ন্যায় বিচারের প্রত্যাশায় প্রহর গুনছে দুই পা হারানো রতন

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি
শহরের চাষাড়া আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে বোমা হামলায় দুই পা হারানো রতন দাস খুনীদের বিচারের আশায় মনে প্রচন্ড ব্যাথা নিয়ে দিন কাটাচ্ছে। ২০০১ সালের ১৬ জুন বোমা হামলায় ২০ জন নিহত এবং শামীম ওসমানসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়। আহত চন্দনশীল ও রতন দাস দুই পা হারিয়ে এখনো বুকে প্রচন্ড কষ্ট চেপে মামলার রায় ঘোষনার প্রতিক্ষা করছেন। ইতিমধ্যে গত ৩ জুলাই অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ শাহ মোহাম্মদ জাকির হাসানের আদালতে রতন দাসসহ ৩ জনের স্বাক্ষ গ্রহণ করা হয়। এ মামলায় এ পর্যন্ত ৭জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। গত ১৮ বছর অপেক্ষা করছে রায় শুনার জন্য। রতন দাস এই প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে দীর্ঘ শ^াস ফেলে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও চায় খুব তাড়াতাড়ি এ মামলার বিচার কাজ শেষ হোক। রতন দাস ঘটনার সাথে দায়ি ব্যক্তিদের সর্ব্বচ্চো শাস্তি দাবি করে বলেন, আমার বিশ^াস আমরা ন্যায় বিচার পাব। এই মামলার অন্যতম আসামী মুফতি হান্নানের ফাঁসি ইতিমধ্যে কার্যকর হয়েছে। কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু জামিনে রয়েছে। ক্রস ফায়ারে নিহত মমিনউল্লাহ ডেবিডের ছোট বাই শাহাদাত উল্লাহ জুয়েল কারাগারে। অন্যতম অভিযুক্ত আনিসুল মোরসালিন ও মুহিবুল মোস্তাকিন ভারতে কারাগারে বন্দি। আরেক আসামী ওবায়দুল্লাহ পলাতক। রতনের বিশ^াস ২০টি তাজা প্রাণ ও অর্ধশত আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীর রক্ত বৃথা যাবে না। অনেকটা বন্দি জীবন যাপনে অভ্যস্ত হয়ে পড়া দুই পা হারানো রতন দাস বলেন, আমরা কিছুই চাইনা- শুধু মাত্র আদালতের কাছে ন্যায় বিচার চাই।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *