বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে: ডিসি লেখাপড়া করে বাবা-মায়ের মুখ উজ্জল করতে হবে

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদানের কথা আমরা কখনো ভুলতে পারবো না। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি স্মরণে খেলা ধুলার আয়োজন করা হয়েছে। কিন্তু এর মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে বঙ্গবন্ধুর অবদান শিক্ষার্থীদের মাঝে তুলে ধরতে হবে। কারণে শিক্ষার্থীরাই আগামীর ভবিষ্যত। দেশের জন্য বঙ্গবন্ধু কত কি করেছেন ও তার কতটুকু অবদান এসকল বিষয় তাদেরকে জানতে হবে। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর পাশাপাশি বঙ্গমাতারও অবদান দেশে কোন অংশে কম নহে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে প্রাথমিক বিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ফতুল্লার কাশিপুর হাটখোলা খেলার মাঠে এ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন বলেন, খেলাধুলা উদ্বোধন করতে এসেছি এখানে বক্তব্য দেওয়ার তেমন কিছুই নাই। তার পরেও বললে বলতে হয়। আগামী দিনের ভবিষ্যত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদানের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখলে চলবে না। শিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলার উপর উৎসাহ দিতে হবে। ভাল ভাবে লেখাপড়া করে নিজের স্কুলের সুনাম করতে হবে। বাবা মায়ের মুখ উজ্জল করতে হবে। সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার নাহিদা বারিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম সাইফউল্লাহ বাদল, সদর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মনিরুল হক প্রমুখ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নওশেদ আলী, আলীরটেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মতি, কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোমেন শিকদার, ফতুল্লা থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ মান্নান, কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য শামীম আহম্মেদ, মেজবাউর রহমান, পলাশ, কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আতাউর রহমান আতা, ফতুল্লা থানা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রায়হান শরীফ বিন্দু, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহাদাত হোসেন শ্যামলসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। টুর্নামেন্টে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার মোট ২০টি দল অংশগ্রহণ করবে। এদের মধ্যে ১০টি মেয়েদের ও ১০টি ছেলেদের দল। আর উদ্বোধনী খেলায় অংশগ্রহণ করেন আলীরটেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (মেয়ে) বনাম ভোলাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (মেয়ে)। খেলায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে করে আলীরটেক স্কুলকে ১-০ গোলে হারিয়ে বিজয়ী হয় ভোলাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। অন্যদিকে, ডিগ্রিরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (ছেলে) বনাম কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (ছেলে) খেলায় অংশগ্রহণ করে। নির্ধারিত সময়ে গোল না হওয়ায় ট্রাইফিকারে কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বিজয়ী হয়।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *