পানির নিচে চৌরাপাড়া কবরস্থান

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
বন্দর ২৪ নং ওয়ার্ডের দেউলী চৌরাপাড়া কবরস্থানটি জলাবদ্ধতা সহ নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়েছে। এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী ও ২৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফজাল হোসেন একাধিকবার এ কবরস্থান সংস্কার ও উন্নয়ন কাজের আশ্বাস দিয়েও তা বাস্তবায়ন করেনি বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। যেকারণে হতাশার চাদরে ঢাকা পড়ছে এলাকাবাসীর প্রত্যাশাগুলো। গতকাল বুধবার বন্দর উপজেলার দেউলীর চৌরাপাড়া কবরস্থান এলাকা সরেজমিনে ঘুরে নানা তথ্য পাওয়া গেছে। স্থানীয়দের অভিযোগে জানাগেছে, আশেপাশের ৩-৪টি এলাকার জন্য ব্যবহৃত চৌরাপাড়া কবরস্থানের জলাবদ্ধতা সমস্যা দীর্ঘদিনের। প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় ধরে এই কবরস্থানে জলাবদ্ধতা সংকট দেখা দিয়েছে। কিন্তু এ সংকট নিরসনে কারো সহায়তা এখনো পায়নি এলাকাবাসী। মৃত ব্যক্তির জন্য কবর খুঁড়লে পানিতে কবর তলিয়ে যায়। এই অবস্থায় কবর দিতে হলে লাশের নিচে কলাগাছ ও বাল দিয়ে কবর দিতে হয়। তারপরও লাশের রক্ত ভেসে বেরিয়ে আসে। এভাবেই লাশ দাফন কাজ চলছে। এই সংকটের ফলে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী একাধিক বার এই কবরস্থান পরিদর্শন করে সংস্কার ও উন্নয়ন কাজের আশ্বাস দেন। স্থানীয়রা আরো বলেন, একটু বৃষ্টি হলেই কিংবা বর্ষ মৌসুমে এই কবরস্থানে হাটু থেকে বুক পর্যন্ত পানিতে তলিয়ে যায়। যেকারণে কবরস্থান ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এছাড়া অত্র এলাকায় কোন বিকল্প ব্যবস্থা নেই। এ নিয়ে জনপ্রতিনিধিদের কোন মাথা ব্যথা নেই। আর মেয়র আইভী একাধিকবার সংস্কার কাজ ও উন্নয়ন কাজের আশ্বাস দিয়ে তা রাখেনি। মেয়র আইভী বলয়ের কিছু নেতারা আছে যাদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি, কবরস্থানের কাজের টেন্ডার হয়ে গেছে। কিন্তু কবে নাগাদ এর কাজ শুরু হবে তা বুঝতে পারছিনা। এ বিষয়ে জানতে চাইলেই বলা হয়, শিঘ্রই এর কাজ শুরু হবে। কিন্তু আদৌ কোন কাজ হচ্ছেনা। দেউলী বড় সমাজ মসজিদ কমিটির মোতাওয়াল্লী মো. ইমরান হাসান বলেন, আশেপাশের ৩-৪ মসজিদের অধীনে বসবাসকারী লোকজনদের এই কবরস্থানে দাফন করা হয়। তবে জলাবদ্ধতার কারণে কবর দেয়া যায়না। এ নিয়ে নানা সংকট তৈরি হচ্ছে। এই দূরাবস্থা দেখে মেয়র আইভী এই কবরস্থানের সংস্কার ও উন্নয়ন কাজের আশ্বাস দিয়েছেন একাধিকবার। শুধু তাই নয়, ২৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফজাল হোসেনও বিভিন্ন সময় এখানে এসে কবরস্থানের সংস্কার ও উন্নয়ন কাজের ঘোষণা দিয়ে তা বাস্তবায়িত করেনি। এতে আমাদের এই কবরস্থানটি নিয়ে কোন কাজের অগ্রগতি হচ্ছেনা। এলাকাবাসী শাহআলম, মানিক, জাহাঙ্গির, মো. মোরশেদ আলম সহ স্থানীয় অনেকে এ বিষয়ে নানা তথ্য দিয়েছেন। তবে সবার বক্তব্যে হতাশার ছাপ দেয়া গেছে। তাই এলাকাবাসী দ্রুতই এই কবরস্থানের সংস্কার কাজ ও উন্নয়ন কাজের জন্য জনপ্রতিনিধিদের কাছে আকুল আবেদন করেছেন।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *