরাধ মুক্ত করার ঘোষনা দিয়ে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছিলেন। পুলিশের সেই অভিযানে ক্ষমতাসীন দলের বির্তর্কিত নেতারাই বেকায়দায় পড়ে যান। তাই শীর্ষ নেতারাও রাজনীতিতে অনেকটা নিশ্চুপ থেকে নিজেদের গুটিয়ে নিয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের মাঠ পর্যায়ের বেশ ক’জন নেতা জানান, নারায়ণগঞ্জের ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের রূপ পরিবর্তন হতে শুরু করেছে। নতুন করে রাজনৈতিক হিসেব কষতে শুরু করেছে বিভিন্ন স্তরের নেতারা। তবে দলের কর্মী সমর্থকদের অবস্থা কী হবে এ নিয়ে কোন নেতাই চিন্তা করছে না বলে ওই কর্মীদের অভিযোগ। এদিকে জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা কী কারনে রাজনীতি কিংবা রাজপথের বাইরে চলে যাচ্ছে এ নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষক করছে দলের মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে কর্মীদের ভাগ্যের পরিবর্তন না হলেও অনেক নেতাই গত দশ বছরে ভাগ্যের পরিবর্তন করেছেন। সাধারণ মানুষের জমি দখলসহ নানা অপকর্ম করে আঙ্গুল ফলে কলাগাছ বনে গেছেন অনেকেই। এতোদিন অপকর্ম করে দাপটের সাথে থাকলেও পুলিশের বিশেষ অভিযানে সেই বির্তর্কিত নেতারা রেহাই পাচ্ছেন না। তাই বিতর্কিতদের বর্তমান অবস্থা দেখে শীর্ষ নেতারাও রয়েছেন নিশ্চুপ। অভিযোগ রয়েছে, শীর্ষ নেতাদের শেল্টারে থেকেই বিতর্কিতরা নানা অপকর্ম করেছেন। আর অপকর্মের মাধ্যমে অর্জিত অর্থের ভাগ পেতেন শীর্ষ নেতারা। তাই অনেকটা গাঁ বাঁচিয়ে রাজনীতির মাঠে রয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারা। এছাড়াও দলের শীর্ষ পদধারী অনেক নেতাই রয়েছেন কর্মীশূণ্য। কর্মী না থাকায় রাজনীতিতে নিজেদের অবস্থান জানান দিতে পারছেন না। তাই অনেকে নিশ্চুপ রয়েছেন।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *