ঈদের জামাতে মমতা

কলকাতার রেড রোডে এবারও ঈদের জামাতে গিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। বুধবার তার ঈদের ভাষণেও ছিল বিজেপি-র বিরুদ্ধে বার্তা। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে রেড রোডে ঈদের জামাতে প্রতি বছরই যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ বছরও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তবে এ বার তার ভাষণের বয়ান কিছুটা ব্যতিক্রমী শুনিয়েছে। অন্যান্য বছর শুধুমাত্র সামাজিক বিষয় নিয়েই কথা বলেন মমতা। সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা জানান। কিন্তু এ বছর তার সংক্ষিপ্ত ভাষণে রাজনীতির ছায়া ছিল গাঢ়।

বুধবার শুভেচ্ছা বার্তা দেয়ার মাধ্যমেই শুরু হয়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাষণ। তিনি বলেন, আপনাদের পরিবার, আপনাদের ভবিষ্যৎ, আপনাদের সমাজ, আপনাদের সংস্কার, আপনার রাজ্য, আপনার দেশ, সারা বিশ্বে ইনশাল্লাহ আপনাদের জন্য ঈদ খুশির হয়ে উঠুক। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাষণ চলাকালীন বৃষ্টিও চলছিল কয়েক পশলা।

বৃষ্টি দেখেই স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে তিনি বলেন, এই বৃষ্টি শান্তির বৃষ্টি, এই বৃষ্টি বলছে যে, আকাশও আপনাদের সঙ্গে রয়েছে। আপনারা ভয় পাবেন না। আপনারা ভাল থাকুন, আপনারা এগিয়ে চলুন, আপনারা মানবতার জন্য কাজ করুন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ‘ভয় পাবেন না’ মন্তব্য নিয়েই নানা জল্পনা তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক শিবিরে। ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাশে নিয়ে এ দিন রেড রোডের অনুষ্ঠানে নাতিদীর্ঘ ভাষণে অনেকবারই ভয় না পাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। কারা ভয় পাবেন, কাকে ভয় পাবেন, কেনই বা পাবেন? সে সব প্রসঙ্গে ভেঙে কিছু মমতা বলেননি। তার জেরেই গুঞ্জন আরো বেড়েছে নানা শিবিরে।

মুখ্যমন্ত্রী এ দিন বলেন, এই ঈদ আপনাদের জীবনে নতুন সকাল আনবে। কেউ রুখতে পারবে না। কেউ যদি বাধা দেন, তা হলে তার জন্য দুঃখিত।

তিনি বলেন, আপনারা একটা কথা অবশ্যই বুঝবেন, আপনারা বাংলার বিষয়ে যে সাহায্য করেছেন, যে আশীর্বাদ-শুভেচ্ছা দিয়েছেন, তার জন্য বাংলার পরিবারের তরফ থেকে আমি কৃতজ্ঞ। আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, একসঙ্গে থাকার জন্য, একতার জন্য, ধর্মনিরপেক্ষতার জন্য, দেশের পরম্পরার জন্য, আমাদের রাজ্যের পরম্পরার জন্য… আপনারা সব সময় সাহায্য করেন।

এর পরে আরো তাৎপর্যপূর্ণভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, যদি আপনারা সবাই সঙ্গে থকেন, তা হলে দেখবেন আমরা কী ভাবে লড়ি। আমরা লড়ব। ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই।

তিনি বলেন, যে ভয় পায়, সে মরে। যে লড়ে, সেই সফল হয়।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *