জাহের মোল্লার সম্পত্তি গিলে খেতে চায় কাশেম মোল্লা

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
সোনারগাঁয়ের হাবিবপুরে পৈত্রিক সম্পত্তি জোর-জবর দখলের পায়তারার বিরুদ্ধে ছোট ভাই আবু জাহের মোল্লা কর্তৃক অপর ভাই কাশেম মোল্লার বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এ বিষয়টি নিয়ে যে কোন সময় দাঙ্গা হাঙ্গামার আশংকা করা হয়েছে। বাদীর লিখিত অভিযোগে জানান, সোনারগাঁ থানাধীন হাবিবপুর মৌজাস্থিত এস এ-৬৫, ২৪৪ দাগে ১৩ শতাংশ(মার্কেট) নিয়া বিরোধ চলে আসছে॥ উক্ত বিরোধের জের ধরে অপর সহোদর ভাই আবু কাশেম মোল্লা (৫৫) বিভিন্ন সময়ে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে এবং জোর পুর্বক সম্পত্তি দখলের পায়তারা করে আসছেন। এ ব্যাপারে এলাকায় সালিশী সভা হয়। এরপর ও বিবাদীরা তাল বাহানা করে সম্পত্তি জবর দখলের পায়তারা করে আসছেন। এব্যাপারে বাদী আবু জাহের মোল্লা আশংকা প্রকাশ করছেন বিবাদীরা তাদের অপর সহয়োগিদের নিয়ে টালবাহা করে সম্পত্তির অংশ তাদেরকে না বুঝিয়ে দিতে ষড়যন্ত্র করে আসছেন। এ বিষয় নিয়ে দাঙ্গ হাঙ্গামা হতে পারে আশংকা করে আুবু জাজের মোল্লা বাদী হয়ে গত ২৭ জুন সোনারগাঁ থানায় আবু কাশেম মোল্লাকে বিবাদী করে সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এ ব্যাপারে গত ২৯জুন নোনারগাঁ থানা হতে কাঃ বিঃ ১৬০ ধারায় উভয় পক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একটি নোটিশ প্রদান করা হয়। এ বিষয়ে গত ১ জুন সোনারগাঁ থানায় হাজির হতে বলা হয়। এরপর ও বিবাদী পক্ষ কোন প্রকার কর্ণপাত না করে সম্পত্তি জবর দখলের পায়তারা করে আসছেন। এতে করে যে কোন সময় দাঙ্গা-হাঙ্গামা হতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করা হয়েছে। এলাকার একটি সূত্র জানায় প্রায় ৫ কোটি টাকার সম্পত্তি নিয়ে ৩ ভাইয়ের মধ্যে গত প্রায় ৩ বছর যাবত বিরোধ চলে আসছে। এ ব্যাপারে এলাকায় একাধিকবার বিচার-সালিশী সভা হলে ও এর কোন প্রতিকার হয়নি । ছোট ভাই জাহের মোল্লার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামল দিয়ে জেল খাটানো হয়েছে জানা গেছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল সোমবার সকাল ১১ টায় মুসাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মাসুদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং উভয় পক্ষকে নিয়ে কাশেম মোল্লার দোকানে বসে উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার জন্য বলেন এবং মিমাংসার তারিখ ধার্য করে দেন্। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টি নেতা মোঃ মনির হোসেন, জেলা যুব শ্রমিক লীগের সাংঘটনিক সম্পাদক গাজী মোঃ লিটন, মোঃ হাজী নুরুজ্জামান, হুমায়ূন প্রধান, আতাউর রহমান, মোঃহেলাল উদ্দিন আলমগীর সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিগন।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *